'পৌরসভা ও উপজেলা পরিষদে অডিটর নিয়োগ করা হবে'



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

আর্থিক কাজের স্বচ্ছতা ও প্রশাসনিক কাজের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে এবার পৌরসভা ও উপজেলা পরিষদে অডিট ফার্ম থেকে অডিটর নিয়োগের চিন্তাভাবনা করছে সরকার। এই অর্থ বছর থেকেই সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়ন করার জন্য কাজ করছে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়।

পৌরসভা এবং উপজেলা পরিষদের কাজের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে এধরনের উদ্যোগের কথা বার্তা২৪.কম এর সঙ্গে একান্ত আলাপকালে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, আমরা এবার বাজেটে অর্থ বরাদ্দ রেখেছি। জেলা পরিষদ এবং পৌরসভাগুলো এবার থেকেই ব্যাপক হারে নিরীক্ষণের জন্য বাহ্যিক ‘এক্সটার্নাল অডিটর’ নিয়োগ করার জন্য ব্যবস্থা করছি। যাতে তাদের (পৌরসভা ও উপজেলা) কাজগুলোর আয়-ব্যয়ের স্বচ্ছতা প্রতিষ্ঠা হয়। নিয়মতান্ত্রিক ব্যবস্থার মধ্যে চলে আসে। অডিট শুধুমাত্র আর্থিক বিষয়ে নয়, প্রশাসনিক কোথায় কি দুর্বলতা আছে সেগুলো কি এগুলো চিহ্নিত হবে। যদি সে সমস্ত জায়গায় বেশি কোন দুর্বলতা থাকে সেগুলো চিহ্নিত করা হবে। সেগুলো করতে পারলে আমাদের মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কি কি সাহায্য করা দরকার সেগুলো আমরা করব।

যে সকল পৌরসভা, পৌরসভা হিসাবে বেঁচে থাকার অধিকার হারাবে সেগুলো ইউনিয়ন পরিষদে রূপান্তর করা হবে এটা আদৌতে করা হবে কি না জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, অসম্ভব বলতে কিছু নেই। কেউ যদি একান্ত ভাবেই পৌরসভা হিসেবে বেঁচে থাকার যোগ্যতা হারায় তাহলেতো সঙ্গত কারণেই রি-কনভার্সনের দাবি রাখে। আইনে আছে, যে সমস্ত বিধি-বিধান দিয়ে পৌরসভা গঠিত হয়েছে সেগুলো যদি তিনি পালনে অক্ষম হন তাহলে সে পৌরসভাকে রি-কনভার্শন করা যাবে।

মন্ত্রী বলেন, পৌরসভাগুলোর আয়-ব্যয় এবং তাদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, প্রশাসনিক ব্যবস্থা সব গুলোর মধ্যে স্বচ্ছতা আনার জন্য ইতোমধ্যে অনেকগুলো পদক্ষেপ আমি নিয়েছি এবং নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে। কোন পৌরসভার কতজন কর্মকর্তা-কর্মচারী আছে, কতজন আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে নেয়া হয়েছে, কেনো নেওয়া হয়েছে এবং তাদের কাজটা কি এ সমস্ত বিষয় গুলো দেখা হচ্ছে। তবে এই মুহূর্তে বেশিরভাগ পৌরসভা নিয়মিত কর্মচারীদের বেতন দিতে পারছে। হয়তো কারো কারো পুরনো বাকি আছে। কোথাও কোন পৌরসভায় প্রয়োজনীয় অতিরিক্ত জনবল থাকলে তারা তাদের রাখার যৌক্তিকতা না দেখাতে পারলে বাদ দিতে বলেছি এবং অনেকে করেছে।