সড়কের বেহাল দশা, মেরামতের কেউ নেই!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সাভার (ঢাকা)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সংস্কারের অভাবে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে সাভার উপজেলার বহু গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এরমধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে বিশমাইল জিরাবো ও বাইপাইল আব্দুল্লাহপুর মহাসড়ক। প্রতিনিয়ত এই দুটি সড়কে দুর্ঘটনার পাশাপাশি অনেক মানুষ পঙ্গুত্ব বরণ করছে। দুই দশক ধরে এই দুটি সড়কের বেহাল দশা হলেও মেরামত করার যেন কেউ নেই। গার্মেন্টস শ্রমিকদের পাশাপাশি বিভিন্ন কারখানার বায়ারসহ সাধারণ মানুষ পড়েছে চরম দুর্ভোগে। কাঁদা পানিতে হাঁটার কারণে বিভিন্ন বয়সী মানুষের জামা কাপড় নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন রোগেও আক্রান্ত হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই দুটি সড়কের পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সড়কে পিচঢালাই উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। কোনো কোনো সড়ক কাঁদা পানিতে সয়লাব হয়ে গেছে। এসব রাস্তা দিয়ে হাঁটাও ভীষণ কষ্টকর। ইয়ারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়ক, আশুলিয়া, শিমুলিয়া, সাভার সদর, বিরুলিয়া, পাথালিয়া ইউনিয়নের বিশমাইল-গকুলনগর সড়ক সহ বিভিন্ন সড়কের বেহাল দশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মেরামত করার যেন কেউ নেই।

বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দারা বলছেন, প্রায়ই সড়কের কাজ করা হয়। সড়ক সংস্কারের জন্য কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ এলেও দায়সারাভাবে কাজ করা হয়। তাই কিছুদিন যেতে না যেতেই রাস্তা-ঘাট আবারও খানাখন্দে ভরে যায়। এছাড়া পরিকল্পিত পয়োনিষ্কাশন (ড্রেনেজ) ব্যবস্থা না থাকায় পানি জমে সড়ক দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়।

এলাকাবাসী ও সড়ক ব্যবহারকারীরা দ্রুত রাস্তাগুলো মেরামত করে যানচলাচলের উপযোগী করে তোলার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

শিক্ষক হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রের বাবা গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকার আশুলিয়ায় নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীর স্ট্যাম্পের আঘাতে শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থীর বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৯ জুন) রাতে কুষ্টিয়ার কুমারখালী এলাকা তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ওই শিক্ষার্থীর বাবা উজ্জল হাজী আশুলিয়ার চিত্রাশাইল এলাকার বাসিন্দা।

শিক্ষক উৎপলকে হত্যার ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রকে প্রধান আসামি করে এবং অজ্ঞাত আরও তিন-চার জনের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন নিহত শিক্ষকের ভাই অসীম কুমার।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজে মেয়েদের ক্রিকেট খেলা চলছিল। শিক্ষক উৎপল কুমার মাঠের পাশে দাঁড়িয়ে খেলা দেখছিলেন। দুপুরের দিকে হঠাৎ এক ছাত্র মাঠ থেকে ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প নিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে পালিয়ে যায়। উৎপলকে দ্রুত উদ্ধার করে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিউতে রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ভোরে তার মৃত্যু হয়। হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

;

প্রেমিকা নিয়ে পালিয়েছে ছেলে, মাকে পুড়িয়ে মারল প্রেমিকার পরিবার



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহ নগরীর চর ঈশ্বরদিয়া এলাকায় লাইলী বেগম (৩৮) নামে এক নারীকে হাত-পা বেঁধে পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার ছেলের প্রেমিকার পরিবারের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) সন্ধ্যার দিকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত লাইলী বেগম নগরীর ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের চর ঈশ্বরদিয়া এলাকার আব্দুর রশিদের স্ত্রী।

নিহত লাইলী বেগমের স্বামী আব্দুর রশিদ বলেন, প্রতিবেশী খোকন ওরফে কাজল মিয়ার মেয়ে খুকি আক্তারের সঙ্গে আমার ছেলে সিরাজুল ইসলামের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি ওই মেয়ের বিয়ের কথাবার্তা চলতে থাকে। বিষয়টি মেয়ে জানতে পেরে রোববার আমার ছেলের সঙ্গে পালিয়ে যায়। তারা ফিরে না এলেও বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছিল।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার সালিস হওয়ার কথা ছিল। সকাল ৮টার দিকে আমি কাজের উদ্দেশ্যে বেরিয়ে গেলে মেয়ের মা কনা আক্তার, চাচি নাসরিন, আসমা ও রুমা বাড়িতে এসে আমার স্ত্রীর হাত-পা বেঁধে একটি ঘরে নিয়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে। খবর পেয়ে বাড়িতে ফিরে দগ্ধ অবস্থায় লাইলীকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করেন। সন্ধ্যার দিকে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় লাইলীর মৃত্যু হয়।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ বলেন, মরদেহ ঢাকা থেকে আনার প্রক্রিয়া চলছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী আটজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। আসামি গ্রেফতারে একাধিক টিম কাজ করছে।

;

রাজধানীতে ট্রাকের ধাক্কায় কলেজশিক্ষার্থী নিহত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর শাহবাগে শিক্ষা ভবনের সামনে দ্রুতগামী একটি ট্রাকের ধাক্কায় মো. মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (২১) নামে এক কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত আড়াইটার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের বন্ধু ফুয়াদ জানান, মোটরসেইকেলে করে যাওয়ার সময় শাহবাগের গনি রোড সংলগ্ন শিক্ষা ভবনের সামনে দ্রুতগামী একটি ট্রাক মোহাইমিনুলকে ধাক্কা দেয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।

;

এক ঘণ্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার আউলিয়ানগরে ঢাকাগামী ভাওয়াল এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হওয়ায় ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। এক ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর স্বাভাবিক হয়েছে ট্রেন চলাচল।

বুধবার (২৯ জুন) সকাল পৌনে ৮টার দিকে আউলিয়ানগর স্টেশনের আউটার সিগন্যালের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মির্জা মো. মূসা বলেন, ময়মনসিংহের কেওয়াটখালী লোকোশেড থেকে একটি উদ্ধারকারী রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিকল ইঞ্জিন সরিয়ে নিলে ঘণ্টা খানেক পর আবারও শুরু হয় ট্রেন চলাচল।

;