মুনিয়া ব্যাভিচারের শিকার: হারুনুর রশীদ



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সংসদ অধিবেশনের ফাইল ছবি

সংসদ অধিবেশনের ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ বলেছেন, ‘কিছুদিন আগে মাত্র ২০-২১ বছরের একটি মেয়ে মুনিয়া, সে বিচারের শিকার হলো। কারা করলো? এই অপরাধের সাথে কারা জড়িত? তার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কতটুকু ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। অবশ্যই ব্যাপারগুলো নারীর সুরক্ষা নারীর নিরাপত্তা সাথে জড়িত। সমাজের উপরের স্তরের লোকেরা যারা এই ধরনের কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত তাদের যদি আইনের কঠোর আনতে পারেন তাহলে নারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত হবে।

বুধবার (১৬ জুন) স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে ‘শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র-২০২১ বিল পাসের আগে সংশোধনী প্রস্তাবের উপর আলোচনকালে তিনি একথা বলেন। 

হারুনুর রশীদ বলেন, নারীর কাজে যাবার ক্ষেত্রে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। অনেক ক্ষেত্রে ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। এই ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের জায়গা থেকে যদি কড়া মেসেজ দিতে না পারি, আইন আছে যদি আইনের সঠিক প্রয়োগ না করতে পারি তাহলে কিন্তু সমস্ত আইন ভেস্তে যাবে। রাস্তায়, ট্রেনে, বাসে, লঞ্চে বিভিন্ন জায়গায় নারীরা সাংঘাতিকভাবে নিগৃহীত হচ্ছে।

তিনি বলেন, শিশু দিবাযত্ন কেন্ত্র আইন পাসের ফলে নারীদের কর্মসংস্থানের বিরাট একটা ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে। জেলা উপজেলায় পর্যায়ে এধরণের কেন্দ্র নির্মাণে বহু নারী কিন্তু কর্ম ক্ষেত্রে প্রবেশ করতে পারবে।

তিনি আরও বলেন, নারীরা আমাদের দেশেই যেখানে নিরাপদ নয় কর্মক্ষেত্রে। সেখানে বাইরে নারী শ্রমিক পাঠাচ্ছি। সে খানে কি অবস্থা হচ্ছে। কি বিভৎস অবস্থা। নারী শ্রমিক বিদেশে পাঠানো বন্ধ করা যায় না?

তিনি ইসলামিক বিধান উল্লেখ করে বলেন, আমাদের ইসলামিক আইনে আছে নারীরা কোথাও বাইরে গেলে মাহরুম লাগে। সেখানে নারীদের পাঠিয়ে দিচ্ছি অন্য দেশে। সেখানে যেয়ে বিপদগ্রস্ত হলে সে বিভিন্ন ধরণের সংকটে পড়লে তাকে কে নিরাপত্তা দেবে? সেখানকার অ্যাম্বাসিগুলো খবর নেয় না। এখানে যারা নারী পাচারকারী রয়েছে, যারা নারীকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে পাঠিয়ে দেয়। পাঠিয়ে দেবার পরে তাদের আর দায় দায়িত্ব নাই। এই ক্ষেত্রে নারী শিশু মন্ত্রণালয় ব্যাপারটি খুবই গুরুত্বসহকারে নেবেন।

হারুনুর রশীদ বলেন, দেশে এমন একটা প্রচলন নারীরা ক্লাবে গেলে খারাপ মেয়ে খুব সহজেই বলে দিতে পারে। নারীদের মদ্যপান হারাম, পুরুষদের মদ্যপান কি বৈধ? রাত জাগে সারারাত ধরে পুরুষরা মধ্যপান করে তখন বলে যে না ঠিক আছে। দুটোই হারাম দুটোই নিষিদ্ধ।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, পরীমনির ঘটনায় দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। কিন্তু বোটক্লাবটির ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। ক্লাবটির সভাপতি আমাদের পুলিশের প্রধান। সেই ক্লাবটি নদীর মধ্যে অবস্থিত সেটা ভাইরাল হচ্ছে। দেখা যাচ্ছে তুরাগ নদীর পার দখল করে ক্লাবটি হচ্ছে কি না।