খুলনায় হরতালে হেফাজতের ৩ কর্মী আটক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আহবানে হরতালের সমর্থনে খুলনায় একটি বিক্ষোভ বের করে হেফাজতকর্মীরা। পরে পুলিশ পিটিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় তাদের মধ্যে থেকে তিন শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশ।

রোববার (২৮ মার্চ) দুপুরের দিকে সোনাডাঙ্গা থানাধীন নাজিরঘাট মাদ্রাসা থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়। ওই মিছিলটি নিরালা মারকাজ মসজিদের সামনে এলে সোনাডাঙ্গা থানার টহলরত পুলিশ তাদেরকে পিটিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

পুলিশ জানায়, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আহবানে হরতালের সমর্থনে তারা বিক্ষোভ মিছিলটি বের করেছিল। ওই মিছিল থেকে তিন শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে।

আটকরা হলেন, খুলনার রূপসা উপজেলার যুগিহাটি গ্রামের হাফেজ সোলায়মানের ছেলে আহসানুল হাসান তামিম (২১), তিনি দারুল উলুম মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র। বয়রার আজিজির মোড় এলাকার মোস্তফা হাওলাদারের ছেলে মো: মিরাজ মাহমুদ (২০), তিনি ফারুকিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী এবং ওই এলাকার সরোয়ার ওরফে শিরুর ছেলে মো: আবুল হোসেন (২০), তিনি আজম খান কমার্স কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অনার্স ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী। বর্তমানে তারা সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন।

সোনাডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মমতাজুল ইসলাম বলেন, 'আটক তিন জন থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে এখনো কোন মামলা দায়ের হয়নি।'

এ ঘটনা ছাড়া হেফাজত ইসলামের ডাকা হরতালকে কেন্দ্র করে খুলনার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও মোড়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের অবস্থান করতে দেখা গেছে।

খুলনার সোনাডাঙ্গা বাস স্ট্যান্ড থেকে সকালে সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, মোংলা, পিরোজপুর, বরিশাল, কুষ্টিয়াসহ বিভিন্ন এলকায় যানবাহন ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। সকালে গণপরিবহনে যাত্রীর সংখ্যাও ছিল কিছুটা কম। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সড়কে যানবাহনের সংখ্যা কিছুটা বাড়তে থাকে। খুলনা শহরের অভ্যন্তরে প্রতিদিনের ন্যায় ইজিবাইক ও মাহেন্দ্রা স্বাভাবিক ভাবে চলতে দেখা গেছে।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ কমিশনার (ট্রাফিক) মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, গাড়ি চলাচলে কোথাও কোন অসুবিধা হয়নি, শহরের ভিতরে এবং শহরের বাইরে যাওয়ার সব চেকপোস্ট স্বাভাবিকভাবেই গাড়ি চলাচল করছে।

খুলনা জেলা বাস-মিনিবাস-কোচ মালিক সমিতির যুগ্ম-সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সোনা বলেন, আমরা সকাল থেকেই বাস চলাচল স্বাভাবিক রেখেছি। খুলনা থেকে রুটে বাস ছেড়ে গিয়েছে।

বাস মালিক সমিতি সর্বসম্মতিক্রমে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানান, আনোয়ার হোসেন সোনা।

খুলনা রেল স্টেশনের স্টেশন ম্যানেজার মানিক চন্দ্র সরকার বলেন, সকাল থেকে আন্তঃনগর রকেট, চিত্রা কপোতাক্ষ ছেড়ে গিয়েছে। এছাড়া দুপুরে বেনাপোলগামী ট্রেন ছেড়ে গেছে। ট্রেন চলাচলে কোন ব্যাঘাত ঘটেনি।

উল্লেখ‌্য, বাংলাদেশে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররম, হাটহাজারীসহ সারাদেশে হেফাজতের আন্দোলনরতদের ওপর হামলা ও চারজন নিহত হওয়ার প্রতিবাদে ২৮ মার্চ সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকে হেফাজত ইসলাম।