‘অস্বাস্থ্যকর’ বাতাস নিয়ে দূষিত শহরের তালিকায় সপ্তম স্থানে ঢাকা



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘনবসতিপূর্ণ ঢাকার বাতাসের মান “অস্বাস্থ্যকর” অবস্থায় রয়েছে। শনিবার (১৮ মার্চ) সকাল ৯টা ০৩ মিনিটে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর ১৬৩ নিয়ে দূষিত শহরের তালিকায় সপ্তম স্থানে রয়েছে ঢাকা। এ বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে একাধিকবার এই তালিকায় সবার উপরে উঠে আসে ঢাকা।

শনিবার সকালে ইরাকের বাগদাদ, মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুন ও ভারতের কলকাতা যথাক্রমে একিউআই স্কোর ১৮৫, ১৬৩ ও ১৬২ নিয়ে তালিকার প্রথম তিনটি স্থানে রয়েছে।

একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ২০০ পর্যন্ত “অস্বাস্থ্যকর” হিসেবে বিবেচিত হয় বিশেষ করে সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য। একইভাবে একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ তা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ ও অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে।

প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে তৈরি করা একিউ সূচক একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত সে সম্পর্কে মানুষকে তথ্য দেয় এবং তাদের জন্য কোন ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি হতে পারে তা জানায়।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে- বস্তুকণা (পিএম ১০ ও পিএম২ দশমিক ৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজন (৩৩)।

ঢাকা দীর্ঘদিন ধরে বায়ুদূষণে ভুগছে। এর বাতাসের মান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়। এ বছরের শুরুর দিকে ঢাকা বেশ কয়েকবার বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় শীর্ষে উঠে আসে।

‘বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির প্রশংসা করেছে বেলজিয়াম’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের দ্রুত আর্থ-সামাজিক প্রবৃদ্ধির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বেলজিয়ামের রাষ্ট্রদূত দিদিয়ের ভান্ডারহাসেল্ট।

তিনি দেখেছেন বাংলাদেশ ও বেলজিয়ামের মধ্যে প্রচুর বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে, বিশেষ করে কৃষি ব্যবসা, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, বন্দর ও সড়ক পরিবহন অবকাঠামো, ড্রেজিং, লজিস্টিকস, পানি পরিশোধন খাতে।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন রাষ্ট্রদূত।

রাষ্ট্রদূত চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে বেলজিয়ামের মহারানী রাণী ম্যাথিল্ডের বাংলাদেশে অত্যন্ত ফলপ্রসূ সফরের কথা জানান।

তিনি প্রতিমন্ত্রীকে ‘বেলজিয়াম থেকে উদ্ভাবনী ব্যবসার সুযোগ’ শীর্ষক অত্যন্ত ফলপ্রসূ ব্যবসায়িক সেমিনার এবং গত বিকেলে ঢাকার একটি স্থানীয় হোটেলে সফররত বেলজিয়াম ও স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের বিটুবি সেশন সম্পর্কে অবহিত করেন।

সাক্ষাৎকালে প্রতিমন্ত্রী ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি বেলজিয়ামের দেয়ার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন এবং দুই বন্ধুপ্রতীম দেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

তিনি ব্যবসার সুযোগ অন্বেষণে বাংলাদেশে একটি আঞ্চলিক বাণিজ্য মিশনে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য বেলজিয়ামের রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান এবং বাংলাদেশে কৃষি ব্যবসার সুবিধা, বিশেষ করে স্টোরেজ, পরিবহন এবং প্রক্রিয়াকরণের ক্ষেত্রে বেলজিয়ামের সহায়তা কামনা করেন।

উভয় পক্ষ নিয়মিত দ্বিপক্ষীয় পরামর্শ, বাণিজ্য সহজীকরণ ব্যবস্থা, কনস্যুলার সহযোগিতা, অভিবাসন এবং গতিশীলতা, বাংলাদেশ-ইইউ সহযোগিতা, ২০২৪ সালে বেলজিয়ামের ইইউ প্রেসিডেন্সি এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে নির্বাচনের বিষয়ে সহযোগিতাসহ পারস্পরিক স্বার্থের বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।

;

সৌদিতে বাস দুর্ঘটনায় নিহতদের ৮ জন বাংলাদেশি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সৌদি আরবে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনায় নিহত ২০ জনের মধ্যে আটজনই বাংলাদেশি।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলি সাবরিন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আহত ১৮ জন বাংলাদেশি বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সোমবার যাত্রীবাহী বাসটি আসির প্রদেশের আকাবা শহরের কাছে একটি ব্রিজের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায় এবং আগুন ধরে যায়। এসময় বাসের যাত্রীরা ভেতরে আটকা পড়ার ফলে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

গালফ নিউজের খবরে বলা হয়েছে, যাত্রীবাহী বাসটির ব্রেক কাজ না করায় আসির প্রদেশ ও আবহা শহরের সংযোগ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। হতাহতরা ওমরাহ পালনের জন্য মক্কা যাচ্ছিলেন।

দুর্ঘটনার পরপরই সৌদির সিভিল ডিফেন্স ও রেডক্রিসেন্ট কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পরে তারা দুর্ঘটনাস্থল চারদিক থেকে ঘিরে রাখে এবং সাধারণের চলাচল বন্ধ করে দেয়। হতাহতদের নিকটস্থ কয়েকটি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

;

ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সক্ষমতা বাড়াতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহ্বান



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সক্ষমতা উন্নয়ন এবং সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) ‘আইওসি রিজিওনাল কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশান (আইসিওআইএনডিও)’-এর নবম আন্তঃসরকারি অধিবেশনে তিনি এ আহ্বান জানান।

ড. আব্দুল মোমেন এক ভিডিও বার্তার মাধ্যমে সেশনের উদ্বোধন করেন। মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এ অধিবেশন শুরু হয়েছে। চলবে ৩০ মার্চ পর্যন্ত।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ অঞ্চলের নিরাপত্তা, সংযোগ, শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য ভারত মহাসাগরের গুরুত্ব তুলে ধরেন। এছাড়া আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সামুদ্রিক বৈজ্ঞানিক গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা; প্রকল্প গ্রহণ এবং সমুদ্র পর্যবেক্ষণ ও তথ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ভারত মহাসাগরের সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে তাদের সুনির্দিষ্ট স্বার্থ ও অগ্রাধিকার বিবেচনা করে এ অঞ্চলের সক্ষমতা উন্নয়ন এবং সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানান।

অধিবেশনে বাংলাদেশসহ ১৪টি দেশের প্রতিনিধি, আইওসি-ইউনেস্কো সচিবালয়, ইন্ডিয়ান ওশান কমিশন এবং বিশ্ব ব্যাংকের স্বতন্ত্র পর্যবেক্ষক ও প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

অংশগ্রহণকারী দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, ফ্রান্স, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, কুয়েত, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, কাতার, শ্রীলঙ্কা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মালদ্বীপ, সৌদি আরব এবং ইয়েমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভারত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক কমিটিকে একটি সাব-কমিশনে উন্নীত করতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টার আশ্বাস দেন। প্রথম দিনের অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল খুরশেদ আলম এবং ইন্টার গভর্নমেন্টাল ওসিয়ানোগ্রাফিক কমিশনের (আইওসি) নির্বাহী সচিব ভ্লাদিমির রিয়াবিনিন।

এছাড়া আইওসি সভাপতি এরিয়েল হার্নান ট্রয়সি, ইন্টারন্যাশনাল সিবেড অথরিটির মহাসচিব মাইকেল ডব্লিউ লজ এবং আইওসি আফ্রিকার সভাপতি প্রফেসর আফিয়ান কৌদিও ভিডিও বার্তার মাধ্যমে প্রথম দিনের অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন।

তিন দিনব্যাপী অধিবেশনে সুনীল অর্থনীতি, সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, সমুদ্রের বাস্তুতন্ত্র ও মানব স্বাস্থ্য, জাতিসংঘ ঘোষিত সমুদ্র বিজ্ঞানের জাতিসংঘ দশকসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে।

;

৩ দিনব্যাপী জাতীয় ভূমি সম্মেলন শুরু হচ্ছে বুধবার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী জাতীয় ভূমি সম্মেলন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর বঙ্গবন্ধু সম্মেলনকেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে দেশে এই প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠেয় জাতীয় ভূমি সম্মেলন উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। একইসঙ্গে তিনি ভূমি মন্ত্রণালয়ের ৭টি নতুন উদ্যোগও উদ্বোধন করবেন।

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভূমি মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা তুলে ধরা এবং ভূমিসেবা ডিজিটালাইজেশনের ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জসমূহ খুঁজে বের করে তা মোকাবিলায় করণীয় নির্ধারণ করতে আগামী ২৯ থেকে ৩১ মার্চ জাতীয় ভূমি সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে ভূমি মন্ত্রণালয়।

জাতীয় ভূমি সম্মেলনের অন্যান্য লক্ষ্যের মধ্যে রয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়ের গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে নাগরিক, সরকারি সংস্থা, অংশীজনদের অবহিত করানো, তাঁদের মধ্যে ভূমি ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করা এবং ভূমি সংক্রান্ত বিদ্যমান আইন ও বিধিবিধান সম্পর্কে ধারণা দেয়া।

৭টি উদ্যোগের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে জাতির পিতার স্মৃতি বিজড়িত লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে স্থাপন করা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্মৃতিস্তম্ভ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব গুচ্ছগ্রাম কমপ্লেক্স। বাকি ৬টি উদ্যোগ হচ্ছে, রেজিস্ট্রেশন-মিউটেশন আন্তঃসংযোগ, স্মার্ট ভূমি নকশা, স্মার্ট ভূমি রেকর্ডস, স্মার্ট ভূমি পিডিয়া, স্মার্ট ভূমিসেবা কেন্দ্র এবং ইউনিয়ন ভূমি অফিস।

প্রসঙ্গত, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন অপরাহ্নে ও পরবর্তী দুই দিন ‘স্মার্ট ভূমি ব্যবস্থাপনায় মাঠ প্রশাসন’, ‘সায়রাত ও খাসজমি ব্যবস্থাপনা’, ‘অধিগ্রহণ ব্যবস্থাপনা, সরকারি মামলা ও সরকারি ক্রয় ব্যবস্থাপনা’ এবং ‘বাংলাদেশ ডিজিটাল জরিপ’ শীর্ষক চারটি সেমিনার/প্যানেল ডিসকাশন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দিনের কার্যক্রম রাজধানীর বিয়াম ফাউন্ডেশনে অনুষ্ঠিত হবে।

;