জিয়াউর রহমান সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য অসার বাচলতা: রিজভী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক প্রসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সম্পর্কে গতকাল দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, “আজকে চারিদিকে কোনো ন্যায়-অন্যায় নেই। কোনো সত্য নেই। এদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, তাকে প্রতিনিয়ত অপমান করা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত তাকে নানাভাবে কটুক্তি করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে তিনি কোনো মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন কিনা তার কোনো প্রমাণ নেই। কে বলছেন? স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। এটি কি তিনি বলতে পারেন? দেশের বরেণ্য একজন মুক্তিযোদ্ধা সেক্টর কমান্ডার স্বাধীনতার ঘোষক তাকে নিয়ে প্রতিনিয়ত এই ধরনের কথা বলা হচ্ছে। এটি অসার বাচলতা।”

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সকালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মাজারে পুষ্পার্ঘ অর্পণ শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, “আজকে যারা সত্যিকার অর্থে মুক্তিযুদ্ধে অংগ্রহণ করেনি। পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে অবস্থান করেছেন, ঢাকায় অবস্থান করেছেন অথচ তারাই আজকে বরেণ্য মুক্তিযোদ্ধা (জিয়াউর রহমান) সম্পর্কে এই ধরনের কথা বলছেন। আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।”

রুহুল কবির রিজভী বলেন, “অন্ধকারের মধ্যে আমাদেরকে জাগিয়ে তোলে কাজী নজরুল ইসলামের লেখনি। কাজী নজরুল ইসলাম গোটা জাতিকে সমস্ত শিকল ভেঙ্গে সামনে এগিয়ে যাওয়ার যে তাগিদ দেয় সেটি অপরিসীম। তার কবিতা থেকেই বলতে চাই আজ সৃষ্টি সুখের উল্লাসে, আমরা নতুন করে সৃষ্টি করবো গণতন্ত্র। আজকে অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করবো। আমরা ব্যক্তি স্বাধীনতা ও নাগরিক স্বাধীনতাকে নিশ্চিত করে আবার সৃষ্টি সুখের উল্লাসে অরাজকতা অমানিশা দূরীভূত করে সূর্যের আলো নিয়ে এসে বাংলাদেশকে ভরে তুলবো।”

সাবেক এই ছাত্রনেতা বলেন, “আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী। আমাদের জাতীয় জীবনে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের অবদান অসীম, আমরা যখন মিছিল করি তখন প্রেরণা দেয় কাজী নজরুল ইসলাম। আমরা যখন অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করি তখনও আমাদের প্রেরণা দেন তিনি। আমরা তার কবিতা তার গান, তার লেখনি সমস্ত কিছু আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করে। আমরা যখন শান্তির কথা বলি একে অপরের সাথে মমত্বের কথা বলি তখনও কাজী নজরুল ইসলাম অনবদ্য মহিমায় প্রেরণা যোগায়। তাই জাতীয় কবির এই মৃত্যুবার্ষিকীতে আমি তার আত্নার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।”

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ড. ওবায়দুল ইসলাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য আকরামুল হাসান মিন্টু, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।