জ্বালানির দাম বৃদ্ধি: ব্যয় বাড়বে জীবনযাত্রার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জ্বালানির দাম বৃদ্ধি: ব্যয় বাড়বে জীবনযাত্রার

জ্বালানির দাম বৃদ্ধি: ব্যয় বাড়বে জীবনযাত্রার

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা মহামারির চাপ সামলাতে না সামলাতেই রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্বজুড়ে দেখা দিচ্ছে অর্থনৈতিক মন্দা। দেশে দেশে দেখা দিচ্ছে মুদ্রাস্ফীতি, কমছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। যার প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশেও।

পরিস্থিতি সামলা দিতে বাংলাদেশ সরকার ব্যয় সংকোচন নীতি গ্রহণ করেছে। বিশেষ করে জ্বালানি তেল খাতে সরকারের ভর্তুকি একেবারে কমিয়ে আনা। যার জেরে শুক্রবার (০৫ আগস্ট) মধ্যরাতে রেকর্ড পরিমাণে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে।

বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্রতি লিটার ডিজেলের দাম বেড়েছে ৩৪, অকটেন ৪৬ এবং পেট্রোল ৪৪ টাকা। গতরাত ১২টার পর থেকে নতুন এই দাম কার্যকর হয়েছে।

দেখা গেছে, ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ৪২.৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে প্রতি লিটার ১১৪ টাকা। পেট্রোলের দাম ৫১.১৬ শতাংশ বেড়ে প্রতি লিটারের দাম হয়েছে ১৩০ টাকা। আর অকটেনের দাম বেড়েছে ৫১.৬৮ শতাংশ, প্রতি লিটার কিনতে গুনতে হবে ১৩৫ টাকা।

মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবং আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করতে এ দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, যতদিন সম্ভব ছিল ততদিন সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির চিন্তা করে নাই। অবস্থার প্রেক্ষিতে অনেকটা নিরূপায় হয়েই কিছুটা এডজাস্টমেন্টে যেতে হচ্ছে। ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য কমিয়ে দিয়েছিল। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সে অনুযায়ী জ্বালানি তেলের মূল্য পুনঃবিবেচনা করা হবে।

এদিকে জ্বালানি তেলের মৃল্য বৃদ্ধির খবরে শুক্রবার রাত থেকেই সড়কে গণপরিবহন শূন্য হতে থাকে।  হঠাৎ বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকটা বিপাকে পড়েন নগরবাসী।

পরিবহন শ্রমিকরা জ্বালানির দাম বাড়ানোর এই হারকে অস্বাভাবিক বলছেন। কারণ এর প্রভাব দ্রব্যমূল্যের ওপরও পড়বে। এমনিতেই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নাভিশ্বাস অবস্থা সাধারণ জনগণের। তার মধ্যে জ্বালানি তেলের এমন অস্বাভাবিক বৃদ্ধিতে ব্যয় বাড়বে সবকিছুতে।

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে গণপরিবহনের ভাড়া দ্রুত সমন্বয়ের দাবি জানিয়েছেন মালিকরা। তা না হলে যাত্রীদের সঙ্গে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার সম্ভবনা রয়েছে বলে তারা জানান। পরিবহন নেতারা বলছেন, তেলের দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গণপরিবহনের ভাড়া সমন্বয় না হলে সড়কে তার প্রভাব পড়বে।

বাস মালিকরা বলছেন, তেলের দাম যে হারে বেড়েছে, সে হারে ভাড়া না বাড়ালে রাস্তায় গাড়ি নামানো সম্ভব নয়। লস দিয়ে কেউ সড়কে গাড়ি নামাবে না। ভাড়া সমন্বয় না হওয়া পর্যন্ত যদি বাসে যাত্রীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করা হয়, তাহলে সমস্যা হবে। এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে সরকারকে দ্রুততম সময়ে ভাড়ার বিষয়টি সুরাহা করার দাবি জানান তারা।

চলমান করোনা মহামারির মধ্যে রাশিয়া-ইউক্রে যুদ্ধের জেরে বাংলাদেশের বহু মানুষ অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু হয়ে গেছে। সাধারণ মানুষ তাদের ব্যয় বহন করতে প্রতিনিয়ত হিমশিম খাচ্ছে। ঠিক এমনই এক ক্ষণে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হলো।

নদীতে আশানুরূপ ইলিশ না থাকায় বাড়ছে দাম



তরিকুল ইসলাম সুমন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
নদীতে আশানুরূপ ইলিশ না থাকায় বাড়ছে দাম

নদীতে আশানুরূপ ইলিশ না থাকায় বাড়ছে দাম

  • Font increase
  • Font Decrease

সাগরে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ মাছ ধরা পড়লেও আশানুরূপ ইলিশের দেখা মিলছে না নদীতে। নদীর ইলিশের স্বাদ নিতে অপেক্ষা করতে হবে আরো দু'মাস। সমুদ্র থেকে মিঠা পানিতে মাছ আসার জন্য যে পরিবেশ দরকার তা এখনও হয়নি। প্রয়োজনীয় বৃষ্টিপাত না থাকায় এখনো ইলিশ মাছ নদীতে আসা শুরু করেনি। তবে ভাদ্র ও আশ্বিন মাসে আমরা নদীতে প্রচুর ইলিশ মাছ পাব।

এমনটাই জানিয়েছেন, চাঁদপুর ইলিশ গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আবুল বাসার।

তিনি আরো বলেন, গত বছরের চেয়ে  এ বছর বেশি পরিমান ইলিশ আহরিত হবে। নদীতে ইলিশ আসবে নদীর পানি যখন স্বচ্ছ হবে। এজন্য প্রচুর বৃষ্টিপাত প্রয়োজন। বৃষ্টি হলে মাছ ঝাঁকে ঝাঁকে নদীতে আসবে।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে পর্যাপ্ত ইলিশ থাকার পরেও দাম মাদারণ মানুষের ক্রয়সীমার বাইরে। শুধু ইলিশের চেহারা দেখেই নিরাশ হয়ে ফিরতে হচ্ছে ক্রেতা সাধারণকে। তারা বলছেন,  বাজারে পর্যাপ্ত ইলিশ থাকা সত্ত্বেও দাম বাড়তি থাকার প্রয়োজন মিটাতে পাছেন না।

কাওরান বাজারে ইলিশ কিনতে আসা সাদিক মোল্লা জানান, তিন চারদিন আগে দাম কিছুটা কম থাকলেও এখন আর সে দামে পাওয়া যাচ্ছে  না।  তিনি আরো বলেন, ইলিশের দাম আজকে এতো বেশি যে আমাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে নেই। দুইদিন আগেও বাজারে এসেছিলাম, এত দাম ছিল না। আজ মনে হচ্ছে কেজিপ্রতি দুই-আড়াইশ টাকা বেশি।

তিনি বলেন, খবরে দেখি নদীতে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ছে। কিন্তু বাজারে তো সেই চিত্র নেই। দামটা অবশ্যই সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে রাখা উচিত।

এদিকে দাম বেশির বিষয়টি স্বীকার করে ব্যবসায়ীরা বলছেন, চাঁদপুর-বরিশাল এলাকার নদীগুলোতে তেমন ইলিশ ধরা পড়ছে না। সেখান থেকে ইলিশ সরাসরি আমাদের কাছে আসেও না। আড়তদাররাও যদি সরাসরি ইলিশ কিনতে পারত, তাহলে দাম অনেকটা কমে আসত। কিন্তু আড়তদারের ওপর আড়তদার, এর ওপর দাদন ব্যবসায়ী।

মাছ ব্যবসায়ী আবুল বাশার বলেন, গত দুই দিন থেকে দাম বেড়েছে। নদীতে মাছ বেশি পাওয়া যাচ্ছে না। শরীয়তপুর, চাঁদপুর, বরিশাল এসব এলাকায় নদীতে পানি কম। যে কারণে মাছও কমে এসেছে। নদীতে পানি যত বেশি হবে, ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশও বেশি ধরা পড়বে।

ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারের অধিকাংশই সামুদ্রীক।  নদীর মাছ নেই।  আপনি যদি পদ্মার ইলিশ খেতে চান, তাহলে দামটা একটু বেশিই গুণতে হবে। নদীতে যখন পানি বাড়বে, বেশি মাছ ধরা পড়বে, তখন দামও কমে যাবে। এখানে আমাদের কিছু করার নেই।

মাছের দাম প্রসঙ্গে মৎস্য গবেষক আবুল বাসার বলেন, মাছ ধরা থেকে বিপনন পর্যন্ত অনেক ব্যবসায়ী জড়ীত রয়েছেন। অনেক ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা মাছ মজুদ করে রাখেন। দুই তিন হাত ঘুরে বাজারে আসে। ফলে মাছের দাম বাড়ছে। তবে আগের তুলনায় ইলিশের দাম কমেছে। আগামীতে নদীতে মাছ এলে আরো দাম কমে আসবে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বড় আকৃতির এক কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১৪শ থেকে। দেড় কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১৭শ টাকা কেজি করে। এরচেয়ে বড় আকৃতির ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১৮শ থেকে ২ হাজার টাকা কেজি দরে। আর ছোট আকৃতির মধ্যে ৭০০-৮০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ৫০ টাকা কেজি করে।

;

সোমবার থেকে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা দেবে চীন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সোমবার থেকে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা দেবে চীন

সোমবার থেকে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা দেবে চীন

  • Font increase
  • Font Decrease

চীনে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হচ্ছে ভিসা। সোমবার (৮ আগস্ট) থে‌কে তাদের জন্য ভিসা এবং ট্রাভেল পারমিট চালু করবে ঢাকার চীনা দূতাবাস।

রোববার রাজধানীর এক‌টি হো‌টে‌লে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এবং চী‌নের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এর ম‌ধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিপা‌ক্ষিক বৈঠকে চীনের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহ‌রিয়ার আলম বৈঠক শে‌ষে সাংবা‌দিক‌দের ব্রিফ ক‌রেন। জানান, প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে বৈঠক চ‌লে। তাতে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা দেন, সোমবার থে‌কে ভিসা এবং ট্রাভেল পারমিট চালু করবে ঢাকার চীনা দূতাবাস।

এদিকে চীনা উপ-রাষ্ট্রদূত হুয়ালন ইয়ান তার ভে‌রিফা‌য়েড ফেসবু‌কে পেজে জানিয়েছেন, চী‌নের স্টেট কাউন্সিলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলা‌দে‌শের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের স‌ঙ্গে সাক্ষা‌তে ওয়াং ই ঘোষণা করেন, সব বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা আজ (রোববার) থেকে চীনের ক্যাম্পাসে ফিরে যাবে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাংলা‌দে‌শি শিক্ষার্থী‌দের ভিসা দেয়া হবে।

বৈঠকে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশের কার্যক্রমের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

;

সরকার নিরুপায় হয়ে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি করেছে: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সরকার নিরুপায় হয়ে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি করেছে: কাদের

সরকার নিরুপায় হয়ে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি করেছে: কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে শেখ হাসিনা সরকার নিরুপায় হয়ে মূল্য বৃদ্ধি করেছে।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য-হ্রাস পেলে সরকার আবারও জ্বালানি মূল্য সমন্বয় করবে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এখন থেকে ডিজেলের দাম হবে প্রতি লিটার ১১৪ টাকা, যা এত দিন ৮০ টাকা ছিল। কেরোসিনের দামও একই হারে বাড়ানো হয়েছে। নতুন দাম ডিজেলের সমান, অর্থাৎ ১১৪ টাকা।

বাড়ানো হয়েছে পেট্রল ও অকটেনের দামও। পেট্রলের নতুন দাম প্রতি লিটার ১৩০ টাকা, যা এত দিন ৮৬ টাকা ছিল। অকটেনের দাম ৮৯ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা করা হয়েছে।

;

অন্ধ হাফেজের ব্রেইল মেশিন মেরামতের জন্য সাহায্যের আবেদন



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
অন্ধ হাফেজের ব্রেইল মেশিন মেরামতের জন্য সাহায্যের আবেদন

অন্ধ হাফেজের ব্রেইল মেশিন মেরামতের জন্য সাহায্যের আবেদন

  • Font increase
  • Font Decrease

 

মাত্র চার বছর বয়সের শিশু চান সদাগর। বাবা-মার কোলে হেসে খেলে আর দুরন্তপনা করে সময় কাটতো তার। অভাবী বাবা-মার বুকে কতো আশা-ছেলে বড় হবে একদিন সংসারের হাল ধরবে।

কিন্তু মানুষ যা ভাবে সব সময়তো তা হয় না। মাত্র চার বছর বয়সে পৃথিবীর কী রঙ-রূপই বা দেখেছে সে। এমন সময় ভয়ানক গুটি বসন্তে তার দুটো চোখই নষ্ট হয়ে যায়। সুস্থ স্বাভাবিক চান সদাগর হয়ে যায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধি। পৃথিবীর রঙ-রূপ বলার মতো তেমন স্মৃতিও আজ মনে নেই তার।

জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ৪ নং হাতিভাঙ্গা ইউনিয়নের আমখাওয়া গ্রামের চান সদাগরের দুঃখের কাহিনী এখানেই শেষ হতে পারতো। কিন্তু কে জানতো তার জন্য আরও কী ভয়ানক পরিণতি অপেক্ষা করছে।

শিশু বয়সে স্বাধীনতা যুদ্ধে তার পিতাকে গুলি করে মারে পাকিস্তানী বাহিনী। এর তিন বছর পর ৭৪ সালে মাকেও হারান। জীবন যুদ্ধে একা হয়ে পড়েন দৃষ্টি প্রতিবন্ধি চান সদাগর।

দেওয়ানগঞ্জের এক লঙ্গরখানায় দিনে দু’বেলা খাবার জুটতো চানের। মনিকা নামক এক ইংরেজ মহিলা চালাতেন এ লঙ্গরখানা। একসময় এ মনিকায় তাকে দেওয়ানগঞ্জ থেকে ঢাকা এনে আসাদগেটের কাছে এক দৃষ্টি প্রতিবন্ধি স্কুলে ভর্তি করে দেন। এখানে তিনি ব্রেইল পদ্ধতিতে হাতের স্পর্শে পড়াশোনা শুরু করেন।

চান সদাগর বার্তা২৪.কমকে জানান, পোষাকসহ তার যাবতীয় খরচ বহন করতেন এ নারী। সেখানে তিনি দশম শ্রেণিতে লেখাপড়া করার সময় এ নারী দেশে ফিরে যান। তার পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর তিনি ঢাকার তেজগাঁওয়ের রহমতিয়া আলম ইসলামী মিশনে ভর্তি হন। সেখানে ফ্রি বোর্ডিংয়ে থেকে পবিত্র কুরআন শরিফ মুখস্ত করেন। এ সময় আমেরিকার তৈরী একটি ব্রেইল মেশিন কিনেন তিনি।

চান সদাগর জানান, এ মেশিন দিয়ে তিনি কুরআন শরিফ ছেপে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের কুরআন শিক্ষা দিয়ে থাকেন।  তার তিনি সদস্যের পরিবারের খরচ যোগান দিত এ মেশিন। দীর্ঘদিন যাবত মেশিনটি নষ্ট থাকায় তার রুটি রোজগারের পথ বন্ধ হয়ে যায়। একরকম অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটছে তাদের।

তিনি আরও জানান, মাত্র ২০/২২ হাজার টাকা হলেই মেশিনটি ভাল করা সম্ভব হবে। আর এতেই তার পরিবারের দু’মুঠো ভাতের সংস্থান হবে।  সমাজের সহৃদয় ব্যক্তির কাছে অর্থ সহায়তার আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

সহায়তা পাঠানোর ঠিকানা- ০১৭৬১৫৮৬৭৯১।

;