ভ্যাকসিন নিয়ে সকল গুজব মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

  • Font increase
  • Font Decrease

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে সব ধরনের গুজব মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। মানুষ স্বতস্ফুর্তভাবে ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। প্রতিটি ভ্যাকসিন কেন্দ্রে একটি অন্যরকম আমেজ চলে এসেছে। ভ্যাকসিন গ্রহীতা একজনেরও কোন রকম অসুবিধা হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর ভ্যাকসিন প্রদান কেন্দ্রগুলির মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশবিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সকাল ১১টায় প্রথমে বিএসএমইউতে যান এবং সেখানে টিকাদান কর্মসূচি পরিদর্শন করেন। সেখানে সকালে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জোনায়েদ আহমেদ পলক, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াসহ অনেকেই উনার উপস্থিতিতে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন।

পরে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভ্যাকসিন কার্যক্রম পরিদর্শনকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, ঢাকা মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবিএম জামালসহ বিভিন্ন ফ্রন্টলাইনরা ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, গতকাল ২৭ জানুয়ারি বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভ্যাকসিন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এর অংশ হিসেবে আজ ২৮ জানুয়ারি রাজধানী ৫টি হাসপাতালে প্রায় ৬০০ জনের অধিক স্বাস্থ্যকর্মী, রাজনীতিবিদসহ অন্যান্য সম্মুখ যোদ্ধাদের ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়। ভ্যাকসিন গ্রহণকারী সকলেই এসময় সুস্থ ছিলেন ও ভ্যাকসিন পরবর্তী ১০-২০ মিনিটেই স্বাভাবিক কাজে ফিরে যান।

ভ্যাকসিন গ্রহণ শেষে এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান বলেন, ভ্যাকসিন গ্রহণের ২০ মিনিটের মধ্যেই আমি আমার স্বাভাবিক কাজকর্ম শুরু করেছি। কোন রকম অসুবিধাই হয়নি। কোন ধরনের মিথ্যা গুজবে কান না দিতে তিনি এসময় সকলকে অনুরোধ করেন।

উল্লেখ্য, রাজধানীর ৫টি হাসপাতালের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলের প্রায় ২০০ জনকে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রায় ২০০ জনকে, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে প্রায় ১০০ জনকে, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রায় ১৫০ জনকে এবং কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে প্রায় ৫০ জনসহ মোট প্রায় ৭০০ জনকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের মিডিয়া সেল।