স্বাস্থ্য বিভাগের প্রথম নারী মহাপরিচালককে সংবর্ধনা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রথম এবং একমাত্র নারী পরিচালনা ডা. মনোয়ারা বিনতে রহমানকে মরনোত্তর সন্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি হোটেলে তিন দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত প্রথম ন্যাশনাল এনডিসি কনফারেন্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে এই সন্মাননা প্রদান করা হয়। অসংক্রামক ব্যাধী মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এই সন্মাননা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মণির হাত থেকে এই সন্মাননা গ্রহণ করেন ডা. মনোয়ারা তনয়া বিশ্ব ব্যংকের এইচএনপি গ্লোবাল প্র্যাকটিসের সিনিয়র হেলথ স্পেশালিস্ট ডা. বুশরা বিনতে আলম।

সন্মাননা গ্রহণের অনুভূতি প্রকাশ করতে যেয়ে ডা. মনোয়ারা তনয়া বুশরা বিনতে আলম বলেন, বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার ইতিহাসে মায়ের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। তিনি আজীবন দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করে গেছেন। তৎকালীন সময়ে সংক্রামক ব্যধী প্রতিরোধ ছিল অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। মা সেক্ষেত্রেও বড় ভূমিকা রেখেছেন।

ডা. বুশরা বলেন, মায়ের এই সন্মাননা বর্তমানে চিকিৎসা খাতে কর্মরত অন্যান্য নারীদের জন্যেও উৎসাহজনক। স্বাস্থ্যখাতে উনার অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যখাতে বিশেষ অবদান রাখায় মোট ১২ জন চিকিৎসককে সম্মাননা প্রদান করা হয়। চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ছয় জন বিশিষ্ট চিকিৎসককে মরণোত্তর সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ছয় জন চিকিৎসককে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

নাশ্যনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্স ইনিস্টিটিউট এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) এম এ মালেক, ডেল্টা হসপিটাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মোকাররম আলী, ন্যাশনাল ইনিস্টিটিউট অব নিউরো সাইন্স অ্যান্ড হসপিটাল এর পরিচালক অধ্যাপক ডা.কাজী দ্বীন মোহাম্মদ, অধ্যাপক সাদিকা তাহরিন খানম, কিডনি ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্স ইনিস্টিটিউট এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. হারুণ অর রশিদ, শমরিতা হাসাপাতারে মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. এমএন আলমকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

বারডেমের প্রতিষ্ঠাতা জাতীয় অধ্যাপক মোহাম্মদ ইব্রাহীম, দ্য ইনিস্টিটিউট অব পোস্ট গ্রাজুয়েট মেডিসিন রিসার্স (আইপিজিএমআর) এবং ইউনিভাসিটি অব সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজি চিটাগাং এর প্রতিষ্ঠাতা জাতীয় অধ্যাপক নুরুল ইসলাম, দেশের প্রথম মুসলিম নারী চিকিৎসক অধ্যাপক জোহরা বেগম কাজী, মেডিসিনের অধ্যাপক এসজিএম চৌধুরী, অধ্যাপক নিজামুদৌলা চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক ডা. মনোয়ারা বিনতে রহমানকে মরণোত্তর সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা দীপ হত্যার বিচার চাইলেন বাবা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রীর কাছে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা দীপ হত্যার বিচার চাইলেন বাবা

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা দীপ হত্যার বিচার চাইলেন বাবা

  • Font increase
  • Font Decrease

 

আরিফ রায়হান দীপ বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ও বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা ছিলেন। যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে শাহবাগে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম সংগঠক ছিলেন দীপ। মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদের বিপক্ষে সোচ্চার হওয়ায় ২০১৩ সালের ৯ এপ্রিল বুয়েটের নজরুল ইসলাম হলে দীপ'কে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে বুয়েটের ধর্মান্ধ মৌলবাদী ছাত্র মেজবাহ উদ্দিন। হাসপাতালে ৮৪ দিন কোমায় থাকার পরে একই বছরের ২ জুলাই মৃত্যুবরণ করেন দীপ।

এরপর থেকে ২ জুলাই কে 'শহীদ আরিফ রায়হান দপ দিবস' হিসেবে পালন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এ উপলক্ষে শনিবার (০২ জুলাই) বুয়েটের নজরুল ইসলাম হলে স্থাপিত দীপের ভাষ্কর্যে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও বুয়েট ছাত্রলীগের প্রাক্তন নেতৃবৃন্দ। এসময় সেখানে দীপের বাবার উপস্থিতিতে এক আবেগঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

এছাড়াও বিকেলে বুয়েট ছাত্রলীগের প্রাক্তন নেতৃবৃন্দের উদ্যোগে দীপের স্মৃতিতে ভার্চুয়াল স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ভার্চুয়াল আলোচনায় আরিফ রায়হান দীপের বাবাও অংশ নেন।

তিনি বলেন, 'বুয়েটে গেলে দীপের ঘ্রাণ পাই এখনো। দীপকে কবর দিয়েছি ঠিকই কিন্ত আমার দীপ জেগে আছে ছাত্রলীগের আরো হাজার সন্তানের বুকে। আক্ষেপ একটাই- সুষ্ঠু বিচারের জন্য আমি এখনো দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার সন্তানের হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই।

ভার্চুয়াল স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বুয়েটের সাবেক ছাত্রনেতা খন্দকার মঞ্জুর মোর্শেদ, এস এম মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, আতাউল মাহমুদ, মনিরুজ্জামান মোহন, কাজী খায়রুল বাশার, হাবিব আহমেদ হালিম মুরাদ, মনিরুজ্জামান মনির, রনক আহসান, তন্ময় আহমেদ, রোদসী আলমগীর, এম এ সাইদ, তানভীর মাহমুদুল হাসান, ইমরান খান, ইমরুল কায়েস রাফি, জয় প্রকাশ, আরিফুর রহমান, সফিউল আলম, তরফদার মাহমুদ, মুন্সী আব্দুস সালেক প্রমুখ। বক্তারা মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হওয়ার জন্য আহবান জানান।

;

ভাঙচুরের অভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে, ৩ রুটে লেগুনা বন্ধ



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ভাঙচুরের অভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে, ৩ রুটে বন্ধ লেগুনা চলাচল

ভাঙচুরের অভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে, ৩ রুটে বন্ধ লেগুনা চলাচল

  • Font increase
  • Font Decrease

 

দৈনিক পাঁচ হাজার করে মাসে দেড় লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছে, দাবির সেই টাকা না দেওয়ার অস্বীকৃতি জানালে ছাত্রলীগের কর্মী পাঠিয়ে লেগুনা ভাংচুর ও মালিকদের মারধরের অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক মুনায়েম শাহরিয়ার মুনের বিরুদ্ধে।

গতকাল শুক্রবার রাতে এমন ঘটনা ঘটলে তার প্রতিবাদে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড়ের ৩টি রুটে লেগুনা চলাচল বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে লেগুনা মালিক সমিতি।

লেগুনা মালিক সমিতির সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, শনিবার (২ জুলাই) সকাল থেকে নীলক্ষেত থেকে গুলিস্তান ও চকবাজারমুখী ৩টি রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য লেগুনা চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। ভাঙচুর ও মারধরের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

এদিকে শুক্রবার রাতে লেগুনা সমিতির নীলক্ষেত মোড় লেগুনা রুটের দেখভালের দায়িত্ব থাকা মৃধা মানিক বলেন, ঢাবি ছাত্রলীগ নেতার দাবি করা চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় নীলক্ষেত মোড়ে চারটি লেগুনা ভাঙচুর করেন তাদের সমর্থকরা। লেগুনা মালিকদের মারধরও করা হয়েছে৷ এর আগেও কয়েকবার লেগুনা ভাঙচুর করেছেন তারা।

তিনি বলেন, চার দিন আগে লেগুনা মালিক সমিতির নেতাদের ডাকেন স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক। তারা সমিতির নেতাদের কাছে প্রতি মাসে দেড় লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ নিয়ে মালিক সমিতির সঙ্গে তাদের দুদফা বৈঠক হয়। কিন্তু মালিক সমিতি চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় শুক্রবার বিকেলে লেগুনা ভাঙচুর করেন তাদের সমর্থকরা। এতে চারটি লেগুনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) স্যার এ এফ রহমান হল শাখা সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম বলেন, এটা আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। আমরা কমিটি পেয়েছি ফেব্রুয়ারি মাসে এখন কেন এসব চাইব। আমাদের কেউ এর সাথে জড়িত নয়। মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাদের মানহানি করা হয়েছে। আমরা মানহানির মামলার বিষয়ে ভাবতেছি।

এদিকে সাধারণ সম্পাদক মুনেম শাহরিয়ার মুন বলেন, তাদের সাথে আমাদের কখনো বসা হয়নি, কথা হয়নি। তারা কোথায় থেকে আমাদের এই বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে আসছে আমরা জানি না। যতটুকু জানি এক মাস আগে আমাদের হলের ছেলেপেলের বাইকের সাথে লেগুনা লাগায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে, ভাঙচুর করেছে। সে ইস্যুকে কেন্দ্র করে হয়ত এখন তারা আমাদের দোষ চাপাচ্ছে। আমরা এখন লেগুনা মালিক সমিতির সাথে সাথে দেখা করার চেষ্টা করছি, তাদের সাথে আগে কখনো কথা হয়নি। আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি এ ঘটনার সাথে হল ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমি তাদের (হল ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক) জিজ্ঞেস করেছি তারা বলেছে এমন কিছু ঘটেনি। তারপরও বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখব।

নিউ মার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল লতিফ বলেন, লেগুনা ভাঙচুরের বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখব

উল্লেখ্য, নীলক্ষেত থেকে গুলিস্তান ও চকবাজারমুখী ৩টি রুটে এই প্রায় ৭০-৮০টি লেগুনা চলাচল করে বলে জানা গেছে।

;

‘টিভি চ্যানেলে একসঙ্গে একাধিক বিদেশি সিরিয়াল দেখানো যাবে না’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের কোনো টিভি চ্যানেল একসঙ্গে একাধিক বিদেশি সিরিয়াল সম্প্রচার করতে পারবে না। দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি রক্ষায় এ সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয় থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার-বিজেসির তৃতীয় সম্প্রচার সম্মেলনে অনলাইনে একথা জানান তিনি।

ঢাকা প্রান্তে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তথ্য ও সম্প্রচার সচিব মো. মকবুল হোসেন বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন।

সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, গণমাধ্যম দেশের অন্যতম পথপ্রদর্শক, যা কোনোভাবেই মালিকপক্ষের স্বার্থরক্ষায় ব্যবহৃত হওয়া উচিত নয়। একইসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমকর্মী আইনের পরিবর্তন-পরিবর্ধনে সাংবাদিকদের সঙ্গে সরকার একমত এবং সাংবাদিকদের শীর্ষ সংগঠনের লিখিত প্রস্তাবনার অপেক্ষায় রয়েছে। সুতরাং এ নিয়ে বিতর্কের কোনো অবকাশ নেই।

হাছান মাহমুদ এ সময় দেশের গণমাধ্যমকে সমৃদ্ধতর করতে বিজেসির ভূমিকা জোরদারে গুরুত্ব দেন।

বিজেসির অন্যতম ট্রাস্টি সৈয়দ ইশতিয়াক রেজার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে আলোচনা করেন বিজেসি সভাপতি রেজওয়ানুল হক রাজা, সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ, পরিচালকদের মধ্যে রাশেদ আহমেদ, নূর উস-সাফা জুলহাজ, বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, ডিইউজে সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী, ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু প্রমুখ।

 

;

অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন

অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন

  • Font increase
  • Font Decrease

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেটের গোইয়াইনঘাট ফতেপুর ইউনিয়নের দারিদ্র পীড়িত বাগবাড়ি এলাকার রামনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশেপাশের গ্রাম থেকে আগত শত শত  অসহায় মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন ।

শনিবার বেলা ৩টায় স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় ৪ শতাধিক বন্যার্ত প্রতিটি পরিবার এর হাতে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি মুসুরি ডাল, ১ কেজি চিড়া, ১ কেজি গুড়, ১ কেজি লবন, ১ লিটার সয়াবিন, ৩১২ গ্রাম বক্স ডানো গুড়া দুধ, ২০ টা ওরাল স্যালাইন, ৫০টা পানি পরিষ্কারক ট্যাবলেট, ১ টা সেভলন সাবান তুলে দেওয়া হয় এবং আগামীকাল গোয়াইনঘাটের রুস্তমপুরে ৬ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে ।

এ সময় বক্তারা বলেন,  বন্যাদূর্যোগে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সাধারন নিম্ন আয়ের মানুষগুলোর জীবন । ঘরে পানি, বাহিরে পানি, আয় রোজগার বন্ধ, ঘরে খাবার নাই, শিশু সন্তান, ছেলেমেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে খুব কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছে এবং সাহায্যের আশায় বিত্তশালীদের দিকে অসহায় তাকিয়ে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন তারা।  পাশাপাশি বন্যার পানি এখনও  না নামায় তাদের জীবনে নাভিশ্বাস অবস্থা বিরাজ করছে। বিপর্যস্ত এই স্বল্প আয়ের দৈন্যপ্রবণ মানুষগুলোর জন্য কিছুটা স্বস্তি দিতে খাদ্য সামগ্রী প্রদান   করায় এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন কে  ধন্যবাদ জানিয়েছে বক্তারা। 

আয়োজকরা এই ধরনের জনহিতকর কাজ চালিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন এবং সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান । 

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের সহ সভাপতি ডা. দলিলুর রহমান, মহাসচিব ডা. মতিয়ার হোসেন, ট্রেজারার আসিফুর রহমান, নির্বাহী সদস্য আখলাক আহমেদ রিয়াদ, সিলেট জালালাবাদ পঙ্গু হাসপাতালের কনসালটেন্ট ডা. সাইদুর রহমান, ফতেপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম মাস্টার, বিট অফিসার সাব ইন্সপেক্টর অজয় শংকর, ইউ পি সদস্য ফখর উদ্দিন প্রমুখ।

;