ধর্ষণ মামলা তুলতে রাজি না হওয়ায় ফের অপহরণ করে ধর্ষণ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ধর্ষক আব্দুস সাত্তার

ধর্ষক আব্দুস সাত্তার

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার দেওখোলা এলাকার আব্দুস সাত্তারকে (৫০) গত বছরের ২৬ জুলাই কিশোরী ধর্ষণ মামলায় যেতে হয় জেলে। পরবর্তীতে তিনি জামিনে ছাড়া পেয়ে সেই কিশোরীর পরিবারকে চাপ দিতে থাকেন মামলা তুলে নেওয়ার জন্য। তবে ভুক্তভোগী সেই পরিবার মামলা তুলতে রাজি না হওয়ায় ওই কিশোরীকে ফের অপহরণ করে সাত্তার। অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে চলে ধর্ষণও।

পরে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) অভিযান চালিয়ে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবের চন্ডীবেড় মধ্যমপাড়া এলাকা থেকে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধারসহ অপহরণকারী ধর্ষক সাত্তারকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১৪।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে র‍্যাব-১৪ থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এমনই এক তথ্য জানানো হয়।

র‍্যাবের সহকারি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসাইন জানান, গত ২১ জানুয়ারি কিশোরীকে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে র‍্যাবের কাছে একটি অভিযোগ দেন তার বাবা। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৪’র একটি দল তদন্ত করে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত করে। পরে গোপন সূত্রে র‍্যাব জানতে পারে অপহরণকারী চক্রটি কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার চন্ডীবেড় মধ্যমপাড়া এলাকার ময়নুল ইসলাম হিরন মোল্লার বাড়িতে মেয়েটিকে আটকে রেখেছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ওই স্থানে অভিযান চালিয়ে ওই কিশোরীকে উদ্ধার ও অপহরণকারী আব্দুস সাত্তারকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, সে পূর্ব শত্রুতা ও যৌনলালসা চরিতার্থকরণের উদ্দেশ্যে জোরপূর্বক ওই কিশোরীকে অপহরণ করে এবং বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে একাধিকবার ধর্ষণ করে।