কেরাণীগঞ্জে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থেকে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তির নাম মো. রুহুল আমিন (৩৫) বলে জানা যায়। এসময় তার নিকট থেকে ১টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে র‌্যাব-১০-এর সহকারী পরিচালক এনায়েত কবির সোয়েব এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ‍রোববার (৫ ডিসেম্বর) রাতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করে ২০৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। সে বেশ কিছুদিন যাবৎ দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য সরবরাহ করে আসছিল বলে জানা যায়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিষ খাইয়ে কৃষককে হত্যা, দুই স্ত্রীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফরিদপুর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুরের নগরকান্দায় বিষপানে হিরু মাতুব্বর (৫০) নামে এক কৃষক মারা গেছেন। তবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা, তা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

গত শনিবার (২২ জানুয়ারি) দিবগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার ডাংগী ইউনিয়নের রাজকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হিরু মাতুব্বরকে জোরপূর্বক বিষ খাইয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ তার ভাই সোহরাব মাতুব্বরের। তবে কে বা কারা হিরু মাতুব্বরকে বিষ খাইয়ে হত্যা করেছে, সে ব্যাপারে হিরুর প্রথম স্ত্রী ও দ্বিতীয় স্ত্রী পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন।

একই গ্রামের আবদুল ছাত্তার মাতুব্বরের ছেলে সামন মাতুব্বর বলেন, রাজকান্দা গ্রামের মৃত ওহাব মাতুব্বরের ছেলে হিরু মাতুব্বরকে শনিবার সন্ধ্যায় তার বাড়ির পাশে বাগানে অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পাই। এসময় হিরু মাতুব্বরের ছেলে হোসাইন মাতুব্বর সেখানে আসেন।

‌‘ওই সময় আহত হিরু মাতুব্বরের কাছে ঘটনা জানতে চাইলে তিনি বলেছিলেন, পাশের শ্রীরামদিয়া গ্রামের ৫-৬ জন লোক তাকে ঘাসমারা ওষুধ (কীটনাশক) জোর করে খাইয়ে বাগানে ফেলে রেখে গেছে। তিনি এসময় কয়েকজনের নামও বললে আমি তা মোবাইলে রেকর্ড করে রাখি। সেই ভিডিও ইতোমধ্যে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।’

হিরু মাতুব্বরের ভাই সোহরাব মাতুব্বর বলেন, হিরুকে বিষ খাওয়ানো হয়েছে, এটা জানতে পেরে আমরা তাকে শ্রীরামদিয়া গ্রামে তার দ্বিতীয় স্ত্রী রানু বেগমের বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসি। কারণ হিরু দুইমাস আগে শ্রীরামদিয়া গ্রামের জাফর মাতুব্বরের মেয়ে রানু বেগমকে বিয়ে করে সেই বাড়িতেই থাকতেন।’

স্থানীয়রা জানান, অসুস্থ হিরু মাতুব্বরকে তার দ্বিতীয় স্ত্রী রানু বেগম উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে হিরু মারা যান। হিরু দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে প্রথম স্ত্রী ও সন্তানদের সঙ্গে তার বিরোধ চলছিল।

এ নিয়ে হিরুর প্রথম স্ত্রী হায়াতুন্নেছা বলেন, দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে সে তার দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়িতে থাকে। আমাদের কোনো খোঁজ-খবর নিতেন না। সেই বাড়ির লোকজন তাকে বিষ খাইয়ে, আমাদের বাড়ির পাশের বাগানে রেখে যায়। তাই আমরা তাকে তার দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়িতে রেখে আসি।

হিরু মাতুব্বরের দ্বিতীয় স্ত্রী রানু বেগমকে তার বাড়িতে পাওয়া না গেলেও তার বাবার বাড়ির লোকজনের দাবি, প্রথম স্ত্রী ও তার পরিবারের লোকজন এ মৃত্যুর জন্য দায়ী।

নগরকান্দা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) সুমিনুর রহমান বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা সম্ভব হবে। হিরু মাতুব্বরের মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী কি না, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তার মৃত্যু রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

;

মোংলায় ৫টি হরিণের চামড়াসহ যুবক আটক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

 

বাগেরহাটের মোংলা বন্দরের শিল্প এলাকা থেকে পাঁচটি হরিণের চামড়াসহ আল আমিন (২৫) নামে পাচারচক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) রাত ১০টার দিকে ​দিগরাজ বাজার ​থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব-৬ এর একটি দল। আটক আল আমিন খুলনার দাকোপ উপজেলার বানীশান্তা গ্রামের বাসিন্দা।

র‌্যাব-৬-এর কর্মকর্তা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাহফুজুল ইসলাম জানান, সুন্দরবন থেকে হরিণ শিকার করে চামড়া চোরাই বাজারে বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছিলেন আল আমিন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

তিনি বলেন, আটক আল আমিন বন্যপ্রাণী পাচারচক্রের সদস্য। তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে হরিণের পাঁচটি চামড়াসহ মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হবে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরও করা হবে।

;

মগবাজারে বাসচাপায় কিশোর নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর মগবাজার মোড়ে যাত্রীবাহী দুই বাসের চাপায় রাকিব (১৪) নামের এক কিশোর নিহত হওয়ার ঘটনায় আজমেরি বাসের দুই চালককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

গ্রেফতারকৃত দুই চালক হলেন- মো. মনির হোসেন ও মো. ইমরান হোসেন।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) রাতে তাদের রাজধানীর পল্টন ও মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে বুধবার দুপুরে বিস্তারিত সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হবে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বিকাল ৫টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় কিশোর রাকিবকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসক বিকাল সাড়ে ৫টায় মৃত ঘোষণা করেন।

;

রংপুরে আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
রংপুরে আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য গ্রেফতার

রংপুরে আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য গ্রেফতার

  • Font increase
  • Font Decrease

রংপুরে সিসি টিভির ফুটেজ ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য সাইফুল ইসলামকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় ২টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সহকারী পুলিশ সুপার (এসএএফ) ও অতিরিক্ত দায়িত্বে সি-সার্কেল আশরাফুল আলম।

গ্রেফতার সাইফুল ইসলাম কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার পাত্রখাতা গ্রামের রহমান হাজির গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে।

আশরাফুল আলম জানান, গত ১৮ জানুয়ারি পীরগাছা থানায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধারে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার বর্ণনা মতে ঘটনাস্থলের সিসি টিভি ফুটেজের সূত্র ধরে আসামি মশিউর রহমান সিজনকে পূর্বে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সাইফুল ইসলামকে দুটি চোরাই মোটরসাইকেলসহ গ্রেফতার করা হয়।

অতিরিক্ত দায়িত্বে সি-সার্কেল মো. আশরাফুল আলম বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এ চক্রের সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া গেলে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

;