বরিশালে আসবে ৫০ হাজার করোনার টিকা



জহির রায়হান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরিশাল
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বরিশাল জেলায় প্রথম ধাপে আসবে প্রায় ৫০ হাজার করোনার টিকা। ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ মিলে এসব ভ্যাকসিনের চাহিদাপত্র স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। বরিশালে আসা মাত্রই প্রায় ১৫ ক্যাটাগড়ির মানুষের মধ্যে এসব ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে।

সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, চলতি জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকে জেলা-উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় প্রথম ধাপে ৫০ হাজার করোনা ভ্যাকসিনের চাহিদাপত্র স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

এছাড়াও বরিশাল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সম্মেলন কক্ষে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য ১৬ জানুয়ারি জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

আরও জানা গেছে , স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে প্রস্তুত করে ভ্যাকসিন প্রত্যাশীদের জন্য একটি আবেদন ফরম পাঠানো হয়েছে। যা স্বাস্থ্য বিভাগের সহায়তায় অনলাইনে আবেদনটি পূরণ করে সাবমিট করতে হবে। এসব কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আগামী ২৫ বা ২৬ জানুয়ারির মধ্যে ৫০ লাখ করোনার টিকা দেশে আসবে।

এর পাশাপাশি ভারত সরকার উপহার স্বরূপ বাংলাদেশকে কিছু টিকা দেবে। বেসরকারি পর্যায়ে আমদানি ও টিকাদানের ব্যবস্থা রাখা হবে। তবে সেক্ষেত্রে টিকার দাম সরকার নির্ধারণ করে দেবে। এর নীতিমালাও তৈরির প্রক্রিয়া চলছে।

স্থানীয় জেষ্ঠ্য সাংবাদিক সুশান্ত ঘোষ বার্তা২৪.কম-কে জানান, করোনাভাইরাস জনজীবনকে অচলাবস্থা করে দিয়েছে। কবে এ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে কারো জানা নেই । তাই সকলের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রেখে সঠিকভাবে ভ্যাকসিন সরবরাহ ও জনসাধারণের মাঝে প্রদান করার জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ জানান এই সাংবাদিক।

বরিশালের সিভিল সার্জন ডাক্তার মনোয়ার হোসেন বার্তা২৪.কম-কে জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকল মানুষকে করোনার টিকা প্রদান করবে। সে অনুযায়ী বরিশাল জেলায় প্রথম ধাপে ৫০ হাজার ভ্যাকসিনের চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশে আসার পর বরিশালে দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্য, ডাক্তার-নার্স, স্বাস্থ্য বিভাগ সংশ্লিষ্ট, মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিকসহ ১৫ ক্যাটাগড়ির মানুষের মাঝে প্রদান করা হবে।

তবে এর আওতায় গর্ভবতী মা, সত্তরোর্ধ্ব বয়স্ক মানুষ ও ১৮ বছরের নিচে কিশোর-কিশোরীরা থাকবে না। ভ্যাকসিন সংরক্ষণ, প্রদানসহ যাবতীয় সকল কার্যক্রমে জেলা প্রশাসনকে সহযোগিতা করবে সিভিল সার্জন কর্তৃপক্ষ।

বরিশালের জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন হায়দার বার্তা২৪.কম-কে বলেন, বরিশাল জেলায় করোনা ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রথম ধাপে ৫০ হাজার ভ্যাকসিনের চাহিদা পাঠানোর পাশাপাশি ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য গঠিত জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া ভ্যাকসিন সংরক্ষণ ও প্রদান করার জন্য জেলা-উপজেলা প্রশাসন, ডাক্তার-নার্স, স্বাস্থ্যবিভাগ সহ সংশ্লিষ্টদের প্রস্তুত করা হচ্ছে।

ভ্যাকসিন প্রদানের জন্য ঢাকায় প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর বরিশালেও প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হবে। প্রশিক্ষিত জনবল বাড়িয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রথম ধাপে করোনা মোকাবিলায় সম্মুখযোদ্ধাদের ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে।