রাজবাড়ীতে ৪০ বছরের বিরোধপূর্ণ জমির মিমাংসা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রায় ৪০ বছর ধরে ৭০ শতাংশ বাড়ির জমির সীমানা নির্ধারণ নিয়ে চলছিল বিরোধ। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের বেশ কয়েকজন চেয়ারম্যান এই বিরোধপূর্ণ জমির সীমানা নির্ধারণ করতে ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত ভুক্তভোগীরা আশ্রয় নেন আদালতের। একের পর এক উভয়েই পাল্টাপাল্টি মামলা করেন জমির দাবিদার হিসেবে। বেশ কয়েকটি মামলাও রয়েছে বিচারাধীন। এরই মাঝে এলাকার শান্তি বজায় রাখার লক্ষ্যে উদ্যোগ নেন ইউপি চেয়ারম্যান। আর প্রথম উদ্যোগেই সফল হোন তিনি। দীর্ঘদিনের সমস্যা সমাধান করায় উক্ত জমির দুজন দাবিদারই সন্তুষ্ট। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছেন চেয়ারম্যান।

ঘটনাটি রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের জামসাপুর গ্রামের। নারুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যার মো. জহুরুল ইসলামের উদ্যোগে গ্রাম্য সালিসে বিরোধপূর্ণ জমির সীমানা নির্ধারণ হওয়ার পর সেই জমির রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে।

নারুয়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, জামসাপুর মৌজার ২০ নং খতিয়ানের ১৫৯ নং দাগের ৭০ শতাংশ জমির সীমানা নির্ধারণ নিয়ে জামসাপুর গ্রামের ইউসুফ হোসেন ও রব মন্ডলের মধ্যে প্রায় ৪০ বছর ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এই জমি নিয়ে স্থানীয়ভাবে বারবার সালিস বসলেও মিমাংসা করতে ব্যর্থ হয় সালিসদাররা। এক পর্যায়ে বিষয়টির সমাধানের জন্য গড়ায় আদালতে। একে অপরের বিরুদ্ধে মামলাও করে। যা এখনো চলমান।

বিষয়টি নারুয়া ইউনিয়নের নবাগত চেয়ারম্যান মো. জহুরুল ইসলামের নজরে আসলে তিনি ১৯ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) মিমাংসার লক্ষ্যে ঘটনাস্থলে একটি সালিসের ব্যবস্থা করেন। তিনি প্রথম সালিসেই সফল হোন। পরে ওই জমির রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমও সম্পন্ন করান তিনি।

বিরোধপূর্ণ ওই জমির দুজন দাবিদার ইউসুফ হোসেন ও রব মন্ডল বার্তা২৪.কম-কে বলেন, এই জমি নিয়ে আমাদের দীর্ঘদিন ধরে ঝামেলা চলছিল। অনেক টাকাও আমাদের নষ্ট হয়েছে। চেয়ারম্যান নিজে উদ্যোগ নিয়ে আমাদের দীর্ঘদিনের একটা ঝামেলা মিটায়ে দিয়েছেন। আমরা খুবই খুশি হয়েছি। আমরা এখন মামলাগুলো তুলে নিব।

জামসাপুর গ্রামের একাধিক বাসিন্দা বার্তা২৪.কম-কে বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখে আসছি এই জমি নিয়ে অনেক ঝামেলা ও মারামারি পর্যন্ত হয়েছে। চেয়ারম্যান ক্ষমতা পাওয়ার পরই যেভাবে ঝামেলাটা মিটায়ে দিল তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার।

নারুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল ইসলাম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, এই ৭০ শতাংশ জমি নিয়ে এলাকাতে বেশ কয়েকবার গন্ডগোল বেঁধেছে। আমি নিজ উদ্যোগেই মিমাংসার জন্য প্রস্তাব দেই উভয় পক্ষকে। আমার প্রস্তাবে তারা সাড়া দিলে আমি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বসে দলিলপত্র দেখে ঝামেলাটা মিটিয়ে দেই। বাদী-বিবাদী উভয়ই খুশি মনে মেনে নিয়ে যার যার নামে রেজিস্ট্রেশন করে নিয়েছে। আমি আমার দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেই কাজটি করেছি।

দুর্নীতি আর উন্নয়ন একসঙ্গে চলতে পারে না: রাষ্ট্রপতি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্নীতি আর উন্নয়ন একসঙ্গে চলতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

তিনি বলেন, দুর্নীতিবাজ যে দলের হোক, দুর্নীতি করলে শাস্তি পেতে হবে- এটা নিশ্চিত করতে হবে।

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমিতে দুর্নীতি দমন কমিশন আয়োজিত অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি একথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, দুর্নীতি শুধু বাংলাদেশের নয়, এটি একটি বৈশ্বিক সমস্যা।

আর্থ-সামাজিকসহ প্রতিটি খাতে বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতি তুলে ধরে তিনি বলেন, দুর্নীতি আর উন্নয়ন একসঙ্গে চলতে পারে না।

রাষ্ট্রপ্রধান মনে করেন দুর্নীতি সমাজে বৈষম্যের সৃষ্টি করে এবং অর্থনৈতিক বিকাশ ও উন্নয়নকে বাধগ্রস্ত করে।

দুর্নীতি দমনে সরকারের নানা পদক্ষেপ তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার ওপর জোর দেন। আবদুল হামিদ বলেন, দুর্নীতিবাজ, ঘুষখোরদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে।

দুর্নীতি দমনে আরও কার্যকর ও সাহসী পদক্ষেপ নিতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে নির্দেশ দেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান মো. মঈন উদ্দিন আব্দুল্লাহ, কমিশনার ড. মো. মোজাম্মেল হক খান এবং মো. জহুরুল হক বক্তব্য রাখেন।

;

প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষা ২৯ ডিসেম্বর



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি পরীক্ষার আগামী ২৯ ডিসেম্বর। ২৭ ডিসেম্বর বিতরণ করা হবে প্রবেশপত্র।

ওই দিন উপজেলা পর্যায়ে বেলা ১১টায় শুরু হয়ে দুপুর ১টায় পরীক্ষা শেষ হবে। দুই ঘণ্টার এ পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞান বিষয়ে ২৫ নম্বর করে মোট ১০০ নম্বরের প্রশ্ন থাকবে।

এর আগে ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে স্কুল থেকে প্রবেশপত্র শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সহকারী পরিচালক (সাধারণ প্রশাসন) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সুষ্ঠুভাবে বৃত্তি পরীক্ষা নিতে বৃহস্পতিবার উপজেলা ও থানা শিক্ষা অফিসগুলোকে প্রস্তুতি নিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, পঞ্চম শ্রেণির বার্ষিক মূল্যায়নে প্রতিদিনের উত্তরপত্র প্রতিদিন মূল্যায়ন করতে হবে। ১৯ ডিসেম্বর পরীক্ষা শেষে ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করতে হবে। এরপর ২১ ডিসেম্বরের মধ্যে পঞ্চম শ্রেণির ফল প্রকাশ করতে হবে।

উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের স্কুল থেকে প্রস্তুতকৃত ডিআর ফরম ২২ ডিসেম্বরের মধ্যে উপজেলা শিক্ষা অফিস সংগ্রহ করবে। উপজেলা শিক্ষা অফিস ২৩ ডিসেম্বরের মধ্যে জেলায় ডিআর পাঠাতে হবে। জেলা থেকে অবশ্যিকভাবে ২৪ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে ডিআর পাঠাতে হবে।

;

গোলাপবাগ মাঠে সমাবেশ আয়োজনে বিএনপি ডিএসসিসির অনুমতি নেয়নি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গোলাপবাগ মাঠে রাজনৈতিক সমাবেশ আয়োজনে বিএনপি'র কাছ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ঢাদসিক) এখন পর্যন্ত কোনও আবেদন পায়নি। আবেদন পাওয়ার পরেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের বলেন, বিএনপি সমাবেশ করার জন্য ডিএসসিসির মাঠ ব্যবহারের অনুমতি নেয়নি। অনুমতি না নিয়ে তারা এ সমাবেশ করতে পারবে না। 

তবে এখানে উল্লেখ যে, গোলাপবাগ খেলার মাঠের উন্নয়নে “ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়ন (মেগা)” শীর্ষক একটি প্রকল্প চলমান রয়েছে। প্রকল্পের আওতায় গোলাপবাগ খেলার মাঠে সীমানা প্রাচীর ও বেষ্টনী, প্যাভিলিয়ন, ড্রেসিং রুম, বাস্কেটবল গ্রাউন্ড, নর্দমা, হাঁটার পথ, পাঠাগার ভবন (লাইব্রেরি বিল্ডিং), বাজার (মার্কেট বিল্ডিং) ইত্যাদি অনুষঙ্গের উন্নয়নসহ গোলাপবাগ খেলার মাঠকে শুধু খেলাধুলার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে।

মাঠের উন্নয়নে প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে, যা প্রায় সমাপ্তির পথে। শীঘ্রই এই মাঠ উদ্বোধনে তারিখ নির্ধারণ করার পর্যায়ে রয়েছে। সুতরাং প্রকল্পের এই পর্যায়ে গোলাপবাগ খেলার মাঠে রাজনৈতিক সমাবেশ আয়োজন করা হলে রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিনষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

;

ফখরুল ও আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ফখরুল ও আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

ফখরুল ও আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এর আগে শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বিকেলে পল্টন থানার মামলায় মির্জা ফখরুল ও আব্বাসকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়।

এদিকে জামিন নামঞ্জুর করে বিএনপির এই দুই নেতাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়ার পর আদালত প্রাঙ্গণে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সেই সঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

গত বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর হামলার পরিকল্পনা ও উসকানি দেয়ার অভিযোগে গতকাল পল্টন থানায় করা মামলায় মির্জা ফখরুল ও  আব্বাসকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

গত ৭ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন অনেকে। পরে বিএনপি কার্যালয়ে অভিযান চালানো হলে সেখানে অনেক ককটেল পাওয়ার কথা জানায় পুলিশ।

এ ঘটনায় পল্টন থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলায় ৪৭৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড় থেকে দুই হাজার বিএনপির নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়।

;