জঙ্গি ছিনতাই: গ্রেফতার মেহেদি ৭ দিনের রিমান্ডে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জঙ্গি ছিনতাই: গ্রেফতার মেহেদি ৭ দিনের রিমান্ডে

জঙ্গি ছিনতাই: গ্রেফতার মেহেদি ৭ দিনের রিমান্ডে

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মূল ফটক থেকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় আসামি মেহেদি হাসান অমি ওরফে রাফির সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) এ আদেশ দেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিন।

এর আগে, রাফিকে আদালতে হাজির করে তার ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিটিটিসির পরিদর্শক মুহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ। পরে আদালত শুনানি শেষে তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

দুপুরে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, জঙ্গিদের ছিনিয়ে নিতে আগে থেকেই পরিকল্পনা করেছিলেন মেহেদি। তাই ঘটনার দিন মোটা অংকের টাকা নিয়ে আদালতে আসেন মেহেদি। ছিনিয়ে নেওয়ার পর জঙ্গিদের হাতে সেই টাকা তুলে দেওয়া হয়।

গত ২০ নভেম্বর দুপুর ১২টার দিকে ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশের চোখে স্প্রে করে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে ছিনিয়ে নিয়ে যান জঙ্গিরা। পলাতক দুই জঙ্গিকে ধরতে রেড এলার্ট জারিসহ ২০ লাখ টাকা পুরষ্কার ঘোষণা করে সরকার।

প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ

প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ

  • Font increase
  • Font Decrease

আগামী ৪ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ড মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে ঘিরে চট্টগ্রাম নগর জুড়ে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সকালে পলোগ্রাউন্ড মাঠ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

এসময় নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনসহ সিএমপির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

সিএমপি কমিশনার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভা আগামী ৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে আমরা যথেষ্ট সতর্ক অবস্থানে রয়েছি। শুধু পলোগ্রাউন্ড মাঠ নয়, নিরাপত্তার খাতিরে পুরো নগর জুড়ে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। এরমধ্যে পলোগ্রাউন্ড মাঠসহ পুরো চট্টগ্রাম মহানগরে আমাদের ৬ হাজার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। নিরাপত্তার বিষয়টি আরো জোরদার করতে বাইরে আরো দেড় হাজার পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হবে।

পুলিশ কমিশনার বলেন, চট্টগ্রামের জন্য জনসভা বড় উৎসব। নিরাপত্তার জন্য আমাদের আয়োজন ভালো। স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) পুরো আয়োজনটাই তদারকি করছে। পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে পুলিশ থাকবে। পাশাপাশি সিসি ক্যামেরা, ড্রোন থাকবে। পুরো শহর জুড়ে থাকবে নিরাপত্তা।

তিনি আরো বলেন, ওইদিন স্কুলের পরীক্ষা আছে। সেদিকে আমাদের নজর আছে। আমরা অভিভাবকদের বলব আপনারা হাতে সময় নিয়ে বের হবেন। তবে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে আমাদের খবর দিলে আমরা গাড়ি করে কেন্দ্রে পৌঁছে দেব।

;

শেষ দিনে ১০ মেয়রসহ ২৭৭ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
শেষ দিনে ১০ মেয়রসহ ২৭৭ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল

শেষ দিনে ১০ মেয়রসহ ২৭৭ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল

  • Font increase
  • Font Decrease

 

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ দিনে ১০ মেয়র প্রার্থীসহ সংরক্ষিত নারী ও সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলার পদে মোট ২৭৭ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

মঙ্গলবার(২৯ নভেম্বর) বিকাল ৪ টায় শেষ সময় পর্যন্ত এ মনোনয়নপত্র জমা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন নির্বাচনী আঞ্চলিক কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে অনেক প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে দেখা গেছে।

শেষ সময় পর্যন্ত মেয়র পদে ১০ জন, ১১টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ৬৯ জন এবং ৩৩টি সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ১৯৮জনসহ মোট ২৭৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মেয়র পদে প্রার্থীরা হলেন—ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. আমিরুজ্জামান, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আবু রায়হান, খেলাফত মজলিশের মো. তউহিদুর রহমান মণ্ডল, জাতীয় পার্টির মো. মোস্তাফিজার রহমান, জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল-জাসদের মো. শফিয়ার রহমান, আওয়ামী লীগের হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, জাকের পার্টির মো. খোরশেদ আলম এবং স্বতন্ত্র মো. লতিফুর রহমান, মো. আতাউর জামান বাবু, মো. মেহেদি হাসান (বনি)।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিলো ২৯ নভেম্বর।

১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই এবং ৮ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ৯ ডিসেম্বর।

এরপর প্রার্থীরা ১৭ দিন প্রচার-প্রচারণার সুযোগ পাবেন। ২৭ ডিসেম্বর ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এক টানা ভোটগ্রহণ চলবে।

;

৩৭ বছর বয়সে গোলাপীর দাখিল পাস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
৩৭ বছর বয়সে গোলাপীর দাখিল পাস

৩৭ বছর বয়সে গোলাপীর দাখিল পাস

  • Font increase
  • Font Decrease

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার গোলাপী বেগম এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ৩৭ বছর বয়সে দাখিল পাশ করেন। তিনি এবার কুড়িগ্রাম কামিল আলিয়া মাদ্রাসা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ ৪.৯৩ পেয়েছেন। সোমবার দুপুরে দাখিল পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হলে গোলাপী বেগমের বাড়ি ও তাঁর কর্মস্থলে হইচই পরে যায়।

গোলাপী বেগমের বাড়ি কুড়িগ্রাম সদরের তালতলা গ্রামে। তিনি কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের একজন ভাতাপ্রাপ্ত কর্মচারী। পরীক্ষার ফলাফল শিট ও জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তাঁর জন্ম তারিখ ৩ মার্চ ১৯৮৫ সাল। তাঁর বর্তমান বয়স ৩৭ বছর। ২০০২ সালে তিনি এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। কিন্তু পারিবারিক অস্বচ্ছলতার কারণে নবম শ্রেণীতে পড়ার সময় তাঁর বিয়ে হয়ে যায়। স্বামীর বাড়িতে গিয়ে আর পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি গোলাপী। তার স্বামীর নাম লুতফর রহমান। তিনিও কুড়িগ্রাম পৌরসভার একজন ভাতাপ্রাপ্ত কর্মচারী।

সংসারের অভাবের কারণে ২০১৬ সালে গোলাপী বেগম  কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজে ভাতাপ্রাপ্ত কর্মচারী হিসাবে কাজ শুরু করেন। কলেজে কাজ শুরু করার পর তিনি শিক্ষার গুরুত্ব বুঝতে পারেন। তিনি দেখেন তার থেকে কম বয়সের অনেক কর্মচারী লেখাপড়ার জোড়ে তার থেকে ভাল জায়গায় কাজ করছে। কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মীর্জা মো. নাসির উদ্দিনের অনুপ্রেরণায় তিনি আবার পড়ালেখা শুরু করেন। তারপর ২০২০ সালে তিনি কুড়িগ্রাম কামিল আলিয়া মাদ্রাসায় ভোকেশনাল কোর্সে নবম শ্রেণীতে ভর্তি হন। ২০২২ সালের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অংশ নিয়ে তিনি দাখিল পাশ করেন।

পরীক্ষায় পাশের অনুভুতি কেমন জানতে চাইলে গোলাপী বেগম প্রথম আলোকে বলেন, ফলাফলের দিন সকাল থেকে মনটা ছটফট করতেছিল। আমি কলেজে ছিলাম, কলেজের ইংরেজি বিভাগের কম্পিউটার এ আমার রোল দিয়ে জানতে পারি আমি পাশ করেছি। এই বয়সে এসেও যে আমি পাশ করতে পারবো ভাবতে পারি নাই। আমার খুব ভাল লাগছে। কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ স্যারের অনুপ্রেরণা ও সহযোগিতা ছাড়া এটা সম্ভব হতো না। ভবিষ্যতে আরো পড়তে চান কিনা এমন প্রশ্নে তিনি জানান, কলেজ থেকে যদি চাকুরীতে কোন বাধা না আসে তবে কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও মাস্টার্স সম্পন্ন করার তার।

গোলাপী বেগম জানান, আমার পাশ করায় স্বামী খুব খুশি। আমার ছেলে ঢাকায় থাকে আমার জন্য একটা জ্যাকেট(শীতের পোষাক) কিনে কুরিয়ার সার্ভিসে পাঠিয়েছেন।

কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মীর্জা মো. নাসির উদ্দিন প্রথম আলোকে জানান, গোলাপী বেগম এই কলেজের ভাতাপ্রাপ্ত কর্মচারী। নবম শ্রেণীতে পড়ার সময় তার বিয়ে হয়ে যায় শুনেছি। কিন্তু তার পড়ালেখার প্রতি আগ্রহের কথা জানতে পেরে আমি তাকে উম্মুক্ত কোর্সে ভর্তি হয়ে আবার পড়ালেখা করবার পরামর্শ দেই। ২০২২ সালের দাখিল পরীক্ষায় সে ৪.৯৩ পেয়ে পাশ করেছে। গতকাল তার পাশের সুখবর শুনে কলেজের পক্ষ থেকে ফুলের শুভেচ্ছা দিয়েছি। সে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করতে চাইলে কলেজ তার পাশে থাকবে।

কুড়িগ্রাম কামিল আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. নুর বখত জানান, ৪০ বছর বয়সের যে কোন শিক্ষার্থী ভোকেশনাল শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারেন। এ বছর কুড়িগ্রাম কামিল আলিয়া মাদ্রাসায় ভোকেশনাল কোর্সে ৪৭ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৩১ জন পাশ করেছে। গোলাপী বেগম তাদের একজন। তার রেজাল্ট ভোকেশনাল কোর্সে সবার থেকে ভাল। সে আগামী দিনে উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে সফল হোক, আমরা সেই দোয়া করি।

;

এমআইএসটির ফ্যাকাল্টি ও এ্যাডমিন টাওয়ার উদ্বোধন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মিলিটারী ইনস্টিটিউট অব সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি) ১৯৯৯ সালে নতুন কোন অবকাঠামো নির্মাণ ব্যতিরেকে সেনাবাহিনীর নিজস্ব স্থাপনায় সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৪০ জন ছাত্র অফিসার নিয়ে মিরপুর সেনানিবাসে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে ৪টি অনুষদের অধীনে ১৩টি বিভাগে সর্বমোট ২,৯১৭ জন ছাত্র/ছাত্রী অধ্যয়ন করছে। বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এর পাশাপাশি এমআইএসটিতে ৮ টি বিভাগে এমএসসি, ৩ টি বিভাগে এমফিল এবং ৭ টি বিভাগে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালু আছে।

এমআইএসটির অবকাঠামোগত উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধাসহ ফ্যাকাল্টি টাওয়ার ৩, ৪, এ্যাডমিন টাওয়ার এবং Hall of FAME এর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। ২৯ নভেম্বর ভবন সমূহের শুভ উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি, উক্ত অনুষ্ঠানে এমআইএসটির প্রাক্তন কমান্ড্যান্টবৃন্দ, সেনাবাহিনী সদর দপ্তরের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারগণসহ ঊর্ধ্বতন সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্থাপনাসমূহ উদ্বোধনের মাধ্যমে এমআইএসটির প্রতিটি অনুষদের বিপরীতে একটি করে স্বতন্ত্র টাওয়ার বিল্ডিং এ একাডেমিক কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করতে সহায়তা করবে। উদ্বোধনকৃত ফ্যাকাল্টি টাওয়ার সমূহে সর্বাধুনিক (স্টেট অব আর্টস) গবেষণাগার বিদ্যমান। যা এমআইএসটি তথা বাংলাদেশের গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বিশেষ অবদান রাখবে বলে আশা করা যায়।

হল অব ফেম এর দেয়ালে সংরক্ষিত হয়েছে এমআইএসটির প্রতিষ্ঠা লগ্ন হতে অদ্যবধি গুরুত্বপূর্ণ মাইল ফলক সমূহ, সকল স্বর্ণ পদকপ্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের নাম, আন্তর্জাতিক ও জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতা সমূহের উল্লেখযোগ্য সাফল্য সমূহ। সম্মানিত সেনাপ্রধানের উদ্বোধনের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করল এমআইএসটির পেট্রোলিয়াম ও লুব্রিকেটিং স্টেটিং ল্যাব যা বাংলাদেশে ব্যবহৃত পেট্রোলিয়ামজাত জ্বালানির সঠিক মান নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। একই সাথে তিনি সাইবার সিকিউরিটিতে উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য নির্মিত সাইবার রেঞ্জও পরিদর্শন করেন।

নতুন উদ্বোধনকৃত প্রশাসনিক ভবনে ৪৫০০০ বর্গফুটের এমআইএসটির সেন্ট্রাল লাইব্রেরি বিদ্যমান। উক্ত লাইব্রেরির একটি অংশে একাডেমিক বইয়ের পাশাপাশি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের উপর প্রায় ৪০০০ (চার হাজার) বই সম্মলিত “বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ” কর্ণার স্থাপন করা হয়েছে। যাতে আগামী প্রজন্মের ইঞ্জিনিয়ারগণ জাতির জনকের জীবন-কর্মকান্ড এবং স্বাধীনতার ইতিহাস থেকে অনুপ্রেরণা লাভ করতে পারে। একই সাথে লাব্রেরিতে আনুমানিক ২৫০০ বই নিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে বিশেষ ‘‘শেখ রাসেল আঙ্গিনা”। যা শেখ রাসেল সম্পর্কে ছাত্র-ছাত্রীদের জানতে সাহায্য করবে।

বিজ্ঞপ্তি

;