৪০ দিন জামাতে নামাজ পড়ে বাইসাইকেল পেল ৯ কিশোর



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সাভার (ঢাকা)
৪০ দিন জামাতে নামাজ পড়ে বাইসাইকেল পেল ৯ কিশোর

৪০ দিন জামাতে নামাজ পড়ে বাইসাইকেল পেল ৯ কিশোর

  • Font increase
  • Font Decrease

সাভারের আশুলিয়ায় টানা ৪০ দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতে আদায় করে বাইসাইকেল উপহার পেয়েছে ৯ কিশোর।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জুমার নামাজের পর তাদের পুরস্কৃত করে ঘোষবাগ মাদবর বাড়ি জামে মসজিদ কর্তৃপক্ষ। নিয়মিত নামাজ আদায়ের পুরস্কার হিসেবে কিশোরদের প্রত্যেককে একটি করে দুরন্ত বাইসাইকেল উপহার দেওয়া হয়। প্রতিটি সাইকেলের দাম পড়েছে ৮ হাজার ৮০০ টাকা।

জানা গেছে, ৪০ দিন আগে মসজিদ কিমিটির সভাপতি মো. মুজিবুর রহমান শাহেদ ও মসজিদের ইমাম ফরিদুজ্জামান মিলে একদিন এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করেন। যেখানে অংশগ্রহণ করে মোট ৮০ জন কিশোর। এর মধ্যে প্রথম স্থান অধিকারী ৯ জন কিশোর ৯টি বাইসাইকেল ও দ্বিতীয় স্থান অধিকারী ১৭ জনসহ বাকিদের নানা উপহার প্রদান করা হয়।

এ বিষয়ে মাদবর বাড়ি জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা মুজিবুর রহমান শাহেদ বলেন, হাঠাৎ একদিন ইমামের পরামর্শে আমরা একটি উদ্যোগ নেই। যেখানে কিশোর বয়সী ছেলে পেলেদের নামাজ পড়তে আগ্রহী করার জন্য উপহার প্রদান করা হবে। পরে ইমাম সাহেব ও মোয়াজ্জেম খলিলুরের তত্ত্বাবধানে আমার এলাকার প্রায় ৮০ জন কিশোর এই ব্যবস্থায় অংশগ্রহণ করে৷

তিনি বলেন, আমরা প্রথমে চিন্তা করেছিলাম একজনের টিকবে কিনা সন্দেহ। কিন্তু না সেই সন্দেহকে উড়িয়ে দিয়ে ৯ জন কিশোর সব সময় পাঁচ ওয়াক্ত জামাতের সাথে নামাজ আদায় করেছে। আমরা প্রথমে চেয়ছিলাম প্রথমে একজনকে লটারির মাধ্যমে সাইকেল পুরস্কার দেবো। কিন্তু পরে চিন্তা করলাম এভাবে দিলে কিশোর ছেলেদের মন ভেঙে যাবে। তাই নয়জনকেই নয়টি সাইকেল ও বাকিদের টুপি-জায়নামাজ দেওয়া হয়। এছাড়া স্থানীয় হুমায়ুন কবির ভাইয়ের উদ্যোগে তাদের একবেলা করে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আমরা ভেবেছি এই বয়সের মধ্যে যে কিশোররা রয়েছে যদি নামাজের মাধ্যমে ব্যস্ততা ও ইসলামের দিকে আনা যায় তাহলে তারা কোনো পাপ কাজ ও অন্যায় করতে পারবে না। আমি চিন্তা করেছি এই ৮০ জনকে যদি ৪০ দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়াতে পারি তাহলে তাদের নামাজ পড়ার আগ্রহ আরও বেড়ে যাবে। আর আশেপাশের মানুষের ভেতর নামাজের আগ্রহ বাড়বে।

এছাড়া এলাকায় অন্যায় অপরাধ কমে যাবে। আমি আরও ঘোষণা দিয়েছি আগামীতে মধ্য বয়সী ব্যক্তিদের জন্য এমন একটি উদ্যোগ নেওয়া হবে।