নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় বিএসএফ’কে হারাল বিজিবি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ময়মনসিংহ
নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

শুরু থেকেই স্বস্তি নেই বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের! মরণপণ এক লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছেন তারা। একে অপরকে হারানোর প্রতিযোগিতা। ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সকে (বিএসএফ) নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় হারিয়ে শেষ হাসি হাসে বিজিবি’র সদস্যরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আপাদমস্তক মাঝিমাল্লা না হয়েও ঘাম ঝরানো বৈঠা টানার প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েন বিজিবি’র সদস্যরা। প্রতিটি নৌকায় চেপে বসেন ৪০-৫০ জন সদস্য। ততক্ষণে ব্রহ্মপুত্রের দু’পাড়ে সাজ সাজ রব। কানে আসছে বাদ্যযন্ত্রের ধ্বনি। তুমুল উত্তেজনায় নদের দু’পাড়ে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকা শিশু, নারী, পুরুষরা উজ্জীবিত করছেন তাদের।

এ এক অন্যরকম লড়াই। একপক্ষকে হারিয়ে আরেক পক্ষ জিতলেও ঐতিহ্যের নৌকাবাইচ উৎসবে ঠিকই মুগ্ধ হয়েছেন ময়মনসিংহ নগরীর বাসিন্দারা।

বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তরক্ষীদের মাঝে সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির বন্ধন শক্ত করতেই বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এ প্রীতি নৌকাবাইচের আয়োজন করে বিজিবি ময়মনসিংহ সেক্টর। তবে শেষ হাসি হেসেছে বিজিবি। নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতাটি শহরের খাগডহর এলাকা থেকে শুরু হয় এবং শেষ হয় শহরের শিল্পাচার্য জয়নুল উদ্যানের ব্রহ্মপুত্র অংশে।

নৌকাবাইচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিজিবি ময়মনসিংহ সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আনিসুর রহমান ও বিএসএফ’র ওয়াটার স্পোর্টস কোচ সঞ্জয় বেঞ্জোয়াল অভিন্ন বাক্যে বলেন, চমৎকার এ আয়োজন বন্ধুপ্রতিম দু’দেশের মানুষের সৌহার্দ্য বাড়াবে।

নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দল

 

এমন আয়োজনে মুগ্ধ স্থানীয় দর্শনার্থীরাও। দুটি দেশের সম্প্রীতির বন্ধন বজায় রাখতে এ ধরনের উদ্যোগ প্রশংসনীয় বলে মতপ্রকাশ করেন তারা। একইসঙ্গে এ আয়োজনের যেন ধারাবাহিকতা বজায় থাকে সেটিও প্রত্যাশা তাদের।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মোট তিনটি পর্বে এ নৌকাবাইচ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম পর্বে বিজিবি’র মধ্যে দু’টি গ্রুপের লড়াইয়ে পংখীরাজকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় মামা ভাগ্নে। এরপর দ্বিতীয় পর্বে জামালপুর ও শেরপুর থেকে আসা তিনটি দলের মধ্যে প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় শেরপুর থেকে আসা আবুল কালাম আজাদের দল। রানার্সআপ হয় আলী মোহাম্মদ ফজলুল হকের দল। তৃতীয় স্থান অর্জন করে জামালপুর থেকে আগত মেহের আলীর দল।

নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা দর্শনার্থীদের ঢল  

 

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ী দলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিজিবি’র সরাইল অঞ্চলের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাকির হোসেন।

এ সময় ৩৯ বিজিবি এর অধিনায়ক লে. কর্নেল শহীদুর রহমান, ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান এবং ময়মনসিংহ পুলিশ সুপার শাহ্ আবিদ হোসেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইউসুফ খান উপস্থিত ছিলেন।