মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
সংবাদ সম্মেলন

সংবাদ সম্মেলন

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়ের করা মামলাকে মিথ্যা দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছে এলাকার সংক্ষুব্দ সাধারণ মানুষ।

বুধবার (৩০ জুন) সকালে আশুগঞ্জ প্রেসক্লাবের হলরুমে সংবাদ সম্মেলন করে এই দাবি করেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি নাজমুল হক সুমন চৌধুরী।

লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফ উদ্দিন চৌধুরী কর্তৃক এলাকার মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। রাজনৈতিকভাবে আমাদের ঘায়েল করতে না পেরে নানা ধরনের হয়রানিতে লিপ্ত। সম্প্রতি দক্ষিণ তারুয়া গ্রামে চেয়ারম্যানের ভাই ইমান উদ্দিনের একটি পুকুরে মাছ মরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে আমাকেসহ আরও বেশ কয়েকজনকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন। সেই ঘটনার সময়ে আমি ও আমার কোন লোকজন ঘটনাস্থলে ছিলাম না। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রকমের ফন্দি করে আমাদের মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তার কারণে এলাকার সাধারণ লোকজনকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও চেয়ারম্যান উপজেলার শাহ ফরাসত আলী উচ্চ বিদালয়ের সভাপতি থাকাকালীন অবৈধ উপায়ে বিদ্যালয়ের তহবিল থেকে টাকা উঠিয়ে নিয়েছেন। এসব ঘটনায় প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচারের দাবি জানানো হয়।

এসময় এলাকাবাসীর পক্ষে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হোসনা চৌধুরী, সোলেমান চৌধুরী, আবু বকরসহ এলাকার মুরুব্বিরা উপস্থিত ছিলেন।

তবে এসব অভিযোগের বিষয়ে শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফ উদ্দিন চৌধুরী জানান, ইউপি নির্বাচনে পরাজিত হয়ে সুমন চৌধুরী ও তার লোকজন আমার ও আমার পরিবারের প্রতি প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে একের পর এক মামলা দায়ের করে চলেছে। গত ২৭ জুন দিবাগত রাতে সুমন চৌধুরীর ভাই ইমরানসহ আরও বেশ কয়েকজন আমার ছোটভাই ইমান উদ্দিনের একটি পুকুরে বিষ ঢেলে দিয়ে প্রায় ৪০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে। এই বিষয়ে আমার ছোট ভাই বাদি হয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। অন্য অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, এইসব আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। বাস্তবের সাথে এসব কথার কোন মিল নেই। সামনে ইউপি নির্বাচন তাই আমাকে ঘায়েল করার জন্য এসব অভিযোগ।