কুড়িগ্রামে বাড়ছে নদ-নদীর পানি, বন্যার শঙ্কা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুডিগ্রাম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্র, দুধকুমার, ধরলা ও তিস্তাসহ সবকটি নদনদীর পানি বাড়ছে। অব্যাহত পানি বৃদ্ধিতে এসব নদ-নদী অববাহিকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ফসলি জমি তলিয়ে গেছে, বাড়িঘরে চারপাশে তৈরি হয়েছে জলাবদ্ধতা। বিশেষত বোরো ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন অববাহিকার কৃষকরা।

সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ব্রহ্মপুত্র নদের চরাঞ্চলের নিচু এলাকা ইতিমধ্যে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে। অনেকের বাড়িঘরের চারপাশে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। তবে সহসাই বন্যার আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)।

যাত্রাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা বেলাল হোসেন বলেন, প্রতিদিনই পানি বাড়ছে। ব্রহ্মপুত্র ও দুধকুমার নদের তীরবর্তী অনেক ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়ে গেছে। বাসিন্দারা বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুতি নেওয়ার চেয়ে নিজেদের আবাদ করা ধান রক্ষায় দিশাহারা হয়ে পড়েছেন।

যাত্রাপুর হাট এলাকার বাসিন্দা উজ্জ্বল জানান, গত কয়েকদিন ধরে দ্রুত পানি বাড়ছে। ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি পেয়ে যাত্রাপুর হাটের নিচু এলাকায় পানি প্রবেশ করেছে।

নাগেশ্বরী উপজেলার বাসিন্দা মামুনর রশীদ জানান, তাদের এলাকাতেও নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। উপজেলার বামনডাঙা ইউনিয়ন ঘুরে এসে তিনি বলেন, সেখানে নদীর পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি জলাবদ্ধতার কারণে স্থানীয় বাসিন্দাদের ধান ক্ষেত পানিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়েছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে মামুন বলেন, কুটিবামনডাঙা এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের তীর সংরক্ষণ কাজের সাইটে ঠিকাদারের লোকজন পানি নিষ্কাশনের পাইপ বন্ধ করায় সেখানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে পাউবো জানিয়েছে, আগামী কয়েকদিন ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে। ধরলা ও তিস্তাসহ অন্যান্য নদনদীর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে। তবে এখনও জেলায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার পূর্বাভাস পাওয়া যায়নি বলে জানায় পাউবো।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, স্থানীয়ভাবে বৃষ্টিপাত এবং সীমান্তবর্তী ভারতীয় অংশে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে জেলায় নদনদীর পানি বাড়ছে। তবে এখনও বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার পূর্বাভাস নেই।

আগামী কয়েকদিন ব্রহ্মপুত্রের পানি কিছুটা বাড়ার সম্ভাবনা থাকলেও অন্যান্য নদনদীর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে বলে জানান তিনি।

তিস্তা অববাহিকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ থাকলেও তা মেরামতে কাজ চলছে জানিয়ে পাউবো নির্বাহী প্রকৌশী বলেন, জেলায় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নদী ভাঙন রোধে কাজ চলমান রয়েছে। প্রচুর পরিমাণ জিও ব্যাগ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যেকোনও জরুরি অবস্থা মোকাবিলায় প্রস্ততি রয়েছে।

সম্ভাব্য বন্যা মোকাবিলায় জেলা প্রশাসনের সব ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম তিনি বলেন, বন্যা মৌসুম এসে গেছে। আমরা জেলা পর্যায়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সভা করেছি। সংশ্লিষ্ট সকল বিভাগকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বন্যায় উদ্ধার তৎপরতা ও ত্রাণ সহায়তা বিতরণের প্রস্তুতির বিষয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, প্রত্যেক উপজেলায় আমাদের স্পিড বোর্ড রয়েছে। এছাড়াও ত্রাণ সামগ্রী পরিবহনের জন্য জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি এনজিও গুলোরও কিছু নৌকা রয়েছে। জেলা প্রশাসনের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা শাখায় পর্যাপ্ত খাদ্য ও টাকার বরাদ্দ রয়েছে। প্রয়োজনে আরও বরাদ্দ চাওয়া হবে বলেন তিনি।

১ জুলাই থেকে বিআরটিসির ঈদের টিকেট বিক্রি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
১ জুলাই বিআরটিসির ঈদযাত্রার টিকেট

১ জুলাই বিআরটিসির ঈদযাত্রার টিকেট

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল আহজা উপলক্ষে ঈদযাত্রায় 'ঈদ স্পেশাল সার্ভিস' চালু করছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন (বিআরটিসি)।বিআরটিসির বিভিন্ন ডিপোতে আগামী ১ জুলাই থেকে ঈদযাত্রার টিকিট পাওয়া যাবে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বিআরটিসি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ঈদ উপলক্ষে আগামী ৪ জুলাই থেকে বিশেষ সার্ভিস চলবে। ঈদের পর ১২ জুলাই পর্যন্ত সেবা চালু থাকবে। ঢাকার মতিঝিল, জোয়ারসাহারা, কল্যাণপুর, গাবতলী, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, যাত্রাবাড়ি, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ বাস ডিপো থেকে ঈদের আগাম টিকেট পাওয়া যাবে।

মতিঝিল বাস ডিপো থেকে খুলনা, দাউদকান্দি, দিনাজপুর, রংপুর ও নেত্রকোণা রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।

কল্যাণপুর বাস ডিপো থেকে মিলবে রংপুর, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, নওগাঁ, নেত্রকোনা, রানিশংকৈল, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর রুটের টকেট পাওয়া যাবে।

গাবতলী ডিপো থেকে আরিচা, রংপুর, দিনাজপুর, আরিচা ও পাটুরিয়া, যশোর রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।

জোয়ারসাহারা বাস ডিপো থেকে পয়সারহাট, বিশ্বরোড-পাঁচদোনা, রংপুর, নওগাঁ, জয়পুরহাট, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ ও বগুড়া রুটের টিকেট পাওয়া যবে।

মিরপুর বাস ডিপো থেকে বরিশাল, রংপুর, কুষ্টিয়া, বগুড়া, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ ও নওগাঁ রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।

মোহাম্মদপুর বাস ডিপো থেকে শরিয়তপুর ফরিদপুর, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া ও নওগাঁ রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।গাজীপুর বাস ডিপো থেকে বিশ্বরোড-পাঁচদোনা, টাঙ্গাইল, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ, রংপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও ও কুড়িগ্রাম রুটের টিকেট পাওয়া যাবে। যাত্রাবাড়ি বাস ডিপো থেকে ঢাকা-রংপুর, শরিয়তপুর, রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।

নারায়ণগঞ্জ বাস ডিপো থেকে ঢাকা-গোসাইরহাট, রংপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, নীলফামারী, নওগাঁ, বগুড়া, গাইবান্ধা ও পাবনা রুটের টিকেট পাওয়া যাবে। কুমিল্লা বাস ডিপো থেকে ঢাকা-রংপুর রুটের টিকেট পাওয়া যাবে। নরসিংদী বাস ডিপো থেকে নরসিংদী-মাদারিপুর, চরমুগুরিয়া, রংপুর রুটের টিকেট পাওয়া যাবে।

;

নোয়াখালীতে উদ্বোধনের একদিন পর বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধ

বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধ

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) দ্বিতল বাস চালুর একদিন পর নোয়াখালীর সোনাপুর-চেয়ারম্যানঘাট সড়কে বন্ধ হয়ে গেছে বাস সার্ভিসটি।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) পরিবহন মালিক সংগঠনের বাধার মুখে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) দ্বিতল বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়। এর আগে, গতকাল বুধবার ওই সড়কে এ বাস সার্ভিস চালু করা হয়।

নোয়াখালী জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান জানান, বিষয়টি সমাধানের জন্য বৈঠক ডাকা হয়েছে। বাধাদানকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অপরদিকে, বিআরটিসির বাস বন্ধের প্রতিবাদে শুক্রবার (১ জুলাই) বেলা ১১টায় সুবর্ণচর উপজেলার হারিছ চৌধুরীর বাজার প্রধান সড়কে অবরোধের ডাক দিয়েছেন স্থানীয়রা। বিষয়টি দ্রুত সমাধান না হলে এই সড়কে মালিক সমিতির কোনো বাস চলতে দেবেন না স্থানীয়রা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালীর চেয়ারম্যানঘাট টু সোনাপুর সড়কে স্থানীয়দের দাবির প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গতকাল বুধবার বিআরটিসির দ্বিতল সার্ভিসটির উদ্বোধন করেন নোয়াখালী জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান।

সোনাপুর শহর এলাকা থেকে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে এক ঘণ্টা পরপর বাস ছেড়ে যাওয়ার সময় নির্ধারণ করা হয়। সোনাপুর থেকে চেয়ারম্যানঘাট ভাড়া ধরা হয়েছে ৪০ টাকা,সোনাপুর থেকে আটকপালিয়ার বাজার ২০ টাকা।

;

রেলভবনে অভিযান: চুক্তি বহির্ভূত তথ্য পেয়েছে দুদক



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
রেলভবনে অভিযান: চুক্তি বহির্ভূত তথ্য পেয়েছে দুদক

রেলভবনে অভিযান: চুক্তি বহির্ভূত তথ্য পেয়েছে দুদক

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ রেলওয়ে বহরে যুক্ত হওয়া ১০টি মিটার গেজ লোকোমোটিভ (ইঞ্জিন) ক্রয়ে দুর্নীতি ও অনিয়ম সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে রেল ভবন, ঢাকাতে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জেসমিন আক্তার ও উপসহকারী পরিচালক মোঃ কামিয়াব আফতাহি-উন-নবী এর সমন্বয়ে গঠিত এনফোর্সমেন্ট টিম এই অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে টিম সচিব এবং মহাপরিচালক মহোদয়সহ প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিকট থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে।

রেকর্ডপত্র পর্যালোচনায় দেখা যায় ইঞ্জিনগুলোতে তিনটি ক্যাপিটাল কম্পোনেন্টের ভিন্নতা আছে, যা চুক্তি বহির্ভূত। চুক্তিতে ৩০০০ হর্সপাওয়ারের ইঞ্জিন দেওয়ার কথা থাকলেও ২০০০ হর্সপাওয়ারের ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে, টিএ-১২ মডেলের অল্টারনেটরের পরিবর্তে টিএ-৯ মডেল সংযোগ করা হয়েছে, এছাড়া ২৯০৯-৯ মডেল এর পরিবর্তে ২৯০৯ মডেল দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রেলের লোকোমোটিভ ইঞ্জিন ক্রয়ের নিমিত্তে ২০১৫ সালে ‘‘বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য লোকোমোটিভ রিলিফ ক্রেন এবং লোকোমোটিভ সিমুলেটর সংগ্রহ’’ শীর্ষক একটি প্রকল্প  হাতে নেওয়া হয়।  উক্ত প্রকল্পের মেয়াদ দুইদফায় বৃদ্ধি করে জুন ২০২২ সাল পর্যন্ত করা হয়।

রেকর্ডপত্র পর্যালোচনাপূর্বক কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে কমিশনে প্রতিবেদন দাখিল করবে এনফোর্সমেন্ট টিম।

;

নতুন পুলিশ কমিশনার পেল চার মহানগর



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
নতুন পুলিশ কমিশনার পেল চার মহানগর

নতুন পুলিশ কমিশনার পেল চার মহানগর

  • Font increase
  • Font Decrease

রংপুর ও ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজিসহ ২২টি পদে রদবদল করা হয়েছে। এছাড়া নতুন কমিশনার দেওয়া হয়েছে চট্টগ্রাম, গাজীপুর, বরিশাল ও রংপুর মহানগরে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ শাখার উপ-সচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে নতুন কমিশনারদের নিয়োগ দেয়া হয়।

চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনারের দায়িত্ব পেয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়।

ঢাকা নৌপুলিশ ইউনিটের অতিরিক্ত ডিআইজি থেকে উপমহাপরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি পাওয়া মোল্যা নজরুল ইসলামকে গাজীপুরের পুলিশ কমিশনারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি থেকে সম্প্রতি উপমহাপরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি পাওয়া নুরে আলম মিনাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে রংপুরের নতুন পুলিশ কমিশনার হিসেবে।

আর বরিশাল মহানগরের পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মো.সাইফুল ইসলাম। যিনি চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি থেকে সম্প্রতি উপমহাপরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন।

;