কৌশলী সাদ এরশাদ, উজ্জীবিত রিটা-আসিফ

ফরহাদুজ্জামান ফারুক, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, রংপুর
সাদ এরশাদ ও রিটার নির্বাচনী প্রচারণা

সাদ এরশাদ ও রিটার নির্বাচনী প্রচারণা

  • Font increase
  • Font Decrease

আর ৩ দিন পর রংপুর-৩ শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ভোটারদের কাছে প্রার্থীদের থাকবে দৌড়ঝাঁপ। এরপর বন্ধ হবে প্রচার প্রচারণা। আমেজহীন প্রচারণার শেষ মূহুর্তে ব্যস্ত তিন হেভিওয়েট প্রার্থী।

উৎসবহীন এই নির্বাচনের শুরু থেকে কৌশলী প্রচারণায় এগিয়ে এরশাদপুত্র রাহগীর আলমাহি সাদ। আর শেষ বেলায় এসে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে পেয়ে উজ্জীবিত বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান। এতে বিভেদ ভুলে ধানের শীষের পক্ষে এক কাতারে রংপুর বিএনপি।

রংপুরে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির মহাসচিব, যুগ্ম মহাসচিব, স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক সংসদ সদস্যসহ দলের সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতি, গণসংযোগ ও পথসভায় কেটে গেছে রিটা রহমানের হতাশা। এখন ব্যাপক সংখ্যক স্থানীয় নেতা-কর্মী তার সাথে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) সকালে মহানগরীর সেন্ট্রাল রোড থেকে সুপার মার্কেট এলাকা পর্যন্ত পায়ে হেটে গণসংযোগ করেন বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান। এছাড়াও বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকাতে গণসংযোগ ও পথসভা করেছেন।

অন্যদিকে, দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে লাঙলের দুর্গ হিসেবে পরিচিত এই আসন ধরে রাখতে মরিয়া আওয়ামী লীগ সমর্থিত জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগীর আলমাহি সাদ এরশাদ। প্রতিদিন গণসংযোগ, বিভিন্ন এলাকায় পথসভা এবং গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে নিয়ে চলছে মতবিনিময়। যা অন্যদের নির্বাচনী কৌশলে নেই বললেই চলে।

এদিকে, সাদ এরশাদের বিরুদ্ধে অন্য প্রার্থীদের রয়েছে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের একাধিক অভিযোগ।

দলীয় প্রার্থীদের বাইরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফও রংপুরের বিভিন্ন জায়গায় গণসংযোগ ও পথসভা করেছেন। তবে বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী মতো তার প্রচারণায় দলীয় নেতারা সঙ্গী না হলেও সাধারণ ভোটার ও কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ছিল ব্যাপক সাড়া।

আপনার মতামত লিখুন :