দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের উদ্বোধন আজ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের উদ্বোধন আজ

দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের উদ্বোধন আজ

  • Font increase
  • Font Decrease

আজ চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) স্থাপিত শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সকাল দশটার সময় প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে এটি উদ্বোধন করবেন। চুয়েট শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর দেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সর্বপ্রথম স্থাপিত আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণভবন প্রান্ত থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর, শেখ জামাল ডরমিটরি ও রোজী জামাল ডরমিটরির উদ্বোধন করবেন বলে জানা গেছে। অনুষ্ঠানে সংযুক্ত থাকবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

স্বাগত বক্তব্য দেবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। অনুষ্ঠানটি গণভবন, আইসিটি মন্ত্রণালয় ও চুয়েট তিন প্রান্ত থেকে একযোগে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রান্ত থেকে চট্টগ্রাম-৬ সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকসহ সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, চুয়েটের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থী এবং শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটররের উপকারভোগী বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেবেন।

শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর প্রকল্পের আওতায় চুয়েট ক্যাম্পাসে ৪.৭ একর জমির উপর ১০ তলাবিশিষ্ট একটি ইনকিউবেশন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। যার আয়তন ৫০ হাজার বর্গফুট। তাছাড়া ৩৬ হাজার বর্গফুটের ৬ তলাবিশিষ্ট একটি মাল্টিপারপাস প্রশিক্ষণ ভবন এবং ২০ হাজার বর্গফুট আয়তনের ৪ তলাবিশিষ্ট আবাসিক ডরমিটরি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

ইনকিউবেশন ভবনের মধ্যে রয়েছে- স্টার্টআপ জোন, আইডিয়া বা ইনোভেশন জোন, ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিক কোলাবোরেশন জোন, ব্রেইনস্ট্রর্মিং জোন, ই-লাইব্রেরি, ডাটা সেন্টার, রিসার্চ ল্যাব, বঙ্গবন্ধু কর্ণার,প্রদর্শনী সেন্টার, ভিডিও কনফারেন্সিং কক্ষ এবং সভাকক্ষ।

এছাড়াও এই ভবনে উদ্যোক্তা ও গবেষকদের কাজের সুবিধার্থে একটি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ল্যাব, একটি মেশিন লার্নিং ল্যাব, একটি বিগ ডাটা ল্যাব, অপটিক্যাল ফাইবার ব্যাকবোন, একটি সাব-স্টেশন ও সোলার প্যানেল রয়েছে।

এর বাইরে ব্যাংক ও আইটি ফার্মের জন্য পৃথক কর্নার, অত্যাধুনিক সাইবার ক্যাফে, ফুড কোর্ট, ক্যাফেটেরিয়া, রিক্রিয়েশন জোন, মেকার স্পেস, ডিসপ্লে জোন, মিডিয়া কাভারেজ জোন, নিজস্ব পার্কিং সুবিধা রয়েছে ইনকিউবেশন ভবনে।

মাল্টিপারপাস প্রশিক্ষণ ভবনে ২৫০ জনের ধারণক্ষমতার অডিটোরিয়াম, ৩০ জনের ধারণক্ষমতাসম্পন্ন পৃথক ৮টি কম্পিউটার ল্যাব ও কাম সেমিনার কক্ষ রয়েছে। আর ডরমিটরি ভবনের একটি পুরুষ ও অন্যটি নারীদের জন্য। প্রতিটি ডরমিটরিতে ৪০টি কক্ষ রয়েছে।

শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক জানান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে ১১৭.৭ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই ইনকিউবেটর। একাডেমিক প্রতিষ্ঠানে গবেষণা উদ্ভাবন এবং উদ্যোক্তা তৈরির কার্যকরী ব্যবস্থা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ভিত্তিক এই আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর স্থাপন করা হয়েছে। এই ইনকিউবেটর তৈরির উদ্দেশ্যে হলো দেশে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সফল উদ্যোক্তা তৈরি, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে গবেষণা ও উদ্ভাবনী কার্যক্রমকে উৎসাহিত করা, ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া কোলাবোরেশনকে সম্মৃদ্ধ করার মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের সুযোগ আরও অবারিত করা এবং সর্বোপরি তথ্যপ্রযুক্তি খাতে আয় প্রত্যাশিত মাত্রা অর্জন।

চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ স্নাতক (গ্র্যাজুয়েট) তৈরির মাধ্যমে ২০৪১ সালের মধ্যে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে এই ইনকিউবেটর ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

লক্ষ্মীপুরে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুরে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

লক্ষ্মীপুরে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

  • Font increase
  • Font Decrease

শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে লক্ষ্মীপুরে পূজা উদযাপন পরিষদের আয়োজনে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বিকালে পৌর শহরের শ্যাম সুন্দর জিউর আখড়া প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মন্দির প্রাঙ্গণ এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় সনাতন সম্প্রদায়ের নারী পুরুষরা বিভিন্ন ব্যানার ফেষ্টুন নিয়ে অংশগ্রহণ করেন।

এরআগে শ্যাম সুন্দর জিউর আখড়ায় আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা প্রশাসক মোঃ আনোয়ার হোসাইন আকন্দ এর সভাপতিত্বে

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এড. নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শংকর মজুমদারের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান পিপিএম সেবা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিয়া মোহাম্মদ গোলাম ফারুক পিংকু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পলাশ কান্তি নাথ, পৌর মেয়র মোজাম্মেল হায়দার মাসুম ভূঁইয়া, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডাঃ আশফাকুর রহমান মামুন প্রমুখ।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এড. শৈবাল কান্তি সাহা, পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এড. জহর লাল ভৌমিক, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের জেলা সভাপতি এড. রতন লাল ভৌমিক, সাধারন সম্পাদক স্বপন দেবনাথ, যুব ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শিমুল সাহা, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সদর উপজেলা সভাপতি শিপন মজুমদার, মহিলা ঐক্য পরিষদের সভাপতি বনশ্রী পাল,  সাধারন সম্পাদক বানু নাগ, যুব ঐক্য পরিষদের জেলা সভাপতি রাজ বিজয় চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক ঝুটন কুরী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান উৎসব। হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষেরা মহা আনন্দে এ উৎসব পালন করে থাকেন। ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনার্থে সকল ধর্মের মানুষকে নিজ নিজ ধর্ম ও জীবন দর্শনের চর্চা আয়ত্ব করার প্রয়োজন। তাতে আমাদের মনের গভীরে জমে থাকা হিংসা, লোভ, অসততা দূর করে একজন পরিপূর্ণ মানুষ হতে সাহায্য করবে।

এছাড়া জন্মাষ্টমী উপলক্ষে গীতাযজ্ঞ, শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে চিত্রাংকন প্রতিযোগি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

;

ভারত সফরে আজমির শরীফ যাবেন প্রধানমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে আজমির শরীফ যাবেন প্রধানমন্ত্রী

সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে আজমির শরীফ যাবেন প্রধানমন্ত্রী

  • Font increase
  • Font Decrease

সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ভারত সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সফরের সময় বিখ্যাত আজমির শরীফ দরগায় যাবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী ৬ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর ভারতে থাকবেন বলে জানা গেছে। এর আগেও আজমির শরীফে গিয়েছেন তিনি।

২০১৭ সালে তার সাম্প্রতিকতম সফরেও আজমিরে যান তিনি। সেখানে খাজা মঈনুদ্দিন চিশতির মাজারে চাদর দিয়েছিলেন হাসিনা। তিনি ২০১০ সালেও মাজারটি পরিদর্শন করেন। সেই সময় তিনি দ্বিতীয়বারের মতো তার দেশের প্রধানমন্ত্রী হন।

শেখ হাসিনার ভারত সফরের সময় কানেক্টিভিটি এবং বাণিজ্যের মতো বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে। উভয় পক্ষই ১৯৬৫-এর আগের রেল সংযোগ এবং অন্যান্য সংযোগ পুনরুদ্ধার করতে আগ্রহী বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, এর আগেও হাসিনা আজমির শরিফে গিয়েছেন। ২০১৭ সালে হাসিনা খাজা মঈনুদ্দিন চিশতির মাজারে চাদর দিয়েছিলেন । তিনি ২০১০ সালেও দ্বিতীয় বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সময়েও মাজারটি পরিদর্শন করেন। হাসিনা ২০০৯ সাল থেকে টানা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। তিনি ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনেও জিতেছেন।

;

ভারতবর্ষ আওয়ামী লীগের অকৃত্রিম বন্ধু: তথ্যমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ

  • Font increase
  • Font Decrease

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আওয়ামী লীগ কোনও বিদেশি শক্তির শক্তিতে বলিয়ান নয়, আমরা জনগণের শক্তিতে বলিয়ান। সমস্ত বৈদেশিক রাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক। ভারতবর্ষ আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড: পঁচাত্তর পরবর্তী বাংলাদেশের রাজনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা কারবালার প্রান্তরের মর্মন্তুদ কাহিনীর কথা জানি। কারবালার প্রান্তরে ইমাম হোসাইনকে জবাই করা হয়েছিল। কিন্তু কারবালার প্রান্তরে নারী ও শিশুদের হত্যা করা হয়নি, তাদের সবাইকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। অথচ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নারী এবং শিশুদের হত্যা করা হয়েছে। ১০ বছরের শিশু শেখ রাসেল, চার বছরের সুকান্ত বাবু, ১১ বছরের বেবি সেরনিয়াবাতকে হত্যা করা হয়েছে। অন্তঃসত্ত্বা বেগম আরজু মনিকে হত্যা করা হয়েছে। সেদিন প্রকৃতপক্ষে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ সংঘটিত হয়েছিল।

ইতিহাসের পাতায় জিয়াউর রহমান একজন খুনি, বিশ্বাস ঘাতক এবং একজন সিরিয়াল কিলার হিসেবে স্থান থাকবে উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, কারণ বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের খবর সকালবেলা যখন তার কাছে পৌঁছানো হয় তখন তিনি বলেন, ‘সো হোয়াট ভাইস প্রেসিডেন্ট ইজ দেয়ার।’ একজন সেনাপতি নিজের জীবনকে বিপন্ন করে হলেও রাষ্ট্র এবং রাষ্ট্রপতিকে রক্ষা করার শপথ গ্রহণ করে। তার তখন দায়িত্ব ছিল ছুটে গিয়ে রাষ্ট্রপতিকে রক্ষা করা, তিনি সেটি করেননি।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের অন্যতম কুশীলব শুধু তা নয়, নিজের ক্ষমতাকে নিষ্কণ্টক করার জন্য হাজার হাজার সেনাবাহিনীর অফিসার এবং জওয়ানকে হত্যা করেছে। কাউকে সামারি ট্রায়ালের মাধ্যমে, অনেককে ট্রায়াল ছাড়া। অনেক সেনাবাহিনীর অফিসারকে ঘুম থেকে তুলে বলা হয়েছে চলুন। কোথায় নিয়ে যাচ্ছে জিজ্ঞেস করলে বলা হতো আপনাকে ফাঁসি দেওয়া হবে ! প্রতিউত্তরে কোন বিচার হল না, কেন ফাঁসি দেওয়া হবে এমন প্রশ্নের কোন উত্তর মেলেনি। সকালবেলা নাস্তা করতে করতে জিয়াউর রহমান ফাঁসির আদেশে স্বাক্ষর করতো।

মন্ত্রী বলেন, তখন অনেকেই বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পটভুমি রচনার সঙ্গে যুক্ত ছিল। বাসন্তি একটা পাগল মেয়ে, তার গায়ে জাল পড়িয়ে সেই ছবি ছাপিয়ে মানুষ কাপড় পড়তে পারছেনা এই সংবাদ পরিবেশন করা হয়। অথচ জালের দামের চেয়ে একটা শাড়ির দাম অনেক কম। এখনো দুই’শ টাকা দিয়ে একটা শাড়ি পাওয়া যায়, এক হাজারের কমে জাল পাওয়া যায় না, তখনো তাই ছিল।

বিএনপি নেতা রিজভী আহমেদ বলেছেন আওয়ামী লীগকে নাকি বিদেশি শক্তি টিকিয়ে রেখেছে এ প্রসঙ্গ টেনে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগের শক্তি জনগণ, জনগণের শক্তিতেই আমরা বলিয়ান। তেলের মূল্য বৃদ্ধির পর নয়াপল্টন আর প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি যেভাবে লাফালাফি শুরু করল। বর্ষাকালে যখন প্রথম বৃষ্টি হয় পুকুরে পুঁটি ও মলা মাছ খুব লাফায়, বর্ষায় যখন চারিদিকে অথৈ পানি থাকে তখন ব্যাঙ খুব ডাকে, নানা ধরনের ডাক দেয়। এখন বিএনপির হাঁকডাক হচ্ছে ঠিক সেই রকম।

তিনি বলেন, সরকারকে নাকি ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিবে তারা। আওয়ামী লীগের ভীত অনেক গভীরে । শক্ত দেয়ালের মধ্যে কেউ ধাক্কা দিলে সে নিজেই পিছনে পড়ে যাই। বিএনপির অবস্থাও হচ্ছে তাই। বিএনপির পৃষ্টপোষকতায় সারাদেশের পাঁচ’শ জায়গায় বোমা ফোটানোর প্রতিবাদে ১৭ আগস্ট সমগ্র দেশব্যাপী আমরা বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছিলাম। ১৭ তারিখে আমাদের বিক্ষোভ ছিল মাত্র ট্রায়াল। কিন্তু এই ট্রায়াল দেখেই গতকাল মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবের যে সংবাদ সম্মেলন তাতে আমার মনে হল ট্রায়াল দেখেই তারা ভয় পেয়ে গেছে। আমরা মাত্র রিহার্সেল দিয়েছি, ফাইনালি নামব আগামী মাসে, তখন তারা পালানোর পথ খোঁজে পাবে না।

;

‘বিএনপি বিদেশিদের দিয়ে সরকার উৎখাত করার স্বপ্ন দেখছে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি বিদেশিদের দিয়ে সরকার উৎখাত করার স্বপ্ন দেখছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানের পরাজয় হলেও বর্তমান বাংলাদেশে তাদের এজেন্টরা এখনো বেঁচে আছে। তারা (বিএনপি) নানান সময়ে নানা মিথ্যাচার করে, অভিযোগ করে বিদেশিদের দিয়ে সরকার উৎখাত করার স্বপ্ন দেখছে।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই ফ্লোরে 'ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবার' শীর্ষক আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শোকসভার আয়োজন করে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন।

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার স্বপ্ন, আদর্শকে হত্যা করা হয়েছে। রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের জন্য তাকে হত্যা করা হয়নি। একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে পাকিস্তান ও তাদের দোসর পশ্চিমা মহাশক্তিধর রাষ্ট্র এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছিলো। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি। স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে হত্যা করতে চায়। বঙ্গবন্ধু, পরিবারের প্রতি এখনো তাদের বিদ্বেষ আছে। তাই তারা এখনো ষড়যন্ত্র করছে।

বাংলাদেশে রাজনীতিতে দু’টি ধারা সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি। আর আরেকটি হলো বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বে স্বাধীনতাবিরোধী প্লাটফর্ম। এই ধারা পাকিস্তানের নির্দেশে চলে।

হানিফ বলেন, বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ এক ও অভিন্ন। বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস বলতে গেলে বাংলাদেশ আসে আর বাংলাদেশের ইতিহাস বলতে গেলে বঙ্গবন্ধুর জীবনী চলে আসে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা কি কেনো গোলটেবিল বৈঠকে এসেছে? কোনো মেজর হুইসেলে এসেছে? জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা এসেছে।

আওয়ামী লীগের এ সিনিয়র নেতা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা বইয়ে লিখেন, বঙ্গবন্ধু হত্যায় কতিপয় বিপথগামী সেনাসদস্য জড়িত। শুধু কতিপয় বিপথগামী সদস্য জড়িত ছিলো না। ১৯৭১ সালে পরাজিত হওয়া পাকিস্তান ও তাদের মিত্র পশ্চিমা মহাশক্তিদর রাষ্ট্র পরাজয়ের পতিশোধ নিতে উন্মুখ ছিলো। তখন থেকেই তারা বঙ্গবন্ধু হত্যার প্লট রচনা করেছে। রাজাকার, আলবদরের ধাপে ধাপে পরিকল্পনা করেছে এবং বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে।

হানিফ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন ৫ সেপ্টেম্বর, তা তার এসএসসির সার্টিফিকেটে আছে। উনার পিতা মরহুম ইস্কান্দার মজুমদার মাসিক ‘নিপুণ’ এ এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, খালেদা জিয়া ৫ সেপ্টেম্বর জন্ম নিয়েছিলেন। আর ১৯৯৩ সালে ক্ষমতায় থাকতে তিনি ১৫ আগস্ট জন্মদিন পালন শুরু করেন। বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীতে সারা জাতি যখন কাতর থাকে সেই দিন মিথ্যা জন্মদিন পালন করে খালেদা জিয়া উল্লাস করেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের দণ্ডপ্রাপ্ত অনেকের রায় কার্যকর হয়েছে। কয়েকজন আত্মস্বীকৃত খুনি পালিয়ে আছে, তাদের রায় কার্যকর হয়নি। প্রত্যাশা করছি দ্রুত কার্যকর করে আমরা জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করবো।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি আনোয়ার-উল-আলম চৌধুরী পারভেজের সভাপতিত্বে সভায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি একে আজাদ, সাবেক মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার, জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা রকিবুল হাসান, বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন হক আরা মিনু, কবি ও সংস্কৃতিকর্মী তারিক সুজাত। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার।

;