ক্যাসিনো কী, আগেতো নাম শুনিনি: মির্জা ফখরুল

স্টাফ কসেপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, রংপুর
বক্তব্য রাখছেন মির্জা ফখরুল, ছবি: সংগৃহীত

বক্তব্য রাখছেন মির্জা ফখরুল, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার ক্যাসিনো জুয়ার আড়ালে দেশকে বিক্রি করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, ‘এই ক্যাসিনো কী, আমরা আগেতো এই নাম শুনিনি। আওয়ামী লীগ জনগণকে ক্যাসিনো দেখালো, খেলা শেখালো। তাদের নেতারা ক্যাসিনো জুয়ায় কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ গড়েছে। বিদেশে টাকা পাচার করেছে। সরকার ক্যাসিনো জুয়া খেলার আড়ালে দেশকে জুয়ার দেশে পরিণত করেছে। এখন দেশকে বিক্রির ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বৃষ্টিমুখর বিকেলে রংপুর মহানগরীর পায়রা চত্বরে ধানের শীষের প্রার্থী রিটা রহমানের নির্বাচনী পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমানকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এরশাদের লাঙ্গলে রংপুর পিছিয়েছে। আপনারা ভোট দিয়েছেন লাঙ্গলে, ভোট গিয়েছে নৌকাতে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে এরশাদ সাহেব ভালো মানুষ ছিলেন। কিন্তু ক্ষমতা ছাড়ার পর মানুষ তাকে ভালোবেসে লাঙ্গলে ভোট দিয়েছে। আর তিনি (এরশাদ) তা নৌকার কাছে বিক্রি করেছে।’

সারাদেশের উন্নয়নের তুলনায় রংপুর পিছিয়েছে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আপনাদের এলাকার মানুষ, ভারতীয় উপদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিক মশিউর রহমান যাদু মিয়ার যোগ্য সন্তান রিটা রহমানকে বিএনপি মনোনয়ন দিয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, ধানের শীষের বিজয় মানে রংপুরের মানুষের বিজয়। কারণ এই রংপুরবাসী অতীতেও ধানের শীষের সাথে ছিল।’

এসময় রংপুরবাসীকে জনগণ, গণতন্ত্র, স্বাধীনতা, ভোটাধিকারে বিশ্বাসী বিএনপি জোটের পক্ষে থেকে রিটা রহমানকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে সরকারের ক্যাসিনো জুয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানান।

পথসভায় রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল মাহমুদ টুকু, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় কমিটির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবীব দুলু, ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, যুবদলের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালেক, ঢাকা সিটির সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইসরাক হোসেন প্রমুখ।

এদিকে, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় অংশ নেয়ায় উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। বৃষ্টিতে ভিজে নগরীর চারটি পয়েন্টে পথসভায় অংশ নেওয়াসহ বিভিন্ন এলাকাতে তারা গণসংযোগও করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :