ফরিদপুরের হার না মানা সৈয়দ আলী ভূঁইয়া



ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দরিদ্র পিতা মাতার সংসারে অভাব অনটন থাকায় লেখাপড়া তেমন করতে পারেনি সৈয়দ আলী ভূঁইয়া। মাত্র ১৫ বছর বয়সেই সংসারের হাল ধরতে, গ্রামে ঘুরে ঘুরে চুড়ি ফিতা বিক্রি শুরু করেন। এক পর্যায়ে রংপুর জেলায় চলে যান।

তিনি ১৯৭৯ সালে সেখানে আব্দুল মজিদ মিয়া নামে এক কলেজ শিক্ষকের কাছ থেকে কান পরিষ্কারের বিদ্যা শিক্ষা গ্রহন করেন। সেখানে ৩ বছর প্রশিক্ষণ নিয়ে, নিজেই শুরু করেন কান পরিষ্কার করার কাজ। সেই থেকে এ পেশা চালিয়ে যাচ্ছেন সৈয়দ আলী। প্রায় ২০ বছর ধরে নিজ এলাকায় এসে মানুষের কান পরিষ্কারের কাজ করছেন।

সৈয়দ আলী ভূঁইয়া ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা উপজেলার কোদালিয়া শহীদনগর ইউনিয়নের মাঠবালিয়া গ্রামের মৃত বারেক ভূঁইয়ার ছেলে। প্রায় ৪০ বছর ধরে মানুষের কান পরিষ্কারের কাজ করছেন তিনি। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এলাকার বিভিন্ন হাট-বাজারে, অফিস-আদালতে ঘুরে, মানুষের কান পরিষ্কার করে যা আয় করেন সেই টাকায় তার সংসার চলে। এটি তার একমাত্র পেশা ।

ছবি: বার্তা২৪.কম

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার সদর বাজারে সৈয়দ আলী ভূঁইয়ার সাথে সরেজমিনে দেখা ও কথা হলে তিনি জানান, মানুষের কান পরিষ্কার করে, প্রতিদিন তিন থেকে চার শত টাকা আয় করেন। নিজের জমিতে আছে মাত্র আড়াই শতাংশ বাড়ি। সেখানে ছোট একটি দোচালা ঘর রয়েছে।

তার চার মেয়ের বিয়ে হয়েছে এবং দুই ছেলে বিয়ে করে তাদের নতুন সংসার শুরু করেছেন। কিন্তু বাড়িতে শুধুমাত্র একটি দোচালা ঘর থাকায়, সেই ঘরেই সবাই মিলে বসবাস করতে হচ্ছে। তার ছোট ছেলে বিপ্লব ভূঁইয়া স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে লেখা পড়া করছে।

সৈয়দ আলী দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে আরো জানান , প্রায় ১০ বছর ধরে আমি হার্টের রোগে ভূগছি। মানুষের কান পরিষ্কার করে, যা আয় হয় তা দিয়ে ঠিক মতো সংসারই চালাতে পারিনা। তাই বাধ্য হয়ে ধার দেনা করে নিজের ওষুধ কিনতে হচ্ছে। আমাকে প্রতিদিন ৫০-৬০ টাকার ওষুধ খেতে হয়। আমি খুবই কষ্টে সংসার চালাচ্ছি কিন্তু সরকারি ঘর এবং কোনো আর্থিক সহায়তা আমি পাচ্ছিনা। তারপরে ও আমি সততার সাথে এই পেশা চালিয়ে যাচ্ছি। আমি আপনার মাধ্যমে সকলের দোয়া প্রার্থী ।

বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে বাসাইলে বিজ্ঞানমেলা অনুষ্ঠিত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে টাঙ্গাইলের বাসাইলে ৪৩তম জাতীয় বিজ্ঞান মেলা ও প্রযুক্তি সপ্তাহ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১৩ জানুয়ারি থেকে সকল ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সমাবেশ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে ২১জানুয়ারি থেকে ৬ফেব্রুয়ারি স্কুল কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হলেও শনিবার (২২ জানুয়ারি) উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বাসাইল ডিগ্রি কলেজ মাঠে  এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। মেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞান উপকরণ নিয়ে উপস্থিত হয়। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা পারভীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা জোয়াহেরুল ইসলাম ভিপি জোয়াহের।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী অলিদ ইসলাম, উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি নাহিয়ান নূরেন, পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা রহিম আহমেদসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা পারভীন বলেন,বিজ্ঞান মেলা কোনো ক্লাস না, একদিনের জন্য সীমিত পরিসরে ছোট একটি অনুষ্ঠান। সরকারি অনুষ্ঠান বন্ধ এটা তো কোথাও বলা নাই।পরিপত্রে লিখা আছে ১০০ জন মাস্ক পড়ে অনুষ্ঠানে আসতে পারবে।এই অনুষ্ঠানের সাথে স্কুল কলেজে বন্ধ থাকার কোনো মিল নাই।এই অনুষ্ঠানটি স্বাস্থ্যবিধি মেনেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

;

মহানায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সেমিনার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম,টাঙ্গাইল
ছবি: মহানায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সেমিনার

ছবি: মহানায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সেমিনার

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে অনলাইন সেমিনার করেছে সরকারি সা'দত কলেজ করটিয়ার ইতিহাস বিভাগ।

শনিবার(২২ জানুয়ারি) বেলা ১১ টা থেকে ঘন্টা ব্যাপী অনলাইন প্লাটফর্ম জুমের মাধ্যমে ইতিহাস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড.তাহমিনা খানের সভাপতিত্বে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ইতিহাস বিভাগ আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ইতিহাস বিভাগের সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাকালে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাঙালির বিজয় পূর্ণতা পেয়েছিল বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরকারি সা'দত কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর মৃদুল চন্দ্র পোদ্দার শুরুতেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি তার বক্তব্যে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকালে জাতির পিতার যুক্তরাজ্য ও ভারত সফরের মাধ্যমে সূচিত বাংলাদেশের কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক বিজয়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। বাংলাদেশের স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সকল প্রকার শোষণ-নিপীড়ন-বঞ্চনার ইতি টেনে বাঙ্গালী জাতির আর্থ সামাজিক মুক্তির লক্ষ্যে এই মহানায়কের সূচিত অগ্রযাত্রার এক ঐতিহাসিক আলেখ্য তিনি উপস্থিত সকলের সামনে তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সরকারি সা'দত কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মো. মোশারফ হোসেন প্রাবন্ধিক উপস্থাপন করেন ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক মো.হান্নান মিয়া,মূখ্য আলোচক ছিলেন ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সানজিদা আক্তার কেয়া ।
অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক দিলরুবা নার্গিস ।

;

প্রশ্নপত্র জালিয়াতি চক্রের ১০ সদস্য গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারি নিয়ােগ পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ও প্রশ্নের উত্তর সরবরাহকারী চক্রের ১০ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগ।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) রাতে রাজধানীর মিরপুর, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল ও কাকরাইল এলাকা হতে তাদের গ্রেফতার করা হয় ।

এসময় তাদের কাছ থেকে ৬টি ইয়ার ডিভাইস, মাস্টার কার্ড, মােবাইল সিম, ব্যাংকের চেক ৫ টি, নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্প ৭টি, স্মার্ট ফোন ১০টি, বাটন মােবাইল ৬টি, প্রবেশপত্র ১৮টি ও চলমান পরীক্ষার ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র ৩ সেট জব্দ করা হয়।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রধান) এ কে এম হাফিজ আক্তার এ তথ্য জানান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নােমান সিদ্দিকী, মাহমুদুল হাসান আজাদ, আল আমিন রনি, নাহিদ হাসান, শহীদ উল্লাহ, তানজির আহমেদ, মাহবুবা নাসরীন রুপা, রাজু আহমেদ, হাসিবুল হাসান ও রাকিবুল হাসান।

হাফিজ আক্তার বলেন, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে মাহমুদুল হাসান আজাদ সিজিএ অফিসের সরকারী কর্মকর্তা এবং মাহবুবা নাসরীন রুপা বগুড়ার ধুপচাঁচিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান।

গােয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশ কাকরাইলে অবস্থিত নিউ শাহিন হােটেল থেকে অসাধু উপায়ে অবলম্বনকারী দু'জন পরীক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেন।
তাদের দেওয়া তথ্যমতে কাফরুল থানার সেনপাড়া এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ডিভাইস, প্রশ্নপত্র এবং উত্তর পত্রের খসড়াসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

ডিবি পুলিশের অপর দল বিজি প্রেস উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে পরীক্ষার্থী এবং পরিকল্পনাকারী মাহবুবা নাসরীন রুপাকে টাকা, ডিজিটাল ডিভাইসসহ গ্রেফতার করেন। পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্যমতে অপর আসামিদেরকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান তিনি।

ডিবির এই কর্মকর্তা বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে মাহমুদুল হাসান আজাদ, নাহিদ হাসান, আল আমিন সিদ্দিকী ইতিপূর্বেও প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্তে ২০১৩, ২০১৬ এবং ২০১৯ সালে গ্রেফতার হয়েছিল।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) দুপুর ৩টা থেকে বিকেল ৪টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত প্রতিরক্ষা মহাহিসাব নিরীক্ষকের কার্যালয়ের অধীন ডিফেন্স ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্টের ৫৫০টি অডিটর পদে নিয়ােগের জন্য ৭০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন অঞ্চলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হলগুলােতে অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর ডিবি পুলিশের নিকট তথ্য ছিল পূর্বে বিভিন্ন সময় গ্রেফতার হওয়া কতিপয় ব্যক্তি ইলেকট্রনিক ডিভাইস, মােবাইল অ্যাপস এবং ব্যক্তি পরিবর্তন করে পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস, উত্তর/সমাধান সরবরাহসহ অসদুপায় অবলম্বন করতে পারে। ওই গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

;

যাত্রাবাড়ীতে গাজাসহ দুই মাদক চোরাকারবারি গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ১৪ কেজি গাজাসহ ২ মাদক চোরাকারবারিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো. সোহাগ (২২) ও মো. জাহাঙ্গীর (২৮)। এসময় তাদের নিকট থেকে ২টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। 

শনিবার (২২ জানুয়ারি) র‍্যাব-১০ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি এনায়েত কবির শোয়েব এ তথ্য জানান। 

তিনি জানান, শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) রাতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানার ধলপুর এলাকায় অভিযান করে আনুমানিক ৪ লাখ বিশ হাজার টাকা মূল্যের ১৪ কেজি গাঁজাসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী বলে স্বীকার করে। তারা বেশ কিছুদিন যাবৎ যাত্রাবাড়ীসহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় গাজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য সরবরাহ করে আসছিল বলে জানায় এই কর্মকর্তা।

;