‘দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় সরকারের কোন পূর্ব প্রস্তুতি ছিল না’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় সরকারের কোন পূর্ব প্রস্তুতি ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। করোনা সংক্রমণের ভয়াবহতার প্রেক্ষাপটে করণীয় বিষয়ে নাগরিক সংবাদ সম্মেলনের ব্যানারে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

জোনায়েদ সাকি বলেন, সরকারের আগাম প্রস্তুতির অভাব ছিল শুরু থেকেই। এমন কি যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশও প্রস্তুতির অভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আবার প্রযুক্তি ও অর্থনৈতিকভাবে অনুন্নত দেশও সফল হয়েছে। করোনার সংক্রমণকে অগ্রাধিকার দিয়ে সর্বশক্তি নিয়োগ করলে প্রথমেই এটাকে মোকাবিলা করা সম্ভব হতো।

তিনি বলেন, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে ৪৯ দিনের একটি লকডাউনের মাধ্যমে সংক্রমণকে একদম নিম্ন পর্যায়ে আনা যেতো। সেক্ষেত্রে সরকারকে আড়াই কোটি পরিবারের জীবিকা নিশ্চিত করতে হতো, যার সামর্থ আমাদের ছিল। শুধুমাত্র ভুল পদক্ষেপের কারণে সরকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ। এমনকি দ্বিতীয় ওয়েব মোকাবিলার জন্যও সরকারের কোন পূর্ব প্রস্তুতি ছিল না। স্বাস্থ্যখাতে সরকার পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে চলেছে। সাধারণ মানুষকে অভুক্ত রেখে এই লকডাউন নামের তামাশা চলতে পারে না।

সভাপতির বক্তব্যে ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু গণস্বাস্থ্যের কিটের অনুমোদন দেওয়া ও কিট বিজ্ঞানী ডা. বিজন কুমার শীলের দেশে ফিরিয়ের আনার জোর দাবি জানান। করোনার এ মহামারি থেকে উত্তরণের জন্য সকলস্তরের নাগরিকদের নিয়ে সরকার জরুরি একটি সর্বদলীয় নাগরিক কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নূরুল হক নূর, ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাঈম জাহাঙ্গীর, মুক্তিযোদ্ধা ইসতিয়াক আজিজ উলফাত, রাষ্ট্র চিন্তার দিদারুল ভুঁইয়া, পানি বিশেষজ্ঞ ম ইনামুল হক, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার সাদিয়া আরমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গণমাধ্যম উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

জুমে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, ও বেলা‘র নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওনা হাসান।