দুই গারো কিশোরী ধর্ষণ: ধর্ষক রিয়াদের ছিল কিশোর গ্যাং



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে গারো সম্প্রদায়ের দুই কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনার দেড় সপ্তাহ পর মূল আসামি সোলায়মান হোসেন রিয়াদকে (২২) গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।ধর্ষক রিয়াদ এলাকায় ১২-১৩ জনের একটি কিশোর গ্যাং দলের নেতৃত্ব দিত বলে জানায় র‍্যাব।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে কাওরান বাজার মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, শুক্রবার মধ্যরাতে ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও থেকে গ্রেফতার করা হয় রিয়াদকে।

গ্রেফতার রিয়াদ মাদকব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে জড়িত ছিল। রিয়াদ এলাকায় ১২-১৩ জনের একটি কিশোর গ্যাং দলের নেতৃত্ব দিত। যারা এলাকায় বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়াত ।

আজ দুপুরে কাওরান বাজার মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য জানান।

মঈন বলেন, গেল বছরের ২৬ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে বিয়ের একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে রাত আনুমানিক ২টার সময় ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট থানার কাটাবাড়ি এলাকায় স্কুল পড়ুয়া দুই গারো সম্প্রদায়ের কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হন। এসময় তাদের সঙ্গে থাকা ১০ বছরের এক শিশু পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

ওই ঘটনার পর থানায় মামলা না করতে আসামিরা ভিকটিমের পরিবারকে নানা রকম ভয়ভীতি প্রদর্শন করতে থাকে। যার কারণে তিনদিন পর ভিকটিমের পরিবার ৩০ ডিসেম্বর হালুয়াঘাট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন বলে জানান তিনি।

ধর্ষণের ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্ব সহকারে প্রচার হলে দেশের বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন হয়। এ নিয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনা সৃষ্টি করলে র‍্যাব আসামিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে। যার ফলে আজ মধ্যরাতে মূলহোতা রিয়াদকে গ্রেফতার করা হয়।

মঈন জানান, আসামি সোলায়মান হোসেন রিয়াদ এলাকায় চিহ্নিত বখাটে হিসেবে পরিচিত। সে এলাকায় ১২-১৩ জনের একটি বখাটে দলের নেতৃত্ব দিত। সে এবং তার সহযোগীদের অত্যাচারে এলাকার স্কুল পড়ুয়া মেয়েরা অতিষ্ঠ। স্কুলে আসা যাওয়ার পথে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করারও অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত সোলায়মান হোসেন রিয়াদের নামে হালুয়াঘাট থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মাদক চোরাচালান মামলা চলমান রয়েছে। ইতিপূর্বে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে এবং কারাভোগ করে। এছাড়া রিয়াদ সংঘবদ্ধভাবে এলাকায় মাদক চোরাকারবারি এবং গ্রুপ ভিত্তিক বিভিন্ন চুরি, ছিনতাই ও মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

আসামিদের রাজনৈতিক পরিচয় জানতে চাইলে মঈন বলেন, আসামির পিতা একটি দলের সঙ্গে জড়িত এবং তার মামা বর্তমান মেম্বার। বাবা-মামার ক্ষমতাবলে রিয়াদ এমন বেপরোয়া হয়ে উঠতে পারে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণের নির্দেশ



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন ঈদুল আযহায় কোরবানির পশুর বর্জ্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপসারণ এবং কোরবানির স্থান পরিষ্কার করার জন্য সকল সিটি করপোরেশন এবং সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

রোববার (২৬ জুন) আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে অনলাইনে আয়োজিত পশুর হাট ব্যবস্থাপনা, নির্দিষ্ট স্থানে পশু কোরবানি বাস্তবায়ন ও কোরবানির পশুর বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সার্বিক প্রস্তুতি পর্যালোচনার লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ নির্দেশ দেন।

যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে সারা দেশে পশুর হাট বসবে বলেও জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, সড়ক-মহাসড়কের পাশে যেখানে যান চলাচল বিঘ্ন হতে পারে সেখানে কোনো ক্রমেই পশুর হাট বসানো যাবে না। এ নির্দেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, জেলা প্রশাসকগণ, পৌর মেয়র ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের নিয়ে সভা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবেন। সিটি করপোরেশনের মেয়র, ইউনিয়ন পরিষদ এবং উপজেলা পরিষদ এবং জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানরা সবাই তাদের স্ব স্ব অবস্থানে থেকে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক দায়িত্ব পালন করবেন বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

মো. তাজুল ইসলাম জানান, করোনার মহাসংকটেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে গত ঈদে পশুর হাট বসানো হয়েছিলো। এবছরের শুরুতে করোনা সংক্রমণের হার কম থাকলেও গত বেশ কয়েকদিন ধরে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে এবারের পশুর হাট বসাতে হবে। এব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

গত বছরের ন্যায় পশুরহাট ব্যবস্থাপনা, নির্দিষ্ট স্থানে পশু কোরবানি, দ্রুততম সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের ক্ষেত্রে সকল মন্ত্রণালয়/বিভাগ/দফতর/সংস্থা এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের কাজ করার আহবান জানান মন্ত্রী।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী জানান, জননিরাপত্তা বিভাগ কোরবানির পশুর হাটে নিরাপত্তা বিধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ এবং এ বিষয়ে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেবেন।

সভায়, সকল সিটি করপোরেশনের মেয়র, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব/সচিববৃন্দ এবং সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের মহাপরিচালকবৃন্দ অন্যান্যের মধ্যে অনলাইন সভায় অংশ নেন।

;

পদ্মা সেতুতে নামলেই ব্যবস্থা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। তবে অভিযোগ উঠেছে অনেকে যানবাহন থেকে নেমে পদ্মা সেতুর মালামাল চুরি করছে। এজন্য সেতু বিভাগ পদ্মা সেতুতে মানুষের হাঁটাচলার বিষয়ে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। সেতুতে মানুষের না নামার বিষয়টি নিশ্চিত করতে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে অনুরোধ জানিয়েছে সেতু কর্তৃপক্ষ।

রোববার (২৬ জুন) পদ্মা সেতু প্রকল্পের পরিচালক মো. শফিকুল ইসলামের সই করা চিঠি সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং সাপোর্ট অ্যান্ড সেফটি টিমকে (ইএসএসটি) পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, সেতুর ওপরে যানবাহন থেকে নামা নিষিদ্ধ। এরপরও অনেকে সেতুতে নেমে মূল্যবান মালামাল ও যন্ত্রপাতি চুরি করছে। অনেকে দুই দিকের টোল প্লাজার আশপাশে যন্ত্রপাতি ও মালামালের ক্ষতি করছে। এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে ইএসএসটিকে টহল জোরদার করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সেতু বিভাগ সূত্র বলছে, সেতুর টোল প্লাজার কাছে চারপাশে বেড়া দেওয়ার কাজ এখনও শেষ হয়নি। সেখানে নানা নির্মাণসামগ্রী রয়েছে। অনেকে বাইরে থেকে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করছে। গাড়ি-মোটরসাইকেল থামিয়ে সেলফি তোলা, শুয়ে ছবি তোলা, রেলিংয়ে ওঠার চেষ্টা করছে। এতে একদিনে যানবাহন চলাচলে ব্যাহত হচ্ছে, অন্যদিকে দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ছে। এছাড়া মালামাল চুরির ঘটনাও ঘটছে।

;

সংক্রমণ বাড়ায় আমরা কিছুটা চিন্তিত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশে আবারও বাড়তে শুরু করেছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। এমন পরিস্থিতিতে সংক্রমণ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কিছুটা চিন্তিত বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে আমরা সফল হয়েছিলাম। কিন্তু দেশে সংক্রমণ আবার বাড়ছে। এতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কিছুটা চিন্তিত।

রোববার (২৬ জুন) বিকেলে রাজধানীর মহাখালীতে আইসিডিডিআরবিতে কলেরা টিকা কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জাহিদ মালেক বলেন, দেশে কিছুদিন ধরে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। এ সময় টেস্ট (করোনা পরীক্ষা) বেশি করা দরকার। তিনি বলেন, আমরা কিছুটা চিন্তিত।

মন্ত্রী বলেন, আমরা দেশের টার্গেটকৃত প্রায় সবাইকেই টিকার আওতায় এনেছি। এতে সংক্রমণ এক শতাংশের নিচে চলে এসেছিল। আমাদের মৃত্যু প্রায় শূন্যের কোটায়। কিন্তু এখন আবার সংক্রমণের হার ১৫ শতাংশে উঠে এসেছে। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আমরা সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়েছি।

তিনি বলেন, করোনায় মন্ত্রণালয়ের অনেকেই আক্রান্ত হয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদফতর অফিসেও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ অবস্থায় আমাদের সচেতন হতে হবে। সবাইকেই মাস্ক পরতে হবে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

;

পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা সেই ভাইরাল যুবক আটক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের গর্ব ও অহংকার স্বপ্নের পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। পদ্মা সেতুতে দাঁড়ানো বা ছবি তোলা নিষেধ থাকলেও প্রথম দিনই সেতুতে চলছে নিয়ম ভাঙার হিড়িক। গাড়ি থামিয়ে কেউ তুলছেন ছবি আবার কেউ সেতুর ওপর দাঁড়িয়ে করছেন টিকটক ভিডিও। তেমনই এক টিকটকার পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খুলছেন, যা ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। নাট-বল্টু খোলা সেই ভাইরাল যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার (২৬ জুন) বিকালে সিআইডির সাইবার ক্রাইমের একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, এক যুবক পদ্মা সেতুর কংক্রিটের রেলিংয়ের ওপর দিয়ে লোহার রেলিংয়ের দুটি নাট খুলছেন। এই নাট দুটি দিয়ে লোহার রেলিংটি আটকানো রয়েছে কংক্রিটের রেলিংয়ের সঙ্গে। এরপর সেই যুবক নাট দুটি বাঁহাত দিয়ে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে খুলে ডানহাতে নেন এবং আবার বাঁহাতের ওপর রাখেন।

নাট দুটি খুলে হাতের ওপর রেখে বলেন, এই হলো আমাদের পদ্মা সেতু। আমাদের হাজার হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু।’ এ সময় পাশ থেকে আরেকজনকে বলতে শোনা যায়, ‘নাট খুলে ভাইরাল করে দিয়েন না।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ওই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর শুরু হয়েছে তীব্র সমালোচনা। ওই যুবকের এমন কাণ্ড দেখে অনেকেই তার শাস্তি দাবি করেছেন।

;