বগুড়ায় থানা ঘেরাও, নৌকার কর্মীদেরকে লাঠি পেটা!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ায় গভীর রাতে থানা ঘেরাও করতে গিয়ে পুলিশের লাঠি পেটা খেয়ে পিছু হটেছে নৌকা মার্কার চেয়ারম্যানের কর্মী সমর্থকরা। এসময় পুলিশ ১০টি মটর সাইকেলসহ ৩ জনকে আটক করে।

সোমবার (০৮ নভেম্বর) রাতে পৌনে ১২টার দিকে বগুড়া সদর থানার সামনে এঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, আগামী ২৮ নভেম্বর বগুড়া সদর থানার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়ন পর্যায় ভোটের প্রচার প্রচারণা চলছে কয়েকদিন আগে থেকেই।

সোমবার রাতে নুনগোলা ইউনিয়নে নির্বাচনি প্রচার প্রচারণা চলছিল। রাত ৯টার দিকে টহল পুলিশ দেখে তিন যুবক দৌঁড় দেয়। এসময় পুলিশ মেহেদী (১৯)নামের এক যুবককে আটক করে। তার দেহ তল্লাশী করে বাইসাকেলের চেইনের কাটা অংশ পাওয়া যায়। পুলিশ তাকে থানায় আনার চেষ্টা করলে নৌকা মার্কার প্রার্থী আলিমুদ্দিনের লোকজন বাঁধা দেয়। পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে মেহেদীকে থানায় নিয়ে আসে। রাত পৌনে ১২টার দিকে নুনগোলা ইউনিয়নের বর্তমান চেযারম্যান ও এবারের নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থী আলিমুদ্দিনের নেতৃত্বে ৫০-৬০ জন কর্মী সমর্থক মটরসাইকেল যোগে বগুড়া সদর থানার সামনে আসে।

তারা থানার প্রধান ফটকের সামনে মটরসাইকেল আড়াআড়ি করে রেখে পুলিশের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে। এক পর্যায় তারা থানা ঘেরাও করা হবে বলে স্লোগান দিয়ে থানার প্রধান ফটকে ধাক্কাধাক্কি শুরু করে। পুলিশ প্রথমে তাদের চলে যাওয়ার আহ্বান জানায়। কিন্তু কর্মী সমর্থকরা বার বার পুলিশের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে। একপর্যায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ লাঠি চার্জ শুরু করলে নৌকার কর্মী সমর্থকরা পিছু হটে যায়। এসময় পুলিশ তাদের ১০ টি মটর সাইকেল জব্দ করে এবং ৩ জনকে আটক করে।

বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সেলিম রেজা বলেন, আটককৃতদের ব্যাপারে এখন ও কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।