শান্তির জন্য জবাবদিহিমূলক বিশ্বের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

শান্তিপূর্ণভাবে এ পৃথিবীতে বসবাস করতে হলে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে একটি জবাবদিহিমূলক বিশ্ব ব্যবস্থা গড়ে তোলার কোনও বিকল্প নেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শান্তির আদর্শকে পুরোপুরি ধারণ করে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ ও সমঝোতার ভিত্তিতে সকলের সঙ্গে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ সদা প্রস্তুত রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার (৫ ডিসেম্বর) বিকেলে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের অনুষ্ঠান ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন' এর সমাপনী ভাষণে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার জন্য আমরা সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছি। এর মধ্যে দিয়ে শান্তির মূল্য এবং সমগ্র মানবজাতির গভীরতম আকাঙ্ক্ষাসমূহ উপলব্ধি করেছি। বরাবরের মতো ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার পক্ষে আমাদের অবিচল সমর্থন থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সম্পদের সীমাবদ্ধ থাকা সত্বেও আমরা মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সাময়িক আশ্রয় দিয়েছি। এর ফলে ওই অঞ্চলে একটি বড় মানবিক বিপর্যয় এড়ানো সম্ভব হয়েছে। রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের জন্য শান্তিপূর্ণ কূটনীতিক তৎপড়তা চালিয়ে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, গত দুই বছর ধরে করোনাভাইরাস গোটা বিশ্বকে নতুন সংকটের মুখোমুখি করেছে। এটি প্রমাণ করেছে আমরা কেউ আলদা নই। বিশ্বের এ সংকটের সময় আমি অস্ত্র প্রতিযোগিতায় অর্থ ব্যয় না করে সার্বজনীন উন্নয়নে ব্যয় করার আহ্বান জানাই। আসুন আমরা সর্বজনীন শান্তির জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে কর্মযজ্ঞে নেমে পড়ি। আমরা জঙ্গিবাদ উগ্রবাদের বিরুদ্ধে জিরো সহনশীলতা মেনে চলি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতির পিতা নিরপেক্ষ জোট গঠনের ওপর জোর দেন। বঙ্গবন্ধু বলেছেন, কমিউনিস্ট হোক, চীন হোক রাশিয়া হোক যারাই শান্তি চায় আমরা তাদের সঙ্গে রয়েছি।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে শুধু হত্যায় করা হয়নি তার বিচার আইন করে রহিত করে রাখা হয়েছিল। শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছেন, বাংলাদেশের মাটিতে সাম্প্রদায়িকতার কোনও স্থান নেই।

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৮



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম,ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৪৮ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. ফারুক হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান,শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) সকাল ছয়টা থেকে শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ছয়টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতারসহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

এ সময় তাদের থেকে ৩হাজার ৯৮৯ পিস ইয়াবা, ১৭০ গ্রাম হেরোইন, ২১ কেজি ২৭০ গ্রাম গাঁজা, ১০টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন, ৩ লিটার দেশি মদ ও ১ লিটার ৭৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারমূলে জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৯টি মামলা রুজু হয়েছে।

;

করোনার ধাক্কা: কক্সবাজারে বুকিং বাতিলের হিড়িক, শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা



এহসান আল কুতুবী, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কক্সবাজার
ওমিক্রনের ধাক্কা লাগতে শুরু করেছে কক্সবাজারের পর্যটন ব্যবসায়। ছবি: সংগৃহীত

ওমিক্রনের ধাক্কা লাগতে শুরু করেছে কক্সবাজারের পর্যটন ব্যবসায়। ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের ধাক্কা লাগতে শুরু করেছে কক্সবাজারের পর্যটন ব্যবসায়। কমে আসছে পর্যটকদের আনাগোনা। হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউসগুলোতে স্বাভাবিকের চেয়ে কম রুম বুকিং হচ্ছে। আবার অনেকে রুম বুকিং দিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বুকিং বাতিল করছে। ভীড় নেই সমুদ্র সৈকত, রেস্টুরেন্ট ও পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পণ্যের দোকানসহ স্পটগুলোতে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন ওমিক্রনের কারনে মানুষ আতংকিত। অনেকটা ভীতি সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়াও করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি ও যেকোন মূহুর্তে লকডাউনের ঘোষণা আসতে পারে এমন আতংকে পর্যটকদের আনাগোনা কমেছে।

পর্যটন মৌসুমে স্বাভাবিকভাবে সাপ্তাহিক ছুটির দিন ছাড়াও সবসময় মিনিমাম ৫০% রুম বুকিং থাকে। কিন্তু নতুন করে করোনা সংক্রমণ দিনদিন বেড়ে যাওয়ায় কারনে যা ২০% এ চলে এসেছে। আবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ৭০-৮০% রুম বুকিং থাকে। সেক্ষেত্রেও ৪০% রুম বুকিং হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। ফলে, নতুন করে পর্যটন ব্যবসায় শংকা দেখা দিয়েছে।

আমিন ইন্টারন্যাশনাল এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ আমিন জানিয়েছেন, তার হোটেলে মোট ৩৫ টি রুম রয়েছে। তার মধ্যে মাত্র ১০ টি রুমে গেস্ট রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার উপলক্ষে বেশ কয়েকটি রুম বুকিং ছিলো। কিন্তু করোনায় আক্রান্তের অজুহাতে বেশিরভাগ রুমের বুকিং বাতিল করেছে। ভরা মৌসুম হলেও ৫০% ছাড় দিয়ে রুম বুকিং দেওয়া হচ্ছে। তাতেও ৫০% রুম বুকিং হচ্ছে না।

যেকোন মূহুর্তে লকডাউনের ঘোষণা আসতে পারে এমন আতংকে পর্যটকদের আনাগোনা কমেছে।


হোটেল দ্যা গ্র্যাণ্ড স্যান্ডির চেয়ারম্যান আবদুর রহমান জানিয়েছেন, সাপ্তাহিক ছুটির দিন উপলক্ষে ২০০ জনের একটি গ্রুপের দু’দিনের বুকিং ছিলো। হঠাৎ করে তারা বুকিং বাতিল করেছেন। শুক্র ও শনিবার ছাড়া বাকি দিনগুলোর বেশিরভাগ সময় কোন বুকিং থাকে না।

তিনি আরো জানান, সরকার আবার কখন লকডাউন দেয় তা নিয়ে সাধারণ মানুষ আতংকে আছে। এর কারনেও অনেকে আসার সাহস করছে না।

একই অবস্থা নামি-দামি খাবারের হোটেল রেস্তোরাঁয়ও। বিভিন্ন সুস্বাদু খাবারের আইটেম রেডি করলেও ভোজনরসিক পর্যটকদের আনাগোনা কমে যাওয়ায় অনেক খাবার নষ্ট হচ্ছে। এমনকি নতুন করে লকডাউনের ঘোষণা আসলে বড় ধরনের লোকসান আতংক কাজ করছে তাদের মাঝে।

ভরা মৌসুম হলেও ৫০% ছাড় দিয়ে রুম বুকিং দেওয়া হচ্ছে। তাতেও ৫০% রুম বুকিং হচ্ছে না।

কুটুমবাড়ি রেস্তোরাঁর চেয়ারম্যান, আশরাফুল ইসলাম রাকিব জানিয়েছেন, মাত্র ২১ দিন আগে তার প্রতিষ্ঠান কুটুমবাড়ি রেস্তোরাঁর একটি শাখা খুলেছেন। কোটি টাকা ইনভেস্ট করে এখন শংকায় দিন কাটাচ্ছেন। বিশেষ করে পর্যটক নির্ভর হওয়ায় করোনা আতংকের পর থেকে বেচাকেনা কমে গেছে। তবে, শুক্রবার হিসেবে মোটামুটি ভীড় ছিলো।

হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার জানিয়েছেন, শুধু করোনার কারনে নয় বিভিন্ন কারনে পর্যটকদের আনাগোনা কমেছে। করোনার পাশাপাশি এতোদিন স্কুল খোলা ছিলো, স্কুলের ট্যুরও বন্ধ। এখানে যারা আসেন বেশিরভাগ ফ্যামেলি ট্যুরে আসেন। সে হিসেবে ফ্যামেলির কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে আর আসা হয় না।

তিনি আরো জানান, মানুষের মধ্যে আতংক কাজ করছে। বিশেষ করে যারা আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে লড়েছেন তারা ভয়ে আসতে চায় না। হোটেল মোটেলে শুক্রবার মোট ৪০% রুম বুকিং ছিলো বলেও জানান তিনি।

প্রতিদিন হু হু করে বাড়ছে করোনা। নতুন করে যুক্ত হয়েছে ওমিক্রন। এ কারনে আতংক কাজ করলেও মাস্ক পড়া নিশ্চিত করাসহ সরকারি নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নে প্রতিদিন ৩-৪ টি টিম নিয়ে প্রতিনিয়ত হোটেল মোটেল জোনসহ শহরের বিভিন্ন স্পটে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান।

তিনি জানান, নিয়মিত অভিযান হিসেবে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি সঠিকভাবে পালন করা হচ্ছে কিনা তা নিয়ে হোটেলগুলোতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কোন বিষয়ে অসঙ্গতি পেলে জরিমানাও করা হচ্ছে।

বিশেষ করে পর্যটকদের মাস্ক ছাড়া সমুদ্র সৈকতে ঘুরাফেরা করতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। পাশাপাশি সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। মাস্ক পড়া নিশ্চিত করতে নিয়মিত মাইকিং করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট।

;

চীনা নাগরিকের টাকা ছোড়ার ঘটনায় সার্জেন্টসহ ২ পুলিশ প্রত্যাহার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর রাওয়া ক্লাবের সামনে ট্রাফিক পুলিশকে লক্ষ্য করে চীনা নাগরিকের টাকা ছোড়ার ঘটনা তদন্ত করছে পুলিশ। এ ঘটনায় কর্তব্যরত একজন ট্রাফিক সার্জেন্ট ও ট্রাফিক পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এছাড়া ওই চীনা নাগরিক টাকা ছোড়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে লিখিতভাবে পুলিশকে ‘সরি’ বলেছেন।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) রাতে ডিএমপির তেজগাঁও ট্রাফিক বিভাগের উপ-কমিশনার সাহেদ আল মাসুদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, যেহেতু এ ঘটনায় একটি তদন্ত চলছে, সেহেতু ওইদিন ঘটনাস্থলে কর্মরত একজন ট্রাফিক সার্জেন্ট ও ট্রাফিক পুলিশ সদস্যকে তাদের ডিউটি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে প্রাথমিক তদন্তে তাদের কোনো দোষ পাওয়া যায়নি। দ্রুতই চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন আসবে। তদন্ত প্রতিবেদন আসলে তাদের আবার দায়িত্বে বহাল করা হবে।

উপ-কমিশনার সাহেদ আল মাসুদ বলেন, আমাদের ডাকে গতকাল (বৃহস্পতিবার) ওই চীনা নাগরিক এসেছিলেন। তিনি এ ঘটনায় আমাদের কাছে মৌখিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এছাড়া তিনি লিখিতভাবে আমাদের কাছে সরি বলেছেন।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাওয়া ক্লাবের সামনে এক চীনা নাগরিক ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে টাকা ছুড়ে মারেন। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

;

যশোরে নৃত্যশিল্পীর লাশ উদ্ধার



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, যশোর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যশোর শহরের পুরাতন কসবা কাঁঠালতলা এলাকার ৬তলা ভবনের একটি ফ্ল্যাট থেকে শুক্রবার রিনি (২২) নামে এক নৃত্যশিল্পীর লাশ পুলিশ উদ্ধার করেছে। তবে কোন সংগঠনে তিনি ছিলেন তা জানা যায়নি।

কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই হারুন অর রশিদ জানান, রিনি নামে ওই নারী পুরাতন কসবা কাঁঠালতলার সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী রিনার ৬ তলা ভবনের ওপর তলার একটি ফ্ল্যাটে একা ভাড়া থাকতেন। তিনি নাচগান করতেন বলে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে জানিয়েছেন।

শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পান, রিনি তার নিজ ঘরের ভেতর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে সিলিংফ্যানের সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন।

এ খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে কী কারণে রিনি আত্মহত্যা করেছেন তা এখনো জানা যায়নি। লাশ যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

রিনির বাবা-মায়ের নাম বলতে না পারলেও পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, মেয়েটির পিতার বাড়ি খুলনায়। আর তার মা থাকেন ময়মনসিংহে। খবর পেয়ে তারা যশোরে আসছেন বলে জানা গেছে।

;