বালিয়াকান্দির ক্যাফে বহরপুরকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
বালিয়াকান্দির ক্যাফে বহরপুরকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

বালিয়াকান্দির ক্যাফে বহরপুরকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

  • Font increase
  • Font Decrease

১৪ দিনের কঠোর বিধি-নিষেধ অমান্য করে ফাস্টফুডের দোকান খুলে বেচাকেনা করার অপরাধে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির বারুগ্রাম আবাসনে অবস্থিত  ‘ক্যাফে বহরপুর’ কে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে তা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় বালিয়াকান্দির আরো কয়েকটি দোকানে অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

জরিমানা করার বিষয়টি বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করেছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আম্বিয়া সুলতানা।

রোববার (২৫ জুলাই) বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বালিয়াকান্দির বারুগ্রাম আবাসন, নারুয়া বাজার, নারুয়া ঘাট, সোনাকান্দর ঘাট, বালিয়াকান্দি বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে লকডাউন বাস্তবায়ন ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আসাদুজ্জামান। এ সময় সহযোগিতা করেন রাজবাড়ী পুলিশ লাইনসের একটি বিশেষ টিম।

ভ্রাম্যমাণ আদালতটি স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করায় বারুগ্রাম আবাসনের 'ক্যাফে বহরপুর'কে বিধি-নিষেধ  অমান্য করে ব্যবসা পরিচালনা করায় ২০ হাজার টাকা, বহরপুর বাজারের একটি কাপড়ের দোকানদারকে ১০০০ টাকা, নারুয়া বাজারে ফ্রিজ টিভির দোকানদারকে ২০০০, বালিয়াকান্দি বাজারের একটি হোটেলকে ক্রেতা বসিয়ে খাওয়ানোর জন্য ২০০০টাকা অর্থদণ্ডসহ ৫ টি মামলায় মোট ২৫ হাজার ২০০ টাকা অর্থদণ্ড আরোপ ও আদায় করেন।

বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আম্বিয়া সুলতানা বার্তা২৪.কমকে বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার যে বিধি-নিষেধ আরোপ করেছেন তা বাস্তবায়নে প্রশাসন মাঠে রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এই অভিযান। এই অভিযান ৫ আগস্ট পর্যন্ত অব্যহত থাকবে।

এ সময় ইউএনও আরো বলেন, ক্যাফে বহরপুরকে এর আগে আমি মৌখিক ভাবে বেশ কয়েকবার সতর্ক করে এসেছি। এরপরও তারা আইন অমান্য করে বেচাকেনা করতে থাকেন। আজ রোববার (২৫ জুলাই) আমি নিজে বেলা চারটার দিকে ওখান থেকে ঘুরে এসেছি। তখন বন্ধ ছিল। ঘুরে আসার পরই দোকানের মালিক বেচাকেনা শুরু করে। পরে ওখানে আবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে তাকে জরিমানা করা হয়।