বৃদ্ধকে নিয়ে বিপাকে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতাল



খন্দকার সুজন হোসেন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মানিকগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

১৫ সেপ্টেম্বর রাতে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় সেলফি পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয় আনুমানিক ৬০ বছর বয়সের এক বৃদ্ধ। এরপর স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

দুর্ঘটনার পরপরই সেলফি পরিবহনের ওই বাসটিকে আটক করে গোলড়া হাইওয়ে থানা পুলিশ। তবে ভর্তির পর তিনদিন পার হতে চললেও আহত ওই ব্যক্তির কোন স্বজনের খোঁজ পায়নি হাইওয়ে থানা পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এতে করে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তির চিকিৎসাসেবা নিয়ে বিপাকে পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মাথায় গুরুতর আহতবস্থায় ওই বৃদ্ধের জরুরি ভিত্তিতে সিটিস্ক্যানসহ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা দ্রুত সময়ের মধ্যে করা প্রয়োজন বলে জানান দায়িত্বরত চিকিৎসক।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের পুরাতন ভবনের দ্বিতীয় তলার ফ্লোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পাওয়া যায় ওই বৃদ্ধকে। তবে ওই আহত ব্যক্তির চিকিৎসাসেবা ও ভর্তির বিষয়ে অজ্ঞাত জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও জেলা সমাজকল্যাণ সংগঠক (চিকিৎসা) নিয়াজ মোর্শেদ।

দুর্ঘটনা বিষয়ে জানতে চাইলে সেলফি পরিবহনের যাত্রী গোলাম মোস্তফা বলেন, বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সেলফি পরিবহনের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন ওই বৃদ্ধ ব্যক্তি। এরপর তাকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আর দুর্ঘটনার পরপরই ওই বাসের চালক এবং সহযোগীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। যে কারণে ওই ব্যক্তিকে তিনি হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর ওই রোগী সম্পর্কে তার আর জানা নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

গোলড়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আলমগীর হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ওই বাসটি আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। আর আহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় শনাক্ত করণের জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি চলমান রয়েছে। এছাড়া আহত ব্যক্তির চিকিৎসার জন্যও বাস মালিককে বলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. আশরাফুল কবির বলেন, বাসের ধাক্কায় আহত ওই ব্যক্তির অবস্থা গুরুতর। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার নিউরোসাইন্স হাসপাতালে পাঠানো উচিত। জরুরি ভিত্তিতে সিটিস্ক্যানসহ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানো প্রয়োজন।

তাকে দেখাশুনার জন্যও হাসপাতালে কোন লোক নেই। বিষয়টি খুব কষ্টকর। তবে হাসপাতালের পক্ষ থেকে যতটুকু সম্ভব তাকে সেবা দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

অজ্ঞাত ব্যক্তির চিকিৎসার বিষয়ে জানতে সমাজকল্যাণ সংগঠক (চিকিৎসা) নিয়াজ মোর্শেদের সঙ্গে আলাপ করতে তার অফিসে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি ছুটিতে ঢাকায় রয়েছে বলে মন্তব্য করেন ওই অফিসের অফিস সহায়ক।

মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশ্বাদ উল্লাহ বলেন, আহত ওই বৃদ্ধ ব্যক্তির ভর্তি বিষয়ে অজ্ঞাত তিনি। তবে ওই ব্যক্তির সিটিস্ক্যানসহ অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।