প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট সভা অনুষ্ঠিত



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট সভা অনুষ্ঠিত

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট সভা অনুষ্ঠিত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার (৩০ নভেম্বর) তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাষ্টের নিয়মিত সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব কে এম শাখাওয়াত মুন সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে বলেন, বোর্ড অব ট্রাষ্টির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় প্রধানমন্ত্রী মেমোরিয়াল ট্রাষ্টের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন।

মুন আরো জানান, শেখ হাসিনা ট্রাষ্টের বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে নিতে বেশকিছু নির্দেশনা দেন।

ট্রাষ্টের সদস্য নুর-ই-আলম চৌধুরী লিটন, নজরুল ইসলাম খান এ সময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

তুরস্কে নিখোঁজ সেই বাংলাদেশি শিক্ষার্থী উদ্ধার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর তুরস্কে নিখোঁজ হওয়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থী গোলাম সাঈদ রিংকুকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজের প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর তাকে উদ্ধার করা হলো। বর্তমানে তিনি তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশের খাহরামানমারাস শহরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মো. নুর আলম।

তিনি জানান, উদ্ধারকর্মীদের প্রচেষ্টার কারণে এটি সম্ভব হয়েছে। আগে উদ্ধার হওয়া নুর আলমকে সকালে আমি অনুরোধ করেছিলাম, দুর্ঘটনাস্থলে যাওয়ার জন্য এবং রিংকুকে খুঁজে বের করার জন্য। উদ্ধারকর্মীরা যখন রিংকুকে উদ্ধার করেন, তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন আগে উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশি নুর আলম।

তিনি আরও জানান, ওই অঞ্চলে থাকা সব বাংলাদেশির বিষয়ে আমরা খোঁজ-খবর রাখছি। ওই অঞ্চলে প্রায় ৫০ জন বাংলাদেশি বসবাস করেন। কেউ কেউ সেখানে ব্যবসা করেন। আবার কেউবা এনজিওতে চাকরি করেন।

ভয়াবহ ভূমিকম্পে এখন পর্যন্ত তুরস্কে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৮৯৪ জনের। আর সিরিয়ায় মারা গেছে ১ হাজার ৯৩২ জন। হতাহতের সংখ্যা আরও অনেক বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

;

এইচএসসির ফল জানা যাবে অনলাইনে ও এসএমএসে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আজ বুধবার উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। এদিন সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে ফলাফলের সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেবেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বছর অংশ নেওয়া ১২ লাখের বেশি পরীক্ষার্থীর ফল প্রকাশ করবেন।

পরে দুপুর ১২টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী। মন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে শিক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন।

এবারও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট ও মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে ফল জানা যাবে বলে জানান তপন কুমার সরকার।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট www.dhakaeducationboard.gov.bd এর রেজাল্ট কর্নারে ক্লিক করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ইআইআইএন (EIIN) নম্বর দিয়ে প্রতিষ্ঠানভিত্তিক ফলাফল ডাউনলোড করা যাবে।

এছাড়া, www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটে ক্লিক করে রোল ও রেজিস্ট্রেশন নম্বরের মাধ্যমে রেজাল্ট শিট ডাউনলোড করা যাবে।

পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর এসএমসের মাধ্যমেও ফল সংগ্রহ করা যাবে। মোবাইল থেকে এসএমএস অপশনে গিয়ে HSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে 2022 লিখে 16222 নম্বরে পাঠাতে হবে। (উদাহরণ: HSC Dha 123456 2022 Send to 16222)। ফিরতি এসএমএসে ফল জানানো হবে।

আলিমের ফল পেতে Alim লিখে একটি স্পেস দিয়ে Mad লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে 2022 লিখে 16222 নম্বরে পাঠাতে হবে।

সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনলাইনের মাধ্যমে পাওয়া ফলাফল ডাউনলোড করে প্রকাশ করার জন্য www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটের রেজাল্ট কর্নারে ক্লিক করে বোর্ড ও প্রতিষ্ঠানের ইআইআইএন নম্বরের মাধ্যমে ডাউনলোড করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ঢাকা বোর্ডের বিজ্ঞপ্তিতে।

করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক হওয়ায় গত ৬ নভেম্বর সারা দেশে অনেকটা স্বাভাবিক পরিবেশে শুরু হয়েছিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা ও কারিগরি বোর্ড মিলিয়ে ১১টি শিক্ষা বোর্ডের অধীন মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন ১২ লাখ ৩ হাজার ৪০৭ জন।

;

এইচএসসির ফলের অপেক্ষায় ১২ লাখ শিক্ষার্থী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ আজ বুধবার, যার অপেক্ষায় রয়েছে ১২ লাখ শিক্ষার্থী।

বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে ফলাফলের সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেবেন।

পরে দুপুর ১২টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী। মন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে শিক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়কারী ঢাকা শিক্ষা বোর্ড জানিয়েছে, তিন পদ্ধতিতে প্রতিষ্ঠান-শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা ফলাফল জানতে পারবে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট www.dhakaeducationboard.gov.bd এর রেজাল্ট কর্নারে ক্লিক করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ইআইআইএন (EIIN) নম্বর দিয়ে প্রতিষ্ঠানভিত্তিক ফলাফল ডাউনলোড করা যাবে।

এছাড়া, www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটে ক্লিক করে রোল ও রেজিস্ট্রেশন নম্বরের মাধ্যমে রেজাল্ট শিট ডাউনলোড করা যাবে।

পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর এসএমসের মাধ্যমেও ফল সংগ্রহ করা যাবে। মোবাইল থেকে এসএমএস অপশনে গিয়ে HSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে 2022 লিখে 16222 নম্বরে পাঠাতে হবে। (উদাহরণ: HSC Dha 123456 2022 Send to 16222)। ফিরতি এসএমএসে ফল জানানো হবে।

আলিমের ফল পেতে Alim লিখে একটি স্পেস দিয়ে Mad লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে 2022 লিখে 16222 নম্বরে পাঠাতে হবে।

সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনলাইনের মাধ্যমে পাওয়া ফলাফল ডাউনলোড করে প্রকাশ করার জন্য www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটের রেজাল্ট কর্নারে ক্লিক করে বোর্ড ও প্রতিষ্ঠানের ইআইআইএন নম্বরের মাধ্যমে ডাউনলোড করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ঢাকা বোর্ডের বিজ্ঞপ্তিতে।

করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক হওয়ায় গত ৬ নভেম্বর সারা দেশে অনেকটা স্বাভাবিক পরিবেশে শুরু হয়েছিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা ও কারিগরি বোর্ড মিলিয়ে ১১টি শিক্ষা বোর্ডের অধীন মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন ১২ লাখ ৩ হাজার ৪০৭ জন।

;

টুনা মাছ ধরার জাহাজ পাওয়া নিয়ে সংশয়



তরিকুল ইসলাম সুমন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গভীর সমুদ্র থেকে টুনাসহ সমজাতীয় মাছ সংগ্রহের জন্য তিনটি লং লাইনার জাহাজ সংগ্রহ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানাগেছে।

মৎস্য অধিদফতরের মহাপরিচালক খ. মাহবুবুল হক এবিষয়ে বার্তা২৪.কমকে বলেন, টুনা ও সমজাতীয় মাছ সংগ্রহের জন্য আমরা বেসরকারি বিনিয়োগ আহ্বান করেছিলাম। কিন্তু কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসেনি। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরামর্শ ও নির্দেশনায় ‘গভীর সমুদ্রে টুনা মাছ ও সমজাতীয় পেলজিক মাছ আহরণ’ প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। কিন্তু করোনা পরবর্তী বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটের কারণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে আমরা প্রয়োজনীয় অর্থ দিতে পারছি না। এতে করে আমাদের জাহাজ পেতে বিলম্ব হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। যাতে করে অর্থমন্ত্রণালয় আমাদের গুরুত্ব ও প্রয়োজন অনুযায়ী অর্থ ছাড়ের উদ্যোগ নেয়।

‘গভীর সমুদ্রে টুনা মাছ ও সমজাতীয় পেলজিক মাছ আহরণ’ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. মো. জুবায়েদুল আলম বার্তা২৪.কমকে বলেন, গভীর সমুদ্রে মাছ ধরা জাহাজ সরবরাহে ৬টি প্রতিষ্ঠান থেকে সিঙ্গাপুরভিত্তিক জাহাজ সররবাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ইউনিমেরিন সার্ভিসেস পিটিই লিমিটেডের সঙ্গে জাহাজ সরবরাহের চুক্তি করেছিলাম। কিন্তু সেই মেয়াদ শেষ হবে ৯ ফেব্রুয়ারি। এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী ২৮দশমিক ৮৬ লাখ মার্কিন ডলার পরিশোধ করতে হবে। কিন্তু সরকারিভাবে জলযান ক্রয় সংক্রান্ত সরকারি বিধিনিষেধের কারণে প্রয়োজনীয় ডলার সরবরাহ করা যাচ্ছে না। এ কারণে যদি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাদের সঙ্গে আমাদের থাকা চুক্তির মেয়াদ না বৃদ্ধি করে তাহলে আমরা বিপদে পড়বো। জাহাজ নির্দিষ্ট সময়ে পাওয়া নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দেবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বঙ্গোপসাগরে এক লাখ ৩১ হাজার ৯৮ বর্গকিলোমিটার সমুদ্র এলাকার একচ্ছত্র অর্থনৈতিক এলাকার (ইইজেড) জলসম্পদের মালিক হয়েও প্রয়োজনীয় অবকাঠামোর অভাবে গভীর সমুদ্র থেকে টুনা মাছ সংগ্রহ করা যাচ্ছে না।

মহাপরিচালক মাহবুবুল হক আরও বলেন, আমরা একদিকে জাহাজ সংগ্রহ করছি। অপরদিকে গভীর সমুদ্রে টুনা ও সমজাতীয় মাছের ক্ষেত্র সমূহ চিহ্নিত করার কাজ করছি। এজন্য আমরা আমাদের উপকূলীয় এলাকার মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র সমূহে গবেষণার কাজ চলছে। কিছু তথ্য আমরা হাতে পেয়েছি। গবেষণায় আমরা সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা দেশের বিশাল সমুদ্রে টুনা মাছ ধরার জন্য বেসরকারি বিনিয়োগ আহ্বান করছিলাম। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯টি প্রতিষ্ঠান আমাদের কাছ থেকে টুনা মাছ ধরার জন্য অনুমতি নিয়েছে। তারাও এখন পর্যন্ত কোনো জাহাজ আমদানি বা নির্মাণ করেছে কীনা সে রকম কোনো তথ্য পাইনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও জানায়, গভীর সমুদ্রে টুনা মাছ ধরতে তিনটি লং লাইনার প্রকৃতির ফিশিং ভ্যাসেল সংগ্রহ, ভ্যাসেল পরিচালনায় দেশি-বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ, টুনা ও সমজাতীয় পেলজিক মৎস্য আহরণ, গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার কর্মকৌশল ও কর্মপরিকল্পনা তৈরি, ক্রুসহ টুনা আহরণে নিয়োজিত ১০০ জনকে প্রশিক্ষণ এবং ৩৭ জন দেশীয় ও সাতজন আন্তর্জাতিক পরামর্শক নিয়োগ কাজ চলমান রয়েছে।

;