রাঙামাটিতে যৌথ অভিযানে অস্ত্র-গুলিসহ আটক ৪



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট ,বার্তা২৪.কম, রাঙামাটি
রাঙামাটিতে যৌথ অভিযানে অস্ত্র-গুলিসহ আটক ৪

রাঙামাটিতে যৌথ অভিযানে অস্ত্র-গুলিসহ আটক ৪

  • Font increase
  • Font Decrease

রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতা হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিসহ সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস এর তিন সদস্যকে অস্ত্র ও মদসহ আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কাপ্তাই ও চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে এই তিন জনকে অস্ত্র, মদ ও চাঁদাবাজির রশিদসহ গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট থানা কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বিজয় তংচংঙ্গ্যা (৩২), সনাধন চাকমা (৩৭) ও শিশু বিকাশ চাকমা (৪৫)। একইদিনে ১৪টি গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত ও ৩ মামলায় ৬ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি বাদশাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী জানিয়েছেন, জেএসএস এর সক্রিয় সদস্য বিজয় তংচংঙ্গ্যা(৩২) চিৎমরম ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি ও ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি উসেপ্রু মারমা হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ১৮নং আসামি।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকালে রাইখালী জোন ও চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশের যৌথ অভিযানের মাধ্যমে ভালুকিয়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে একটি দেশিয় তৈরি এলজি ও চার রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় তার বিরুদ্ধে চন্দ্রঘোনা থানায় অস্ত্র মামলা দায়ের করা হয়েছে মামলা নম্বর-২ বলে নিশ্চিত করেছেন ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী।

২০২০ সালের পহেলা এপ্রিল দিবাগত রাত ১২টার সময় কাপ্তাই উপজেলাধীন চিৎমরম ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে নিজ বাড়িতে ঢুকে যুবলীগ নেতা উসেপ্রুকে ঘুম থেকে তুলে বাইরে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেছে জেএসএস এর সন্ত্রাসীরা। এই ঘটনায় ৫/০৪/২০২০ তারিখে চন্দ্রঘোনা থানায় দায়েরকৃত হত্যা মামলায় জেএসএস সদস্য বিজয় তংচংঙ্গ্যা এজাহারভুক্ত আসামি ছিলো।

অপরদিকে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাপ্তাইয়ের হরিণছড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস এর সশস্ত্র দুই সদস্যকে অস্ত্রসহ আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।

কাপ্তাইয়ের ৭ আরই ব্যাটালিয়ান কর্তৃপক্ষের নেতৃত্বে সনাধন চাকমা (৩৭) এবং শিশু বিকাশ চাকমা (৪৫) কে ২টি দেশিয় বন্দুক, ১ রাউন্ড এ্যামুনেশন, ২টি মোবাইল ফোন, ১টি ছুরি, ১টি চাঁদা সংগ্রহের রেজিস্টার এবং এলকোহলসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। সেনাবাহিনী কর্তৃক উক্ত সন্ত্রাসীদের আটক করা হয়েছে এবং মঙ্গলবার বিকেলে কাপ্তাই থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কাপ্তাই থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নাসির উদ্দিন।

অপরদিকে, রাঙামাটির কাপ্তাই থানা পুলিশ এর অভিযানে ১৪ টি গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত ৬ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি বাদশাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২ টায় চট্টগ্রাম মহানগর এর চান্দগাঁও থানা পুলিশের সহযোগিতায় কাপ্তাই থানার ওসি মো. নাসির উদ্দীন এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ পূর্ব মোহরার মসজিদ মার্কেট এলাকা হতে তাকে গ্রেফতার করে কাপ্তাই থানায় নিয়ে আসা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামি বন দস্যু হিসাবে পরিচিত। সে বনের কাঠ কেটে অবৈধভাবে পাচার করতো বলে কাপ্তাই থানার ওসি জানান। বাদশার বিরুদ্ধে কাপ্তাই থানায় বর্তমানে ৩টি বন মামলায় ৬ বছরের সাজার পরোয়ানাসহ ১০টি সিআর ও ১টি জিআর পরোয়ানাসহ সর্বমোট ১৪টি গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে। সে ২০১২ সাল হতে পলাতক ছিল।