ভারতের উপহারের ১০৯ অ্যাম্বুলেন্স এখন দেশে!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বেনাপোল (যশোর)
ভারতের উপহারের অ্যাম্বুলেন্স

ভারতের উপহারের অ্যাম্বুলেন্স

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারত সরকারের উপহারের অবশিষ্ট ৯টি অ্যাম্বুলেন্স আজ বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে। এনিয়ে পঞ্চম চালানের মাধ্যমে উপহারের ১০৯টি অ্যাম্বুলেন্সের সবগুলো এখন বাংলাদেশের মাটিতে।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দর হয়ে অ্যাম্বুলেন্স ৯টি বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।

এর আগে গত ১২ সেপ্টেম্বর ৪র্থ চালানে ২৯টি, ২৬ আগস্ট তৃতীয় চালানে ৪০টি, ৭ আগস্ট দ্বিতীয় চালানে ৩০টি ও ২১ মার্চ প্রথম চালানে ১টি অ্যাম্বুলেন্স আসে দেশে।

অ্যাম্বুলেন্স আমদানি কারকের প্রতিনিধি মেহেদী হাসান জানান, অ্যাম্বুলেন্সের আমদানিকারক ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার। বন্দর থেকে ছাড় করাতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ করছেন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট জেড আর করপোরেশন। বুধবার দুপুরে বেনাপোল বন্দর থেকে উপহারের অ্যাম্বুলেন্সগুলো ঢাকার উদ্দেশ্যে নেওয়া হবে। পরে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাস কর্মকর্তারা সরকারের প্রতিনিধিদের হাতে উপহার তুলে দিবেন।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্যের পাশাপাশি রয়েছে বন্ধুত্ব ও সৌহার্দ্যের সম্পর্ক। এরই সূত্র ধরে বিভিন্ন দুর্যোগকালীন সময়ে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে ভারত। বন্ধুত্বের জানান দিতে বাংলাদেশও ক্ষুদ্র রাষ্ট্র হিসেবে ভারতের পাশে থাকেছে সাধ্যমত। ভারতের রফতানি বাণিজ্যের সবচেয়ে বড় কেন্দ্র বাংলাদেশ। ভ্রমণ আর চিকিৎসা সেবায় প্রতি বছর বাংলাদেশ থেকেও লাখ লাখ মানুষ যায় ভারতে। ভারতে কোন দুর্যোগ হলে তার প্রভাব পড়ে বাংলাদেশে তেমনি বাংলাদেশে কোন অশান্তি হলে তার ছোয়া লাগে ভারতেও।

চলামান করোনায় যেমন বাণিজ্য খাতে ক্ষতি হয়েছে তেমনি ভ্রমণ খাতে ধস নামে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি চলতি বছরের ২৬ ও ২৭ মার্চ দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশ আসেন। এসময় স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়ন আর চলমান করোনা পরিস্থিতি যৌথ মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ১০৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স উপহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

বেনাপোল বন্দরের সহকারী পরিচালক আতিকুল ইসলাম বলেন, বন্দরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে উপহারের অ্যাম্বুলেন্স রাখা হয়েছে। বন্দর ও কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে অ্যাম্বুলেন্স ঢাকা নেওয়া হবে বলে জানতে পেরেছি। ৫ম চালানের মাধ্যমে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার সবকটি অ্যাম্বুলেন্স বাংলাদেশে প্রবেশ করলো।