ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করল এয়ার এ্যাস্ট্রা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
কমার্শিয়াল ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করল এয়ার এ্যাস্ট্রা

কমার্শিয়াল ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করল এয়ার এ্যাস্ট্রা

  • Font increase
  • Font Decrease

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) থেকে কমার্শিয়াল ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করল দেশের নতুন বেসরকারি এয়ারলাইন্স ‘এয়ার এ্যাস্ট্রা’। আজ ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে এয়ার এ্যাস্ট্রার প্রথম ফ্লাইট 2A 441 সকাল ০৮:০০ ঘটিকায় শতভাগ যাত্রী নিয়ে কক্সবাজার এর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।


আজ থেকে প্রতিদিন ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা রুটে ৩টি ও ঢাকা-চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে ২ টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে এয়ার এ্যাস্ট্রা। পর্যায়ক্রমে দেশের সব অভ্যন্তরীণ রুটেই ফ্লাইট পরিচালনা করবে এয়ার এ্যাস্ট্রা। ঢাকা থেকে কক্সবাজার এর ওয়ান ওয়ে সর্বনিন্ম ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৮০০ টাকা এবং ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এর ওয়ান ওয়ে সর্বনিন্ম ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৬৯৫ টাকা।


এয়ার এ্যাস্ট্রা এরই মধ্যে ঢাকায় দুটি এটিআর ৭২-৬০০ এয়ারক্রাফট ডেলিভারি নিয়েছে এবং আরও দুটি এয়ারক্রাফট চলতি বছরের মধ্যেই ডেলিভারি নেবে। ২০২৩ সালের মধ্যে এয়ার এ্যাস্ট্রা’র এয়ারক্রাফট এর বহর ১০ টিতে উন্নিত হবে। ফ্রান্সে নির্মিত এটিআর ৭২-৬০০ বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক টার্বোপ্রপ প্রযুক্তির নির্ভরযোগ্য এয়ারক্রাফট। এয়ারক্রাফটির আরামদায়ক কেবিন ৭০ জন যাত্রী বহন করার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলন করে রসিক নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণা বিএনপির



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
সংবাদ সম্মেলন করে রসিক নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণা বিএনপির

সংবাদ সম্মেলন করে রসিক নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণা বিএনপির

  • Font increase
  • Font Decrease

সংবাদ সম্মেলন করে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণা দিলেন জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা। তিনি এর আগে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দুই বার রংপুর সিটি কপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১২ টায় সুমি কমিউনিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কাওছার জামান বাবলা বলেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলাম। রংপুরের সাধারণ জনগণ ও দলীয় কর্মীবৃন্দের পক্ষ থেকে আমাকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য প্রচণ্ড চাপ দেয়া হচ্ছিল। কিন্তু জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এই নির্বাচন বর্জন করায় এবং দলের পক্ষ থেকে অনুমতি প্রদান না করায় আমার পক্ষে নির্বাচনে মেয়র পদে অংশগ্রহন করা সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য আমি সম্মানিত ভোটদাতা জনগণ এবং দলীয় নেতা-কর্মীদের কাছে গভীরভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি মনে করে এই অবৈধ স্বৈরাচারী সরকার পতনের মাধ্যমে নির্দলীয়- নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন কমিশন গঠন করে সকল দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠান করা হবে।

সেই নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে ইনশাআল্লাহ। বিএনপি আরও মনে করে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত দল সমূহের সমন্বয়ে জাতীয় সরকার গঠন করে নতুন উদ্যমে রাষ্ট্র মেরামতের সুযোগ সৃষ্টি করা হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রংপুর মহানগর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জহির আলম নয়ন ও মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আশফাকুল ইসলাম বসুনীয়া আজাদ প্রমূখ।

;

আমন ধানের চেয়ে উৎপাদন ও পুষ্টিগুণ বেশি ‘বেগুনি’ ধানে



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
আমন ধানের চেয়ে উৎপাদন ও পুষ্টিগুণ বেশি ‘বেগুনি’ ধানে

আমন ধানের চেয়ে উৎপাদন ও পুষ্টিগুণ বেশি ‘বেগুনি’ ধানে

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর আলী হাসান গ্রামের কৃষক সিরাজ উদ্দিন ৪০ শতাংশ জমিতে চলতি আমন মৌসুমে বেগুনি রংয়ের ধান চাষ করেছেন। এ ধান অপরিচিত। তবে অন্যান্য ধানের চেয়ে উৎপাদন বেশি হয়েছে।

ফলে এ ধানের সুনাম আশপাশের কৃষকেদর মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে। বেগুনি ধান চাষাবাদে অনেক কৃষকই আগ্রহ প্রকাশ করেছে। 

সম্প্রতি কৃষক সিরাজ তার জমির ধান কেটেছেন। কাটা ধান মাড়াই করে বেশিরভাগ অংশই বীজ হিসেবে রাখবেন। বাকীটা নিজেই চাল করে ভাত রান্না করে খাবেন। তার ইচ্ছে- পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ব্যতিক্রমী এ ধানের বীজ সবখানে ছড়িয়ে দিতে। 

কৃষক সিরাজ উদ্দিন বলেন, বেগুনি রংয়ের ধান চাষে অন্যান্য আমন জাতের ধানের মতই খরচ হচ্ছে। তবে এ ধানের উৎপাদন অন্য ধানের চেয়ে বেশি হয়েছে। তাই আগামীতেও এ ধানের চাষ করবো। আশপাশের অনেক কৃষক আমার কাছ থেকে ধানের বীজ চেয়েছে। বীজ সংগ্রহ করে সেগুলো অন্য কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করব। 

তিনি বলেন, শখের বশে এ ধানের চাষ করা। ধানের গুণাগুণ নিয়ে আগে তেমন কিছু জানতাম না। এখন শুনি এ ধানে নাকি অনেক পুষ্টি রয়েছে। একদিকে পুষ্টি, অন্যদিকে উৎপাদনও ভাল হয়েছে। তবে সম্প্রতি প্রাকৃতিক দুর্যোগ ঘূর্ণিঝড় চিত্রাংয়ের কবলে পড়ে ধানের ফলনে কিছুটা সমস্যা হয়েছে। ঝড়ো বাতাসের কারণে কিছু ধান চিটা হয়ে গেছে। তা-না হলে ফলন আরও বেশি হতো। 

কৃষক সিরাজ বলেন, তার জামাতা ধানগুলো সংগ্রহ করেছে তার জমিতে লাগানোর জন্য। কিন্তু পানির অভাবে তিনি সেগুলো লাগাতে পারেননি। তাই সেগুলোর চাষ আমি নিজেই করেছি। 

চাষাবাদ সম্পর্কে তিনি বলেন, বাংলা শ্রাবণ মাসে বীজতলায় বীজ বপন করি। একমাস পর চারা রোপন করি। প্রতি গোছায় দুটি-তিনটি চারা লাগিয়েছি। এখন দেখি একেকটি গোছায় ১২-১৪ টি ধান গাছ হয়েছে। এ ধানের শীষ অনেক লম্বা। ধানগুলো মাঝামাঝি আকারের। ধানের পাতা সবুজ রংয়ের হলেও ধানগুলো বেগুনি রংয়ের। চালও বেগুনি। অন্যান্য আমন জাতের ধানের মতোই সার ওষুধ ব্যবহার করেছি। শ্রমও কম লেগেছে। এতে বাড়তি কোন খরচ করতে হয়নি। 

তিনি আশা করছেন, প্রতি শতাংশে একমন করে ধানের উৎপাদন হবে। কিন্তু অন্যান্য জাতের আমন ধান আরও কম উৎপাদন হয়। 

সিরাজ উদ্দিনের জামাতা কৃষক আজাদ হোসেন বলেন, ফেসবুকের মাধ্যমে এ ধানের সন্ধান পাই। এক বন্ধুর সাহায্যে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ঢাকা থেকে ৭০০ টাকা কেজি ধরে তিনকেজি ধান আনিয়েছি। সময়মতো বৃষ্টিপাত না হওয়ায় নিজের জমি ধান চাষের উপযোগী না হওয়ায় আমার শ্বশুরকে দিয়েছি। তিনি ধানগুলোর চাষ করেছেন। ফলন ভাল হয়েছে। এ ধানের চাষাবাদ আমাদের এলাকার জমির জন্য উপযুক্ত বলে মনে হচ্ছে। 

তিনি জানান, চীন থেকে এ ধানের বীজ বাংলাদেশে আসে। এগুলো পুষ্টিকর ধান হিসেবেই জানেন। তাদের এলাকায় অন্যকোন কৃষক এ ধানের চাষাবাদ করেনি। তবে আগামীতে চাষাবাদের জন্য অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। 

চর চরুহিতা এলাকায় কৃষক জয়নাল আবেদীন বলেন, ধানগুলো দেখতে সুন্দর। ফলনও ভালো হয়েছে। আগামীতে আমিও পরীক্ষামূলকভাবে এ ধানের চাষ করব। সেজন্য কৃষক সিরাজের কাছ থেকে বীজ সংগ্রহ করব। 

লক্ষ্মীপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. জাকির হোসেন বলেন, বেগুনি রংয়ের ধান চাষ সম্পর্কে আমাদের কাছে তেমন কোন তথ্য নেই। বিক্ষিপ্তভাবে কোন কোন কৃষক হয়তো চাষাবাদ করতে পারে। 

এদিকে বেগুনি রংয়ের ধান সম্পর্কে তথ্য নিলে,  জার্নাল অফ এগ্রিকালচার অ্যান্ড ফুড কেমিস্ট্রির একটি গবেষণার বরাত দিয়ে মার্কিন স্বাস্থ্য বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম মেডিকেল নিউজটুডে জানিয়েছে, বেগুনি রঙের চালের ভাতে হৃদরোগ, ক্যান্সার ঝুঁকি কমাতে পারে এবং মানুষের লিভার সতেজ রাখে।

;

রাঙামাটিতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে প্রধান শিক্ষকের যাবজ্জীবন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাঙামাটি
রাঙামাটিতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে প্রধান শিক্ষকের যাবজ্জীবন

রাঙামাটিতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে প্রধান শিক্ষকের যাবজ্জীবন

  • Font increase
  • Font Decrease

রাঙামাটির লংগদুতে নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় প্রধান শিক্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ১০ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে আসামির উপস্থিতিতে রাঙামাটির নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক এ.ই.এম ইসমাইল হোসেন এই রায় প্রদান করেছেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুর রহিম (৪৬) রাঙামাটির লংগদু উপজেলাধীন করল্যাছড়ি আরএস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

এই রায়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট মোঃ সাইফুল ইসলাম অভি ও বাদীপক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট রাজীব চাকমা সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন। অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট মোখতার আহামেদ জানিয়েছেন তারা এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করবেন এবং সেখানে তারা ন্যায় বিচার পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

আদালত থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে জানা গেছে, বিগত ২০২০ সালের ২৫শে সেপ্টেম্বর তারিখে আসামি ভিকটিমকে লেবু দেওয়ার কথা বলে তার কার্যালয় কক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘটনা কাউকে না জানাতে বলেন। এই ঘটনার পর ভিকটিমের মা বাদী হয়ে ১০ই অক্টোবর ২০২০ তারিখে লংগদু থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় লংগদু থানার এসআই সুজন হালদার ও পরিদর্শক মোহাম্মদ জাকির হোসেন ২৮/১০/২০২১ ইং তারিখে আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণের সত্যতা পেয়ে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ এর ৯(১) ধারায় অভিযোগপত্র দাখিল করে।

এই মামলার রায় ঘোষণার সময় আদালত তার পর্যবেক্ষণে জানান, আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। তাই আসামিকে শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ এর ৯(১) ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ভিকটিমের জন্য ক্ষতিপূরণ বাবদ ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো তিন বছর কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

;

৫২ বছর বয়সে এসএসসি পাস করলেন কৃষক আব্দুল মতিন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিরাজগঞ্জ
সপরিবারে কৃষক মহসিন আলী

সপরিবারে কৃষক মহসিন আলী

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জের কৃষক আব্দুল মতিন ওরফে মহসিন আলী। বর্তমানে বয়স তাঁর ৫২ বছর। এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক। মহসিন আলী এ বছর এসএসসি পরীক্ষাতে অংশ নিয়ে জিপিএ-৪.৬১ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। মহসিনের এ সাফল্যে পরিবারের সদস্যসহ এলাকার মানুষ বেশ খুশি।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সকালে পরিবার সূত্রে জানা যায়, মহসিন আলী উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের খরখড়িয়া গ্রামের মৃত জমশেদ আলীর ছেলে। তিনি এ বছর তাড়াশের নাজাততুল্লা আয়েশা মেমোরিয়াল টেকনিক্যাল স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। সোমবার পরীক্ষার ফল প্রকাশ হলে দেখা যায় কৃষক মহসিন জিপিএ- ৪.৬১ পেয়ে কৃতকার্য হয়েছে।

কৃষক মহসিন আলী জানান, কৃষি কাজের মাধ্যমে পরিবার নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। তিনি আরো বলেন, আমাদের গ্রামের বেশির ভাগ মানুষ শিক্ষিত। তাই আগামী দিনের কথা ভেবে ৫২ বছর বয়সে আমি পড়ার সিদ্ধান্ত নেয়। আমি এ বছর ভর্তি শুরু হলে কলেজে ভর্তি হয়ে পড়া লেখা অব্যহৃত রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি।

খরখড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়ন্ত কুমার সরকার বলেন, কৃষক মহসিন যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে তা থেকে অনেকেই শিক্ষা নিয়ে পড়ালেখায় মনোযোগি হতে পারেন বলে পরামর্শ দেন।

;