প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল ১৪ ডিসেম্বর



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের ফল আগামী ১৪ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে। সোমবার (২৮ নভেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা-২০২০ এর ফলাফল প্রকাশে প্রকৃত শূন্যপদ পূরণের অপরিহার্যতা যাচাই-বাছাইপূর্বক চূড়ান্ত করে এ পরীক্ষার ফলাফল আগামী ১৪ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) সূত্রে জানা যায়, সহকারী শিক্ষকের পদসংখ্যা বাড়িয়ে ৪৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের কথা থাকলেও এটি হচ্ছে না। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ৩২ হাজার ৫৭৭টি পদে নিয়োগ দেয়া হবে।

জানা গেছে, এ নিয়োগে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা তিন ধাপে সম্পন্ন করা হলেও চূড়ান্ত ফল একসাথেই প্রকাশ করা হবে।

২০২০ সালের ২০ অক্টোবর ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্যপদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এতে ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন আবেদন করেন।  প্রার্থীদের লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা শেষে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হচ্ছে বলে জানায় মন্ত্রণালয়।

কুষ্টিয়ায় দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলার উদ্বোধন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়ায় দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলার উদ্বোধন

কুষ্টিয়ায় দুই দিনব্যাপী তথ্য মেলার উদ্বোধন

  • Font increase
  • Font Decrease

‘তথ্যই শক্তি, জানবো, জানাবো, দুর্নীতি রুখবো’ -স্লোগানকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে কুষ্টিয়ায় তথ্য মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে কুষ্টিয়া পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সনাক এই মেলার আয়োজন করে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

সচেতন নাগরিক কমিটি সনাক কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি আলহাজ্ব রফিকুল আলম টুকুর সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সিভিল সার্জন ডা: এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক নূরে সফুরা ফেরদৌস, টিআইবির ক্লাষ্টার কো অর্ডিনেটর মো: ফিরোজ উদ্দিন।

এ সময় বক্তারা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি দেশের দুর্নীতিকে অনেকটাই প্রতিরোধ করেছে। তথ্যের আদান প্রদান দেশের মানুষের অধিকার নিশ্চিত করছে এবং সকলকে সচেতন করে তুলছে। সর্বক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার তথ্য অধিকার আইন প্রণয়ন করেছে। এটি যে কোনো প্রতিষ্ঠানের দোষ-গুণ, সফলতা-ব্যর্থতা সবকিছুকেই পরিষ্কার করে দিচ্ছে। ফলে দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে, দুর্নীতি থাকবে না। আর এটাই তথ্য অধিকার আইনের মূল লক্ষ্য। এ আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করা বর্তমান সরকারের অন্যতম কর্তব্য।

বক্তারা আরও বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সবার আগে অনগ্রসর জনগণের মাঝে তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে। তৃণমূল পর্যায়ের জনগোষ্ঠীর মাঝে তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে পারলেই তাদের জীবনযাত্রায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনা সম্ভব। প্রযুক্তির যুগে অবাধ তথ্য প্রবাহ জনগণের ক্ষমতায়ণের অন্যতম পূর্বশর্ত, তাই জনগণের দোরগোড়ায় তথ্য সেবা পৌঁছে দেওয়ারও আহ্বান জানানো হয়।

আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

;

‘টেলিটকের কাছে ১৬৯৪ কোটি ৭৩ লাখ টাকা পাওনা’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর কোম্পানি টেলিটক বাংলাদেশে লিমিটেডের কাছে সরকারের ১৬৯৪ কোটি ৭৩ লাখ টাকা পাওনা আছে।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে এ তথ্য জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

এদিন জাতীয় সংসদে কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম সরওয়ার জাহানের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপন করা হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, টেলিটকের কাছে পাওনা টাকার মধ্যে এক হাজার ৫৮৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা ৩জি স্পেকট্রাম অ্যাসাইনমেন্ট ফি বাবদ। স্পেকট্রাম চার্জ বাবদ ২৭ কোটি ১৫ লাখ, রেভিনিউ শেয়ার বাবদ ৩৩ কোটি ৭৯ লাখ ও এসওএফ বাবদ ৪৮ কোটি ৬৬ লাখ টাকা।

Google News Channel24 অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
মোস্তাফা জব্বার আরও বলেন, গ্রামীণফোনের কাছে পাওনা ১০ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৪ লাখ ৭৬ হাজার ১৩৫ টাকা, রবি আজিয়াটার কাছে ৭২৯ কোটি ২৩ লাখ ৯১ হাজার ৪৭৬ কোটি টাকা। ২০২১ সালের নিলামে বরাদ্দকৃত তরঙ্গের দ্বিতীয় কিস্তি এবং ২০২২ সালের তরঙ্গ নিলামের ডাউন পেমেন্ট বাবদ বাংলালিংকের ২৭৩ কোটি ২৫ লাখ ৪১ হাজার ২৯২ টাকা পাওনা আছে। আর সিটিসেলের কাছে সরকারের পাওনা ১২৮ কোটি ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৩২৩ টাকা বলেও জানান তিনি।

;

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিকআপ চালক ও হেলপার নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুরে একটি মালবাহী পিকআপ গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চালক নুর নবী (৩০) এবং হেলপার মো. সিরাজ (৩৫) নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জেলার সদর উপজেলার রামগতি সড়কের মিয়ার বেড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত পিকআপ চালক নুর নবী সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের চর মনসা গ্রামের শাহ আলমের ছেলে এবং হেলপার সিরাজ একই এলাকার রফিকের ছেলে।

নিহত দুইজনের মধ্যে চালক নুর নবী ঘটনাস্থলে এবং সিরাজ জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। তাদের মৃতদেহ হাসাপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, দুর্ঘটনা কবলিত পিকআপ গাড়িটি মিয়ার বেড়ি এলাকার একটি ইটভাটা থেকে ইট নিয়ে রামগতি সড়কে উঠার পরপরই বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগতির একটি সিএনজি অটোরিকশা সামনে পড়ে। সেটিকে সাইড দিতে গেলে পিকআপ গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। এসময় সড়কের পাশে থাকা একটি গাছের সাথে ধাক্কা লেগে পিকআপ গাড়ির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায় এবং পিকআপ কাত হয়ে পড়ে যায়। স্থানীয় লোকজন গাড়িতে থাকা চালক নুর নবী ও হেলপার সিরাজকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

দুর্ঘটনা কবলিত পিকআপটি চালক নুর নবী না চালিয়ে হেলপার সিরাজ চালাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় লোকজন।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই নুর নবীর মৃত্যু হয়েছে। অপরজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় কয়েক মিনিটের মধ্যেই মারা যায়।

লক্ষ্মীপুর সদর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আল আমিন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে আছে। নিহতদের মরদেহ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হবে।

;

নগর পরিবহনের ২৪-২৫ নম্বর যাত্রাপথ চালু করা হবে: মেয়র তাপস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস জানিয়েছেন, এমআরটি’র সাথে সমন্বয় করেই ঢাকা নগর পরিবহনের নতুন দুই যাত্রাপথ চালু করা হবে।

তিনি আরো বলেন, নতুন দুই যাত্রাপথ হলো- যাত্রাপথ-২৪ ও যাত্রাপথ-২৫।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান কার্যালয় নগর ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে বাস রুট রেশনালাইজেশন কমিটির ২৬তম সভা শেষে সাংবাদিকদেরকে সাথে মতবিনিময়কালে মেয়র এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ‘এরই মাঝে এমআরটি চালু হয়েছে। তাই এমআরটি’র সাথে সমন্বয় করে আমরা নতুন দু’টি যাত্রাপথ চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেই পরিপ্রেক্ষিতে নতুন দু’টি যাত্রাপথের ব্যাপারে আজকের সভায় আমরা বিশদ আলোচনা, পর্যালোচনা করেছি।’

মেয়র বলেন, ‘কিছু ব্যত্যয় আমরা লক্ষ্য করেছি। বিশেষ করে টিকিট না কেটে বাসে ওঠার একটা প্রবণতা আমরা লক্ষ্য করছি। সেটা কোনোভাবেই ঢাকা নগর পরিবহনে করা যাবে না। সবাইকে টিকিট কাউন্টারের মাধ্যমে টিকিট কেটে বাসে উঠতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, এছাড়া ২২ নম্বর যাত্রাপথ যারা পরিচালনা করছে, তাদেরকে আমরা কঠোরভাবে নির্দেশনা দেবো। তারা যেন গাড়িচালকের ওপর নির্ভরশীল না হয়ে আমাদের যে নিয়ম, যাত্রী ছাউনি অথবা বাস-বে থেকে টিকিট কিনেই যেন যাত্রীরা বাসে উঠেন।

সে অনুযায়ী নগর পরিবহন যাত্রীদেরকে সেবা দেবে। সেটা আজকের এই সভা থেকে আমরা কঠোরভাবে নির্দেশনা দিয়েছি।

নগর পরিবহনে যাত্রী সেবার মান অক্ষুণ্ণ রাখা ও শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে জানিয়ে তাপস বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে আলাপ করেছি। বিআরটিসি আমাদের নিশ্চিত করেছে যে, ঢাকা নগর পরিবহনের জন্য যে নির্দিষ্ট বাস, সেটা শুধু ঢাকা নগর পরিবহনের যাত্রাপথেই চলবে। এই বাসগুলো অন্য কোথাও ব্যবহার করা যাবে না। আর ট্রান্সসিলভাকে আমরা কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দেব। সেজন্য তাদেরকে ১৫ দিন সময় দেব। তারা যদি নির্ধারিত নীতিমালা-নিয়ম অনুযায়ী এই সেবা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে বা ব্যর্থ হয়, তাহলে তাদের সাথে আমরা চুক্তি বাতিল করব। বিআরটিসি যদি রাজি হয় তাহলে বিকল্প হিসেবে বিআরটিসি দ্বারাই পরিচালিত হবে। অথবা নতুন উদ্যোক্তা নিয়ে আমরা এই সেবাটা পরিচালনা করব।’

২৪ ও ২৫ নম্বর যাত্রাপথসমূহের গতিপথ: ২৪ নম্বর যাত্রাপথ ঘাটারচর-বসিলা-মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড-শিশুমেলা-আগারগাঁও-মিরপুর ১০ দিয়ে কালসি ফ্লাইওভার হয়ে এয়ারপোর্ট-জসিমউদ্দীন-আব্দুল্লাহপুর।

২৫ নম্বর যাত্রাপথ ঘাটারচর-বসিলা মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড-আসাদগেট-মানিক মিয়া এভিনিউ দিয়ে খামারবাড়ি হয়ে বিজয় সরণি দিয়ে বের হয়ে জাহাঙ্গীর গেট-শাহিন স্কুল-মহাখালি (নিচ দিয়ে, ফ্লাইওভার হয়ে নয়)-কাকলি-বনানী উড়ালসেতু হয়ে রিজেন্সি-এয়ারপোর্ট-জসিমউদ্দীন-আব্দুল্লাহপুর।


সভায় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক সাবিহা পারভীন, বিআরটিএ'র চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো: তাজুল ইসলাম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মিজানুর রহমান, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক, দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসানসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

;