মধ্যরাত থেকে ইলিশ ধরা শুরু



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ইলিশ ধরায় ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা আজ সোমবার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে। রাত ১২টার পর থেকে নির্বিঘ্নে আবার ইলিশ শিকার করতে পারবেন জেলেরা। ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম রক্ষায় ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা দেয় সরকার।

ইলিশ গবেষকেরা বলছেন, ইলিশ মূলত সারা বছরই ডিম ছাড়ে। তবে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর এই দুই মাসের চারটি অমাবস্যা-পূর্ণিমায় ডিম ছাড়ে বেশি। বিশেষ করে অক্টোবরের মানে আশ্বিনের দুটি অমাবস্যা-পূর্ণিমাকে কেন্দ্র করে প্রতিবছর ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। এই সময় ইলিশ ধরা থেকে বিরত থাকার প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে মা ইলিশ রক্ষা করা, যাতে তারা নিরাপদে নদীতে এসে ডিম ছাড়তে পারে। এই ডিম রক্ষা করতে পারলে তা থেকে জাটকার জন্ম হবে। সেই জাটকা রক্ষা করা গেলে দেশে বড় আকারের ইলিশের উৎপাদন বাড়বে। এই ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর আবার জাটকা ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে। দুই ধাপের এই নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশে ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে, ওজন-আকারও বেড়েছে ইলিশের।

মৎস্য বিভাগ জানিয়েছে, এ বছর মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানের অংশ হিসেবে ৪ অক্টোবর থেকে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত ১ হাজার ৮৯২টি মোবাইল কোর্ট ও ১৫ হাজার ৩৮৮টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এবং ৮৮৪ লাখ মিটার অবৈধ জাল আটক করা হয়। বাংলাদেশে ২০০৩-০৪ সাল থেকেই জাটকা রক্ষার কর্মসূচি শুরু করা হয়। তখন থেকেই ধীরে ধীরে ইলিশের উৎপাদন বাড়ছিলো। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের তথ্যানুযায়ী দেশের মোট মাছ উৎপাদনের প্রায় ১২ শতাংশ আসে ইলিশ থেকে।

মৎস্য অধিদফতরের হিসাব অনুযায়ী গত এক দশকে বাংলাদেশে ইলিশের উৎপাদন প্রায় তিনগুণ বেড়েছে। মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ইলিশ গবেষক ড. আনিসুর রহমান সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ইলিশ সংরক্ষণের উদ্দেশে গত কয়েক বছর নেওয়া পদক্ষেপগুলো আগামীতেও কার্যকরভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে এবং দামও কম থাকবে।

মোংলায় সংখ্যালঘুর চিংড়ির গৈঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট , বার্সাতা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

মোংলায় এক সংখ্যালঘুর চিংড়ি ঘেরের মাছ লুট ও ওই ঘেরের গৈঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের চৌরিডাঙ্গা গ্রামের সাতপুকুর এলাকায় রবিবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এলাকার মান্নান শেখের ছেলে হুমায়ূন কবির (৪০) ও মৃত সৈয়দ আহম্মদ মীরের ছেলে রেজাউল ইসলাম মীর (৪৫) সহ অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী রনজিৎ মিস্ত্রি। 

মোংলা থানায় দায়েরকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, গত শনিবার রনজিৎ মিস্ত্রির চিংড়ি ঘের থেকে হুমায়ূন কবির ও রেজাউল মীরসহ আরও কয়েকজন দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এক লাখ ৭০ হাজার টাকার মাছ লুটে নেয়। এ ঘটনায় রনজিৎ বাঁধা দিলে তাকে হুমকি-ধামকি দিয়ে বীরদর্পে ওই এলাকা ত্যাগ করেন তারা। এ ঘটনা এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে পরদিন রবিবার (২২ জানুয়ারি) গভীর রাতে অভিযুক্ত হুমায়ুন ও রেজাউল ওই ঘেরের গৈঘরে আগুন দেয়। 

এদিকে এ ঘটনায় অভিযুক্ত হুমায়ুন ও রেজাউলের বক্তব্য জানতে তাদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল মন্ডল বলেন, ভুক্তভোগীদের কাছে ঘটনার বর্ণনা শুনেছি, এ ঘটনায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ ও সুষ্ঠু বিচারের দাবী করছি। 

মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত চলছে। 

 

;

বাসের ধাক্কায় পল্লী চিকিৎসক নিহত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা ২৪.কম,বগুড়া
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ার নন্দীগ্রামে বাসের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী রাসেল আহম্মেদ (৩০) নামে একজন পল্লী চিকিৎসক নিহত হয়েছেন।

সোমবার (২৪ জানুয়ারী) সকাল সাড়ে১০ টার দিকে বগুড়া - নাটোর মহাসড়কে নন্দীগ্রাম উপজেলার শেষ সীমানা বাঁশের ব্রীজ নামক স্থানে দুর্ঘটনাটি ঘটে।
নিহত রাসেল আহম্মেদ নন্দীগ্রাম উপজেলার দাঁত মালিকা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

জানাগেছে, রাসেল আহম্মেদ মটরসাইকেল যোগে সিংড়া থেকে নন্দীগ্রাম যাচ্ছিলেন। বাঁশের ব্রীজ নামক স্থানে নাটোরগামী অজ্ঞাত একটি বাস তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। বাসের ধাক্কায় রাসেল আহম্মেদ মহাসড়কে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। পুলিশ দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার আগেই নিহতের পরিবারের লোকজন মরদেহ বাড়িতে নিয়ে যায়।

নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল করিম কামাল বলেন, মটর সাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত রাসেল আহম্মেদের মরদেহ বাড়িতে নিয়ে আসা হয়েছে।

;

যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে, আহত ২৫



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম,টাঙ্গাইল
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা-ভূঞাপুর রোডের যদুরপাড়া এলাকায় যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ২৫ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার এলেঙ্গা-ভূঞাপুর রোডের যদুরপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি ভূঞাপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা আবুল কালাম দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ভূঞাপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা আবুল কালাম জানান, বুড়িমারি থেকে হানিফ পরিবহনের একটি বাস ঢাকার দিকে যাচ্ছিলো।বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে পড়ে যায়। বাসে থাকা ২৫ জন যাত্রী আটকা পড়েন। পরে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা খবর পেয়ে তাদের উদ্ধার করে।১৭ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বাকি ৮ জনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

;

ট্রাকের ধাক্কায় ভ্যানচালক নিহত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম,ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর রমনার অফিসার্স কোয়ার্টারের রাস্তায় ডিম বোঝাই ভ্যানে ট্রাকচাপায় ভ্যান চালক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও এক ভ্যানচালক।

নিহত ব্যক্তির নাম, নুর আলম (৪০)। অপরজন মো. তুহিন (৩৬) গুরুতর আহত হন।

সোমবার(২৪ জানুয়ারি) ভোরের দিকে ঘটনাটি ঘটে।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। আহত একজন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

;