৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করা শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল প্রশাসন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল প্রশাসন

শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল প্রশাসন

  • Font increase
  • Font Decrease

একটি ভ্যান কেনার জন্য ৩০ হাজার টাকায় ২২ দিন বয়সের ছেলেকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন রংপুরের পীরগাছা উপজেলার পারুল ইউনিয়নের মধ্যপাড়া গ্রামের হোসেন আলী। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসলে জেলা প্রশাসনের সহায়তায় শিশুটিকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের দেওয়া ৩০ হাজার টাকাসহ শিশুটিকে মায়ের কোলে তুলে দেন পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন। এ সময় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শুকনা খাবার ও শিশু খাদ্য দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী ও পরিবার জানায়, হোসেন আলী ঢাকায় রিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। করোনার কারণে উপার্জন কমে যাওয়ায় গ্রামে ফিরে আসেন। পরে অন্যের ব্যাটারিচালিত অটোভ্যান ভাড়ায় চালিয়ে সংসার চালাতেন। এতে আয়ের বেশির ভাগ টাকা অটোভ্যানের মালিককে দিতেই শেষ হয়ে যেত। তাই নিজে একটি ভ্যান কেনার স্বপ্ন দেখেন। এরই মধ্যে তার একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। পরে সেই সন্তানকে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের নিঃসন্তান এক দম্পতির কাছে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। বিষয়টি এলাকায় প্রকাশ হলে শতশত উৎসুক জনতা তার বাড়িতে ভিড় করতে থাকেন।

খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ওসি আজিজুল ইসলাম হোসেন আলীর বাড়িতে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসককে অবগত করেন। পরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের দেওয়া ৩০ হাজার টাকাসহ শিশুটিকে মায়ের কোলে তুলে দেন পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন।

শিশুটির বাবা হোসেন আলী বলেন, একটা ভ্যান বানার জন্য ছাওয়া টাক ৩০ হাজার টাকায় বেচে দিছনু। সেই টাকা দিয়ে ভ্যান বানবা দেছম। এখন ইউএনও স্যার ৩০ হাজার টাকা দিয়ে হামার কাছে বাচ্চা ফিরি দেইল।

শিশুটির মা কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, মা কম কষ্টে বুকের ধন অন্য কাউরে দেয় না। অভাবে মানুষকে ছইল দিছলাম। এখন একটা নিজের নতুন ভ্যানের সাথে বুকের ধনও ফিরে পাইলাম।

পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম বলেন, হোসেন আলী ও সেলিম মিয়াকে ডেকে আলোচনার মাধ্যমে শিশুটিকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন বলেন, হোসেন আলী একটি ভ্যান কেনার জন্য ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে শিশুটিকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন। তাই ওই টাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফিরিয়ে দিয়ে শিশুটিকে মায়ের কোলে তুলে দেওয়া হয়েছে।