রূপনগর খালকে তুরাগ নদীর সঙ্গে সংযোগ করা হবে: আতিক



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম

  • Font increase
  • Font Decrease

মিরপুর এলাকার রূপনগর খাল পরিষ্কার করে নৌযান চলাচল উপযোগী করার কাজ করছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। এই রূপনগর খালকে তুরাগ নদীর সঙ্গে সংযুক্ত করার ঘোষণা দিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, রূপনগর আবাসিক এলাকা থেকে রূপনগর খাল দিয়ে সাংবাদিকদেরকে নিয়ে নৌকায় তুরাগ নদীতে যেতে চাই।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রূপনগর খাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মেয়র একথা বলেন। ওয়াসার কাছ থেকে খালের দায়িত্ব বুঝে পুরোদমে চলছে খাল সংরক্ষণের কাজ। এরই অংশ হিসেবে ডিএনসিসির অর্থায়নে পরিষ্কার করা হয়েছে রূপনগর খাল। মেয়র রূপনগর খালের পরিষ্কার কাজের অগ্রগতি দেখতে খাল পাড় দিয়ে হেঁটে প্রায় এক কিলোমিটার পরিদর্শন করেন। পরে রূপনগর আবাসিক এলাকার একটি সড়কের ওপর বাচ্চাদের সাথে কিছুক্ষণ ক্রিকেট খেলেন। এরপর রূপনগর খালের পাড়ে একটি আম গাছের চারা রোপণ করেন।

আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, রূপনগর খালে আগে প্রচুর আবর্জনা ছিল। আমরা সেগুলো পরিষ্কার করেছি। প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০ জন কর্মী কাজ করে ১৫ দিনে খালটি পরিষ্কার করা হয়। এটি প্রায় দুই কিলোমিটার লম্বা এবং সর্বোচ্চ ৬০ ফুট চওড়া। এখন কাজ হচ্ছে খাল এবং এর আশেপাশের অংশ সুন্দর করা। খালের পাড়ে প্রাথমিকভাবে গাছ লাগানো হবে। এরপর সাইকেল লেন তৈরি করা হবে। এই খালের সঙ্গে তুরাগ নদীর সংযোগ করা হবে।

খাল পুরোপুরি পরিষ্কার হলে এলাকাবাসীর বিভিন্ন সুবিধার কথা তুলে ধরে মেয়র বলেন, এই এলাকায় বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে। এখানে মনিপুর স্কুল, কমার্স কলেজ এবং একটি বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে। শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সময় মেইন রোডের ওপর চাপ পড়ে। রূপনগর খালের পাশে ওয়াক ওয়ে এবং সাইকেল লেন করতে পারলে সবাই যাতায়াত করতে পারবে। এজন্য আমরা এখানে ওয়াক ওয়ে এবং সাইকেল লেন করবো। সবুজায়নের জন্য ইতিমধ্যে গাছ লাগানো হয়েছে।

খাল পাড়ে থাকা সকল অবৈধ স্থাপনা নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান ডিএনসিসি মেয়র। অন্যথায় এলাকাবাসীদের সঙ্গে নিয়ে অবৈধ দখল উচ্ছেদ করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

আগামী মার্চ থেকে ডিএনসিসির হোল্ডিং ট্যাক্স অনলাইনে বাসায় বসেই দেওয়া যাবে বলেও জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম। পরিদর্শন শেষে মেয়র পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

পরিদর্শনকালে অন্যান্যের মধ্যে ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তফাজ্জল হোসেন টেনু, ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তাইজুল ইসলাম বাপ্পি ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এম সাইদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

রূপকথার খাল পরিদর্শন করে দুপুর দেড়টায় মেয়র আতিকুল ইসলাম মোহাম্মদপুর বিআরটিসি বাস ডিপো পরিদর্শন করেন। মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ডের এই অংশে যানজট কমানোর জন্য বাস ডিপোর সীমানা প্রাচীর ভেঙে সড়ক প্রশ্বস্ত করা হবে বলে তিনি জানান।

বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. এহছানে এলাহী, ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম সেন্টু ও ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসিফ আহমেদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। তারপর ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম সেন্টু ও ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসিফ আহমেদকে সাথে নিয়ে ডিএনসিসি মেয়র তাজমহল ঈদগাহ মাঠ ও শহীদ পার্ক মাঠ পরিদর্শন করেন।