রাজবাড়ীতে আসছেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী



সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবিঃ বার্তা২৪.কম

ছবিঃ বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কাজ শেষ হতে না হতেই পদ্মা নদীর ভাঙনে ৪৫২ কোটি টাকা প্রকল্পের কাজ ও নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শনে আগামী ৩ আগস্ট রাজবাড়ীতে আসছেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বেলা সাড়ে ৪টায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীমের রাজবাড়ী আসার বিষয়টি বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করেছেন রাজবাড়ী-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী।

তিনি বলেন, আজ (২৯ জুলাই) দুপুর ১টায় আমি এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য সালমা চৌধুরী রুমা উপমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেছি। সে সময় উপমন্ত্রীকে রাজবাড়ীর নদী ভাঙন পরিস্থিতি ও সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে অবহিত করলে তিনি আগামী ৩ আগস্ট রাজবাড়ীর নদী ভাঙন পরিস্থিতি পরিদর্শনে আসবেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, রাজবাড়ীতে নদী ভাঙন রোধে ২০১৮ সালের জুন মাসে পদ্মা নদীর শহর রক্ষা বাঁধের ডান তীর প্রতিরক্ষার কাজ (দ্বিতীয় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় রাজবাড়ী সদর উপজেলার বরাটে তিন ও মিজানপুরে দেড় কিলোমিটারসহ সাড়ে চার কিলোমিটার এবং ২০১৯ এর জুলাইয়ে শুরু হওয়া (প্রথম সংশোধিত) শহর রক্ষা বাঁধের গোদার বাজার অংশের আড়াই কিলোমিটারসহ মোট সাত কিলোমিটার এলাকায় ৪৫২ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পের কাজ শুরু হয়।

এ কে এম এনামুল হক শামীম

এতে দ্বিতীয় পর্যায়ের সাড়ে চার কিলোমিটারে ৩৭৬ কোটি ও প্রথম সংশোধিত ১৫২৭ মিটারে ৭৬ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়। প্রকল্পের জন্য ৮.৩ কিলোমিটার অংশে ৪৯ লক্ষ ঘনমিটার ড্রেজিং করা হয়েছে।

কিন্তু কাজ শেষ হতে না হতেই গত ২৭ জুলাই সন্ধ্যায় রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গোদারবাজার এলাকার এনজিএল ইট ভাটার কাছে প্রায় ১৮০-২০০ মিটার বাঁধের ধ্বস হয়।

এর আগে ১৬ জুলাই গোদার বাজার চরসিলিমপুর এলাকার নদীর তীর এলাকার প্রকল্পের স্থানের কাজ শেষের দুই মাস না যেতেই প্রায় ২০মিটার অংশের ব্লক ধসে যায়। পরে ব্লক ও জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙনরোধ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড।