বারইয়ারহাট পৌর টার্মিনাল দখলের অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)
বারইয়ারহাট পৌর টার্মিনাল দখলের অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে

বারইয়ারহাট পৌর টার্মিনাল দখলের অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে

  • Font increase
  • Font Decrease

মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাট পৌরসভার পিকআপ ও সিএনজি টেক্সি টার্মিনাল দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে। ২০১৬ সালে নির্মিত ওই সম্পত্তিতে টার্মিনাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলো পিকআপ ও সিএনজি টেক্সি চালকরা। জামাল ট্রেডার্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ এ টার্মিনাল দখল করে উল্টো বুধবার (২ ডিসেম্বর) যানবাহন শ্রমিকদের ওপর চড়াও হয়। এসময় এক পিকআপ চালককে মারধর করেন খোদ দখলদার আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন।

গত বুধবার সন্ধ্যায় বারইয়ারহাট পৌরসভার মেয়র ও স্থানীয় পিকআপ-সিএনজি টেক্সি চালকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে জামাল ট্রেডার্সের মালিক জামাল উদ্দিন পৌরসভা এলাকার বেশ কিছু সরকারি সম্পত্তি দখল করে রেখেছিল। ২০১৬ সালে মিরসরাই উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সম্পত্তিগুলো উদ্ধার করা হয়। পরে ওই সম্পত্তিতে পিকআপ ও সিএনজি টেক্সি রাখার টার্মিনাল নির্মাণ করে পৌর কর্তৃপক্ষ। এরপর থেকে এটি টার্মিনাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলো চালকরা। হঠাৎ গত কয়েকদিন ধরে জামাল পুনরায় টার্মিনালের জায়গা দখলের পাঁয়তারা শুরু করে।

ওইদিন সরেজমিন বারইয়ারহাট পৌরসভার টার্মিনাল এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, টার্মিনাল এলাকায় ভেড়া ও সারি সারি বাঁশের স্তুপ করে রাখা হয়েছে। যার কারণে পিকআপ ও সিএনজি টেক্সি রাখা যাচ্ছে না।

ওইদিন স্থানীয়দের সাথে কথা বললে তারা জানায়, এসব বাঁশ ও ভেড়া হিঙ্গুলী ইউনিয়নের জামালপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জামাল উদ্দিনের ব্যবসায়ী মালামাল।

এসময় পিকআপ ও সিএনজি টেক্সি চালক সমিতির স্থানীয় নেতারা অভিযোগ করেন, বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টা নাগাদ টার্মিনাল দখলের বিরোধিতা করলে আওয়ামী লীগ নেতা জামাল আব্দুর রহিম নামের এক পিকআপ চালককে মারধর করে।

মিরসরাই-বারইয়ারহাট ট্রাক-পিকআপ বহুমুখী চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নূর নবী বলেন, টার্মিনাল দখলের প্রতিবাদ করায় আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন আমাদের এক পিকআপ চালককে মারধর করে। আমরা সন্ধ্যায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। পরে হামলার শিকার আব্দুর রহিম বাদী হয়ে জোরারগঞ্জ থানায় জামালের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছে।

এদিকে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৪ নম্বর জামালপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জামাল ট্রেডার্সের মালিক জামাল উদ্দিন বলেন, এটি কোনো টার্মিনাল নয়, এখানে দীর্ঘদিন আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল। বরং পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিন আমাকে উচ্ছেদ করে এখানে টার্মিনাল বানিয়েছে। মারধরের বিষয়টি সত্য নয়।

বারইয়ারহাট পৌরসভার মেয়র মো. নিজাম উদ্দিন জানান, ২০১৬ সালে উপজেলা প্রশাসন পৌরসভা এলাকার এসব সরকারি সম্পত্তিতে থাকা দখলদারদের উচ্ছেদ করে। পরে আমরা সেখানে পৌরসভা থেকে পিকআপ ও টেক্সি রাখার জন্য টার্মিনাল নির্মাণ করি। গত ৪দিন ধরে হঠাৎ আগের দখলদার জামাল পুনরায় ওই স্থানে নিজের প্রতিষ্ঠানের মালামাল রাখা শুরু করে। বুধবার টার্মিনাল দখলের প্রতিবাদ করায় জামাল একজন পিকআপ চালককে মারধর করে।

এদিকে টার্মিনাল দখলের পাঁয়তারার ঘটনায় ক্ষুব্ধ বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগ নেতারা। তাদের মতে এটি সরকারি সম্পত্তি এটি দখল করার অধিকার কেউ রাখে না।

এ বিষয়ে বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম খোকন বলেন, টার্মিনাল দখলের ঘটনাটি সত্য। এটি সরকারি সম্পত্তি। জামাল নিজের গায়ের জোরে এটি দখল করবে তা মানা যায় না।

এ বিষয়ে মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার ওসি নূর হোসেন মামুন বলেন, বারইয়ারহাটে হাতাহাতির একটি ঘটনা আমাকে জানানো হয়েছে। আমি তাদের (চালক) থানায় অভিযোগ দিতে বলেছি এবং তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছি।