সড়ক উন্নয়ন, গোড়াইতে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট



অভিজিৎ ঘোষ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চারলেনের মহাসড়কের সুবিধা পেলেও মির্জাপুরের গোড়াইতে গিয়ে যানজটের কবলে পড়তে হয় পরিবহনগুলোকে। যানজট অনেক সময় তীব্র আকার ধারণ করে। ফলে ভোগান্তিতে পড়তে হয় ঢাকা এবং উত্তর-দক্ষিণবঙ্গগামী চালক ও যাত্রীদের। এছাড়া গোড়াইতে সার্ভিস লেন ও ফ্লাইওভারের কাজ চলমান থাকায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, জয়দেবপুর-চন্দ্রা-টাঙ্গাইল-এলেঙ্গা মহাসড়কে চারলেন উন্নীতকরণ প্রকল্পের কাজের অংশ হিসেবে মহাসড়কের মির্জাপুরের গোড়াইতে দীর্ঘদিন ধরে ফ্লাইওভার নির্মাণ ও সার্ভিস লেনের কাজ চলছে। একদিকে উন্নয়ন, অন্যদিকে যানজট। দীর্ঘদিন ধরে কাজ চলায় ব্যবসায় ধ্বস নেমেছে সেখানকার ব্যবসায়ীদের। কমে গেছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে কেনা-বেচা।

গোড়াই বাসস্ট্যান্ড এলাকার ব্যবসায়ীরা জানান, যাতায়াত সমস্যার কারণে এখানে কেনা-বেচা কমে গেছে। নতুন রাস্তা ও ফ্লাইওভার নির্মাণ হচ্ছে। ফলে মানুষজন আগের মত দোকানপাটে কেনাকাটা করতে আসছেন না। দোকান ভাড়া ঠিকই পরিশোধ করতে হচ্ছে মালিককে। কিন্তু সে অনুপাতে বেচা-বিক্রি নেই।

স্থানীয় বাসিন্দা আবুল মনছুর জানান, প্রতিনিয়ত যানজটে পড়তে হয় গোড়াইতে। গোড়াইয়ের ভিতর দিয়েই সখিপুর ও সাগরদিঘী সড়কের লিংকরোড। ফলে ওই সড়কের গাড়িগুলো মহাসড়কে প্রবেশ করছে। এছাড়া সড়ক উন্নয়নের কাজের জন্য বিভিন্ন অংশে খোঁড়াখুঁড়ির কারণে স্থানীয়দের দুর্ভোগ আরো বেড়েছে।

মহাসড়কের গোড়াই হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. মোজাফফর হোসেন বলেন, গোড়াইতে ফ্লাইওভার নির্মাণ ও সড়কের কাজ হওয়ায় সেখানে প্রতিনিয়ত যানজট লেগে থাকে। স্থায়ী যানজট নিরসনে ক্ষণিকের এই ভোগান্তি মানতে হচ্ছে। ফ্লাইওভার ও সড়কের কাজ শেষ হলেই আর ভোগান্তি থাকবে না।

মহাসড়কের চারলেন প্রকল্পের প্রজেক্ট পরিচালক মো. ইসতিয়াক বলেন, সড়ক উন্নয়ন ও ফ্লাইওভার নির্মাণের ফলে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। তবে অতি দ্রুত নির্মাণ কাজ শেষ হবে।