খুলনাঞ্চলে কমছে না ডেঙ্গুর প্রকোপ: আসছে বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
সিট না পেয়ে মেঝেতেই ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

সিট না পেয়ে মেঝেতেই ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনাঞ্চলে কমছেনা ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ। প্রতিদিনই বিভাগের হাসপাতালগুলোতে নতুন নতুন রোগীরা ভর্তি হচ্ছেন। এ পর্যন্ত খুলনা বিভাগে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৪ জন।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোজিনা বেগম (৩৫) নামে এক ডেঙ্গু আক্রান্ত নারীর মৃত্যু হয়েছে। সে যশোর জেলার বাসিন্দা।

এদিকে, শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের ১৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের খুলনায় জরিপ কার্যক্রমে আসার কথা রয়েছে। খুলনায় প্রতিনিধি দলের সুপারভাইজার থাকবেন ঢাকা সিভিল সার্জন অফিসের জেলা কীটতত্ত্ববিদ এফএইচএম নুরুন্নবী চৌধুরী ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিনিয়র কীটতত্ত্ববিদ মোঃ রেজাউল করিম। বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দলটি এডিস মশার লার্ভার উৎপত্তিস্থল চিহ্নিতকরণ এবং করণীয় বিষয়ে একটি কর্মশালায় অংশ নেবে। এছাড়া খুলনা মহানগরী এলাকার জলাবদ্ধস্থান, সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল এলাকা ও রেল স্টেশনের ট্রেনের পরিত্যক্ত বগিও জরিপ করবেন তারা।

ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

 

খুলনার সিভিল সার্জন ডাঃ এ এস এম আব্দুর রাজ্জাক বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘ঢাকা থেকে ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলটি খুলনায় এসে এডিসের লার্ভার উৎপত্তিস্থল নিয়ে জরিপ করবে। মশার লার্ভা ও রোগীদের রক্ত পরীক্ষার পর আগামী বছরের কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করা হবে। প্রতিনিধি দলটি ২৩ তারিখ পর্যন্ত খুলনায় জরিপ চালাবেন।’

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ডাঃ সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘খুলনাঞ্চলের হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিনই ডেঙ্গু রোগীরা চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। গড়ে প্রায় দেড়শ রোগী প্রতিদিন ভর্তি হচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, আগামী মাসের শেষ দিকে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমবে। শীতের আভা শুরু হলে এডিস মশা কমবে। তবে আগামী বছর এ অঞ্চলে ডেঙ্গুর প্রকোপ ব্যাপক আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের সূত্রমতে, এ পর্যন্ত খুলনার বিভিন্ন জেলায় মোট ৭ হাজার ৩৬০ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। অধিকাংশ রোগীই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখনও চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫২০ জন। খুলনা বিভাগে ডেঙ্গু আক্রান্ত জেলাগুলোর মধ্যে যশোর, কুষ্টিয়া ও সাতক্ষীরায় ডেঙ্গুর প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। যশোর জেলায় ২ হাজার ৩১১ জন, কুষ্টিয়ায় ৯৬২ জন, খুলনায় ২০০ জন, বাগেরহাটে ২৩০ জন, সাতক্ষীরায় ৪৮০ জন, ঝিনাইদহে ৩৭৮ জন, মাগুরায় ৩৩৮ জন, নড়াইলে ৩০১ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১১৫ জন, মেহেরপুরে ১৯০ জন এবং খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৯৬৪ জন চিকিৎসা নিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :