ভারতে হাইকমিশনার পদে ইমরানের মেয়াদ বাড়ল ৩ বছর



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা ২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকার ভারতের হাইকমিশনার পদে মোহাম্মদ ইমরানের মেয়াদ তিন বছর বাড়িয়েছে। ২০১৯ সালে ২৮ ফেব্রয়ারি মোহাম্মদ ইমরানকে সরকার নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার পদে নিয়োগ দেয়। নতুন মেয়াদে চলতি বছর ২০২২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে এটি কার্যকর হবে।

প্রায় এক দশক পর বাংলাদেশের একজন পেশাদার কূটনীতিক তখন ভারতে হাইকমিশনারের দায়িত্ব নিয়েছেন। ভারতে যোগদানের আগে তিনি আরব আমিরাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন।

মোহাম্মদ ইমরান ভারতে সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীর স্থলাভিষিক্ত হন। সাবেক পররাষ্ট্রসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে চুক্তিতে ভারতে হাইকমিশনারের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। এর আগে ২০০৯ সাল থেকে ২০১৪ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার ছিলেন সাবেক কূটনীতিক তারিক এ করিম। তিনিও চুক্তিতে নিয়োগ পেয়েছিলেন।

বিসিএস (পররাষ্ট্র ক্যাডার) ১৯৮৬ ব্যাচের কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইমরান ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি অর্জন করেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের আগে তিনি উজবেকিস্তানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার ছিলেন মোহাম্মদ ইমরান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দেওয়ার পর ঢাকায় বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি তিনি জেদ্দা, অটোয়া, বন ও বার্লিনের বাংলাদেশ মিশনে বিভিন্ন পদে কাজ করেছেন।

২০১০ সালের ১০ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক ভারত সফরের সময় তিনি দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ডেস্কের মহাপরিচালক ছিলেন। এ সফরের ওপর ভিত্তি করেই বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নতুন করে এগিয়ে চলেছে যা এখনও অব্যাহত রয়েছে।

দৌলতদিয়া ঘাটে সুপারভাইজারের রহস্যজনক মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটের সুপারভাইজার মো: জাকির শেখ (৩২) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে কিনা এ নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) ভোরের দিকে তার নিজ বাড়ি দৌলতদিয়ার শাহাদত মেম্বার পাড়াতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জাকির শেখ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউপির শাহাদত মেম্বার পাড়া গ্রামের ইউসুফ শেখের ছেলে। সে দৌলতদিয়া ঘাটে ট্রাক পারাপারের বুকিং এর কাজ করত।

এ ঘটনার খবর পেয়ে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. সালাহউদ্দিন (সদর সার্কেল) মো.মঈন উদ্দিন চৌধুরী ও গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা স্বপন কুমার মজুমদার ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয় ও পারিবা‌রিক সূ‌ত্রে জানা যায়, জাকিরসহ কয়েকজন একসাথে দৌলতদিয়া ঘাটে গাড়ি বুকিং এর কাজ করে। পেশাগত কারণে তিনি অনেক রা‌ত করে বাড়িতে আসা যাওয়া ক‌রতেন। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে কখন বাড়িতে এসেছেন তা কেউ বল‌তে পার‌ছেন না। তাছাড়া তা‌র স্ত্রী ও সন্তান বাড়িতে ছিল না। হঠাৎ ভো‌রে জা‌কি‌রের ঘ‌রের দরজা খোলা দেখ‌তে পাওয়া যায়। সেসময় ভেত‌রে গি‌য়ে দে‌খেন হাত বাকা হ‌য়ে মেঝেতে পড়ে আছে। তার মু‌খ দি‌য়ে রক্ত পড়ছে। এছাড়া বিছানা অগোছা‌লো এবং এক‌টি স্ক্রুড্রাইভার নি‌চে প‌ড়ে ছিল। এছাড়া সুইচ বো‌র্ডের স‌কেট খোলা ছিল।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হলে থানা পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজন ও নিহতের পরিবার সুষ্ঠু তদন্তের জোড় দাবি জানান।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রসাশন ও অপরাধ) মো. সালাহউদ্দিন বলেন, ঘটনাটি শোনার পরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। তবে মৃত্যুর সঠিক কারণ উদঘাটনের জন্য পুলিশ কাজ করছে।

;

ঢাবি হলে শিক্ষার্থীদের উদাসীনতায় মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

'হলগুলো যেহেতু আমাদের বাড়ির মত, আর বাড়িতে সেই অর্থে স্বাস্থ্যবিধি মানা হয় না, তাই হলেও স্বাস্থ্যবিধি মানার খুব একটা প্রয়োজন দেখছি না।' স্বাস্থ্যবিধি না মানার বিষয়ে মাস্টার দা সূর্য সেন হলের আবাসিক ছাত্র রবিউল হাসান এভাবেই তাঁর অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় হল খোলা রেখে ৬ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সশরীরে ক্লাশ ও পরীক্ষা বন্ধ রেখেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলগুলো খোলা থাকার কথা থাকলেও হলগুলোতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি।

এ ব্যাপারে রবিউল আরো জানান, 'করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন অন্য ভ্যারিয়েন্টগুলোর থেকে বেশ দূর্বল, এটা কিছুটা জ্বর-সর্দির মত। এটি এমনি এমনিই ভাল হয়ে যাবে।'

তবে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রয়োজনীয়তা বোধ করেন আরিফুল ইসলাম নামে অন্য এক শিক্ষার্থী। তিনি বলেন, 'হলে স্বাস্থ্য বিধি মানার কোন পরিবেশই নেই। যেখানে এক রুমে ২ দুইজন থাকার কথা, সেখানে গাদাগাদি করে ১০-১৫ জন থাকতে হয়। এমন অবস্থায় থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা আমাদের কাছে অনেকটা ‘বিলাসীতার’ মত। আবাসন সংকট দূর করলে হলগুলোতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পরিবেশ সৃষ্টি হবে।'

অন্যদিকে ক্যাম্পাসে বাহিরের লোকদের আনাগোনা বন্ধ করলে ক্যাম্পাস ও হলগুলো অনেকটাই করোনা ভাইরাস থেকে ঝুঁকিহীন হয়ে পড়বে বলে মনে করেন, সাজিদ হাসান নামে অন্য এক শিক্ষার্থী।

এ ব্যাপারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আকরাম হোসেন জানান, আমরা নিয়মিতই সর্বোচ্চ তদারকি করছি যেন শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে। শিক্ষার্থীদের জানানো হয়েছে যেন সামান্যতম অসুস্থতা বোধ করলে যেন আমাদের অবহিত করে। শিক্ষার্থীদের সামান্য সহযোগিতা পেলে হলগুলো পরিপূর্ণভাবে স্বাস্থ্যবিধির আওতায় চলে আসবে, বলে তিনি মনে করেন।

এ ব্যাপারে মাস্টার দা সূর্য সেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহাম্মদ মকবুল হোসেন ভূইয়া’র সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে, তিনি ব্যস্ত আছেন বলে জানান। এছাড়া বিজয় একাত্তর হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আবদুল বাছির ও কবি জসীমউদ্দিন হলের প্রাধ্যক্ষ ড. মুহাম্মদ আব্দুর রশীদ -র সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও, তাঁদের কাউকেই পাওয়া যায় নি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, যারা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে থেকেও, এমন ব্যবহার কখনোই কাম্য নয় আমার প্রিয় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। স্বাস্থ্য বিধি মানার ব্যাপারে যারা এমন উদাসীন, তাঁদেরকে তিনি স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য অনুরোধ জানান।

অধ্যাপক আখতারুজ্জামান আরো বলেন, শিক্ষার্থীরা যেন সুশৃঙ্খল ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে পারে সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। যারা কিছুটা অসুস্থ তাঁদের’কে পৃথক কক্ষে রেখে নজরদারি’র মধ্যে রাখা হবে।

;

ঢাকায় দূষণে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি: তাপস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, ঢাকা বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহর, এ কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে প্রথম জাতীয় অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের প্রথম পর্বে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, বাংলাদেশে অসংক্রামক রোগ (এনসিডি) একটি নতুন ও চলমান বোঝা। ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, ক্যান্সার রোগী উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। সরকার অসংক্রমণ রোগ নিয়ন্ত্রণ ও ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে ক্যান্সার হাসপাতাল হচ্ছে।হৃদরোগের চিকিৎসায় গত দুই দশকে দেশে অনেক উন্নতি হয়েছে। উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত সব হাসপাতালে এনসিডি কর্নারে ৫টি ওষুধ বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন হিসেবে নগর স্বাস্থ্যের দায়িত্ব আমাদের, এনসিডির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমরাও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে সহায়তা করার নিশ্চয়তা দিচ্ছি। নগরবাসীর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ঢাকা সিটিতে পার্ক ও ফুটপাত স্থাপন করা হচ্ছে। দুর্ভাগ্যবশত ঢাকা বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহর, এর কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে।

মেয়ব বলেন, আমরা আমাদের মাস্টারপ্ল্যান অনুসারে কাজ করছি। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতায় দুটি হাসপাতাল আছে, সেগুলোর উন্নয়নে কাজ করা হচ্ছে। ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত দেশ হতে কাজ করছে সরকার।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, স্বাস্থ্য অর্থ ইউনিটের মহাপরিচালক ডা. মোহাম্মদ শাহাদাত হোসাইন মাহমুদ, সাবেক মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, ইন্টান্যাশনাল সোসাইটি ফর আরবান হেলথ (আইএসইউএইচ) এর প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক জো আইভি বাফর্ড, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এনসিডি টিম লিডার (ব্যাংলাদেশ) সাধনা ভাগওয়াত, ওয়ার্ড ওরবেস্টি ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক জন উইলডিং, অরবিস ইন্টারন্যাশনালের কান্ট্রি ডিরেক্ট্রর ডা. মুনির আহমেদ, ইউনিভার্সেল মেডিকেল রিসার্স সেন্টারের রিসার্স প্রধান অধ্যাপক ডা. রেদওনুর রহমান, বিএসএমএমইউর পাবলিক হেলথ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. ফারিহা হোসেন।

;

রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে নির্বাচন করা কঠিন: সিইসি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে নির্বাচন করা কঠিন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

তিনি বলেন, বন্দুক মাথায় রেখে একটা নির্বাচন করা যেতে পারে। চিরদিন সেটা হতে পারে না। রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে নির্বাচন করা কঠিন। কিন্তু সম্ভব।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে ‌আরএফইডি টক আয়োজনে এসব কথা বলেন সিইসি।

কে এম নূরুল হুদা বলেন, সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এটিএম শামসুল হুদা বর্তমান কমিশন নিয়ে সমালোচনা করেন, অথচ তিনি আইন লঙ্ঘন করে ৯০ দিনের নির্বাচন করেছিলেন ৬৯০ দিনে। তিনি নিয়ম বহির্ভূতভাবে অনেক কাজ করেছেন দায়িত্বে থাকা অবস্থায়।

ইসি মাহবুব তালুকদারের বিভিন্ন মন্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, মাহবুব তালুকদারের কথা আমি বরাবরই বলেছি। ইসিতে তিনি ব্যক্তিগত এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছেন। তিনি রোগাক্রান্ত ব্যক্তি। মাহবুব কখনও আইসিইউতে কখনও সিসিইউতে ছিলেন। এছাড়া তিনি সিঙ্গাপুর, ভারতে চিকিৎসা নিয়েছেন। এসব চিকিৎসার ব্যয় কমিশন থেকে করা হয়। এ অর্থের পরিমাণ প্রায় ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকা।

;