বেনাপোল বন্দরে রেল থেকে রাজস্ব আদায় ১২ কোটি টাকা



স্টাফ করেসপন্ডেট, বার্তা২৪.কম, বেনাপোল (যশোর)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বেনাপোল স্থলবন্দরের রেলপথে চলতি অর্থ বছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর, ২০২০) রাজস্ব আদায় হয়েছে প্রায় ১২ কোটি টাকা। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) বিকালে রেলে পণ্য পরিবহন ভাড়া বাবদ রাজস্ব আয়ের তথ্য নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার শাহিদুজ্জামান।

সংশ্লিষ্টদের মতে, আমদানি বাড়ায় চলতি অর্থ বছরে শেষে এখান থেকে দিগুণ রাজস্ব আদায় হওয়ার সম্ভাবনা আছে। বাণিজ্যের চাহিদা থাকলেও রেল পথের অবকাঠামো সমস্যায় তা অনেকটা ব্যহত হচ্ছে।

বেনাপোল রেলস্টেশন সূত্রে জানা গেছে, রেল পথে চলতি ২০২০-২১ অর্থ বছরের প্রথম ছয় মাসে ভারত থেকে পণ্য আমদানি হয়েছে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৪৫৪ দশমিক ৩ মেট্রিক টন। এর বিপরীতে রাজস্ব আদায় হয়েছে ১১ কোটি ৮৫ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। গত অর্থ বছরের একই সময়ে আমদানি হয় এক  লাখ ৮৪ হাজার ৭৩ দশমিক ৯ মেট্রিক টন। এর বিপরীতে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৮ কোটি ৮৮ লাখ ২৬ হাজার টাকা।

আমদানি সমিতির সহ-সভাপতি আমিনুল হক বলেন, ‘আগে রেলপথে শুধু পাথর ও সিমেন্টের কাঁচামাল আমদানি হতো। এখন পিকআপ, ট্রাকটর, পাথর, সিমেন্টের কাঁচামাল, ভুট্টা, গম, শুকনা মরিচ, জিরা, আদাসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে অর্থবছর শেষ রাজস্ব আদায় দিগুণ হবে।’

বেনাপোল সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেন, ‘করোনার কারণে প্রেট্রাপোল-বেনাপোল বন্দরের স্থল পথে পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে রেলপথে সব পণ্য আমদানি চালু করা হয়। প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন করা গেলে এ পথে বাণিজ্য আরও গতিশীল হবে।’

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার শাহিদুজ্জামান বলেন, ‘বর্তমানে বেনাপোল রেলপথে আমদানি বাড়ছে। তবে রেল ইয়ার্ড না থাকায় পণ্য আমদানি কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। তবে ইতোমধ্যে বন্দরে দুটি রেল ইয়ার্ড নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনা করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুত অনান্য সমস্যারও সমাধান হবে।’