ময়মনসিংহে গাছ পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ময়মনসিংহে গাছ পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু

ময়মনসিংহে গাছ পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে চলন্ত অটোরিকশায় গাছ পড়ে সালমা (৩২) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ মে) রাত ৮টায় উপজেলার যশরা ইউনিয়নের মুক্তাপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত সালমা আক্তার ওই এলাকার মিজানুর রহমানের স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, সালমা গফরগাঁও থেকে সেলাই মেশিন ও গ্যাসের সিলিন্ডার কিনে অটোরিকশা করে বাড়িতে যাচ্ছিল। রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে ঝড়ো বাতাস শুরু হয়। ঝড়ে একটি কৃঞ্চচুড়া গাছ ভেঙে অটোরিকশার ওপরে পড়ে। এতে সালমা আক্তার ঘটনাস্থলেই মারা যান।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম রিয়েল বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। নিহতের দুইটি সন্তান রয়েছে।

গফরগাঁও থানার ওসি ফারুক আহম্মেদ বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

কমলাপুরে আজও টিকিটপ্রত্যাশীদের উপচেপড়া ভিড়



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদ উপলক্ষে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির তৃতীয় দিনেও কমলাপুর রেল স্টেশনে টিকিটপ্রত্যাশীদের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। অনেকেই টিকিটের প্রত্যাশায় রাত থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। উদ্দেশ্য একটাই, ঈদ যাত্রার সোনার হরিণ যে করেই হোক পেতেই হবে।

আজ রোববার (৩ জুলাই) দেওয়া হচ্ছে বৃহস্পতিবারের (৭ জুলাই) টিকিট।

শনিবার (২ জুলাই) থেকেই লাইনে দাঁড়িয়েছেন টিকিটপ্রত্যাশীরা। অপেক্ষার প্রহর দিন পেরিয়ে রাত। আর মধ্যরাত থেকে কাউন্টারের সামনের অংশ কানায় কানায় পূর্ণ টিকিটপ্রত্যাশীদের সমাগমে।

লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা টিকিট প্রত্যাশী কামাল উদ্দিন বলেন, পরিবারের সদস্য নিয়ে বাড়ি যেতে হবে, চারটি টিকিট লাগবেই। ঈদে ট্রেনের চেয়ে আরামদায়ক ও নিরাপদ আর কোনো পরিবহন নেই। তাই একা কষ্ট করলেও পরিবার অন্তত নিরাপদে পৌঁছাক সেজন্য রাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়েছি।

‘টিকিট যার ভ্রমণ তার’ নিশ্চিত করতে যাত্রীদের এনআইডি বা জন্ম নিবন্ধন সনদের ফটোকপি কাউন্টারে প্রদর্শন করে টিকিট কিনতে হচ্ছে। একজন যাত্রী একসাথে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন। এবার ঢাকার কমলাপুর স্টেশনসহ পাঁচটি স্থানে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ৩, ৪ ও ৫ জুলাই দেওয়া হবে পর্যায়ক্রমে ৭, ৮ ও ৯ জুলাইয়ের টিকিট। টিকিট কেনার সময় দেখাতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্র। ৫০ ভাগ টিকিট পাওয়া যাবে কাউন্টারে এবং বাকি টিকিট মিলবে অনলাইনে।

কমলাপুর ছাড়াও রাজধানীর তেজগাঁও, বিমানবন্দর, বনানী ও গুলিস্তানের পুরানো রেলস্টেশনে আগাম টিকিট বিক্রি হচ্ছে। আর ৭ জুলাই থেকে বিক্রি করা হবে ফিরতি যাত্রার টিকিট।

১১ জুলাইয়ের ট্রেনের ফিরতি টিকিট ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি করা হবে ১১ জুলাই।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে যাত্রীদের সুবিধার্থে ৬ জোড়া বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হবে। সেগুলো হলো- দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল, চাঁদপুর স্পেশাল ১, ২, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম (পঞ্চগড়) ঈদ স্পেশাল, শোলাকিয়া স্পেশাল ১, ২।

;

সিলেট-সুনামগঞ্জে বন্যায় ৮৫ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিলেট ও সুনামগঞ্জে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মানুষের ঘরবাড়ির। এতে শ্রমজীবী, দরিদ্র মানুষেরা চরম বিপাকে পড়েছেন। বন্যার পানি কমলেও বাড়িঘর বিধ্বস্ত হওয়ায় এখনও লাখ লাখ মানুষ নিজের ভিটায় ফিরতে পারছেন না।

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, সিলেট জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৩৮৩টি পরিবার। শনিবার (০২ জুলাই) পর্যন্ত ৪১৬টি আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করছিলেন ৩৫ হাজার ৬৮৫ জন বন্যার্ত। বাকিরা ফিরে গেছেন বাড়িতে। কিন্তু আশ্রয়কেন্দ্রে ফিরে গিয়েও তাদের আশ্রয় মিলছে না। বেশিরভাগ মানুষের বাড়িঘর হয়তো পানিতে ভেসে গেছে, নতুবা বিধ্বস্ত হয়ে মাটিতে পড়ে আছে। যাদের কাঁচা ঘর এখনও দাঁড়িয়ে আছে সেগুলোর অবস্থাও নড়বড়ে। ঝড়-তুফান হলেই সেগুলো ধসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সিলেটের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মজিবুর রহমান সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো জেলার বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি ও ত্রাণ তৎপরতা–সম্পর্কিত এক প্রতিবেদনে এসব উল্লেখ করেছেন। তবে বন্যা পুরোপুরি কমে গেলে চূড়ান্ত ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করা হবে বলে জানান তিনি।

সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, সিলেট সিটি করপোরেশন ব্যতীত জেলার ১৩টি উপজেলা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ৪০ হাজার ৯১টি কাঁচা ঘরবাড়ি আংশিক বা সম্পূর্ণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ তালিকা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ঘরবাড়ি নির্মাণ বা মেরামতের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ বা অনুদান প্রদানের জন্য আবেদন জানানো হয়েছে।

এছাড়া সরকারি তথ্য অনুযায়ী, সুনামগঞ্জ জেলার ১২টি উপজেলা ও ৪টি পৌরসভায় ক্ষতিগ্রস্ত বসতঘরের সংখ্যা ৪৫ হাজার ২৮৮টি। এর মধ্যে সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে ৪ হাজার ৭৪৭টি। আংশিক ক্ষতি হয়েছে ৪০ হাজার ৫৪১টির। সুনামগঞ্জে অকাল বন্যায় ঘরবাড়ি হারিয়ে যখন বানভাসি মানুষ দিশেহারা তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি পুনরায় নির্মাণের জন্য ৫ হাজার পরিবারকে ৫ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন।

সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন গত বুধবার সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো জেলার বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি ও ত্রাণ তৎপরতা–সম্পর্কিত এক প্রতিবেদনে এসব উল্লেখ করেছেন।

টাকার অঙ্কে ঘরবাড়ির ক্ষতি কত—এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এটি এই মুহূর্তে বলা কঠিন। তবে আগামী সপ্তাহে আমরা বরাদ্দ পাব এবং ঘরবাড়ি সংস্কারে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সরকারি সহায়তা দেওয়া শুরু করব।

স্মরণকালের এবারের ভয়াবহ বন্যায় ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অনেকের বাড়িঘর তছনছ হয়ে গেছে। তারা যাতে পুনরায় ঘর বানিয়ে বসবাস করতে পারেন সেই জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে বরাদ্দও দেওয়া হয়েছে।

;

ট্রেনের ধাক্কায় বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর প্রকৌশলী নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
ট্রেনের ধাক্কায় বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর প্রকৌশলী নিহত

ট্রেনের ধাক্কায় বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর প্রকৌশলী নিহত

  • Font increase
  • Font Decrease

নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর পূর্ব পাড়ে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে রেল লাইনের কাজ শেষে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে রেল লাইন পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় গুরুতর আহত তমা কনস্ট্রাকশনের সাইট ইঞ্জিনিয়ারকে ঢাকায় নেওয়ার পরে মারা গেছেন।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নিহতের খালাতো ভাই জায়েদ।

এর আগে শনিবার (০২ জুলাই) বিকালে কালিহাতী উপজেলার বিয়ারামারুয়া এলাকায় জামালপুরগামী ধলেশ্বরী এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় তিনি আহত হোন।

নিহত প্রকৌশলী জাবের খান জনি (২৪) ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তমা কনস্ট্রাকশনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি কালিহাতী উপজেলার খড়শিলা গ্রামের বাসিন্দা।

নির্মাণাধীন রেল লাইনের কর্মীরা জানান, জাবের তমা কনস্ট্রাকশনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করতেন। বিকেলে নির্মাণাধীন নতুন রেল লাইনের কাজ শেষে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে রেললাইন পার হওয়ার সময় বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্ব রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা জামালপুরগামী ধলেশ্বরী এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিয়ারামারুয়া এলাকায় পৌঁছালে জাবেরকে ধাক্কা দেয়।

এসময় তার পা বিচ্ছিন্ন হয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করলে ঢাকায় নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

তবে, এবিষয়ে কোনও তথ্য পাননি বলে জানান বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্ব রেলস্টেশন মাস্টার আব্দুল মান্নান।

;

শাক-সবজি উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ দশে বাংলাদেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
শাক-সবজি উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ দশে বাংলাদেশ

শাক-সবজি উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ দশে বাংলাদেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

কৃষি মন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বাংলাদেশ গত এক দশকে কৃষি ক্ষেত্রে স্বনির্ভরতা ও উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে এবং বিভিন্ন শস্য ও শাক-সবজি উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় স্থান পেয়েছে।

নেদারল্যান্ডসের হ্যাগে অনুষ্ঠিত ৬ মাস ব্যাপি ‘ফ্লোরিয়াডে এক্সপো ২০২২’ তে যোগদান করতে গিয়ে শুক্রবার  বাংলাদেশ ভবনে গবেষণা বিষয়ক ওয়াগেনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট ড.সুকে হিমোভারার সাথে  বাংলাদেশের কৃষি  রুপান্তর  বিষয়ে আলোচনাকালে এ কথা বলেন।

আজ ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ওয়াগেনিংগেন বর্তমানে বিশ্বের শীর্ষ কৃষি গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃত। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কৃষি পণ্যের জাত উন্নয়ন ও উন্নততর কৃষি-প্রযুক্তি উদ্ভাবনের জন্য ওয়াগেনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে নিয়মিতভাবে প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করে।


বৈঠকে নেদারল্যান্ডসে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মু. রিয়াজ হামিদুল্লাহ বাংলাদেশের কৃষি গবেষণামূলক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে ওয়াগেনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ গবেষণামূলক প্রকল্প চালুর বিষয়টি উত্থাপন করলে ওয়াগেনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট প্রস্তাবকে স্বাগত জানান।

কৃষিমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্টকে বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যানের কৃষি ক্ষেত্রকে বৃহত্তর অবস্থানে তুলে ধরার বিষয়ে আলোচনা করেন এবং বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

কৃষি মন্ত্রী ড. সুকে-কে ওয়াগেনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানান।

কৃষিমন্ত্রী ড. রাজ্জাক বাংলাদেশের কৃষি ক্ষেত্রে উন্নত প্রযুক্তি ও গবেষণালব্ধ ফলাফল প্রয়োগের মাধ্যমে বিভিন্ন শস্য ও পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি, শস্য বহুমুখীকরণ, কৃষিজাত পণ্য সংরক্ষণ ও আধুনিক উপায়ে বাজারজাতকরণ ও জলবায়ু পরিবর্তন জনিত অভিযোজন সংক্রান্ত প্রায়োগিক গবেষণার বিষয়ে আলোচনা করেন।

;