রাজশাহীতে পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজি প্রতি ২৫ টাকা

স্টাফ করেসপন্ডেট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, রাজশাহী
খুচরা বাজারে কমেছে পেঁয়াজের দর,  ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

খুচরা বাজারে কমেছে পেঁয়াজের দর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহীর কাঁচাবাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। বুধবার (২ অক্টোবর) সন্ধ্যা পর্যন্ত যে পেঁয়াজ ৯০ টাকা থেকে ৯৫ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হচ্ছিল, বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) তা কেজি প্রতি ৭০ টাকা থেকে ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ফলে একদিনের ব্যবধানে বাজারে পেঁয়াজের দাম ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা কমেছে।

রাজশাহীর মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজার, নিউ মার্কেট, কোর্ট স্টেশন, হড়গ্রাম, সাগরপাড়া বটতলা, বিনোদপুর, কাজলা এলাকার কাঁচাবাজার ঘুরে বৃহস্পতিবার দুপুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। দেশি ও ইন্ডিয়ান দুই ধরনের পেঁয়াজেরই সমান্তরালভাবে দাম কমেছে বাজারে।

মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজারের আজিজুল হক বলেন, বুধবারও দেশি পেঁয়াজ ৯০ থেকে ৯৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেছি। তবে আজ বাজার দর কম। এখন দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছি ৭৫ টাকায়। আর ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বিক্রি করছি ৬৮ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে।

আক্তার নামে আরেক খুচরা ব্যবসায়ী বলেন, 'আমি সকালে আড়ত থেকে পেঁয়াজ কিনে বাজারে বসি। বুধবার ৮৫ থেকে ৯০ টাকা দরে আড়ত থেকে কিনেছিলাম। বিক্রি করেছিলাম ৯০ টাকা থেকে ৯৫ টাকা কেজি দরে। তবে আজ সকালে আড়তে গিয়ে দেখি পেঁয়াজের দর কম ধরছে আড়ত মালিকরা। তারা কম দাম ধরায় আমরাও খুচরা বাজারে কম দামে ক্রেতাদের দিতে পারছি।'

নগরীর পাইকারি পেঁয়াজ বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান আরাফাত ট্রেডার্সের ব্যবস্থাপক আনোয়ারুল হক বলেন, 'সর্বশেষ দেশি পেঁয়াজ ৬৫ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে কিনেছি। আর ইন্ডিয়ান এলসি পেঁয়াজ কিনেছি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা দরে। সঙ্গে কিছু লাভ রেখে খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করেছি আজ। বাজার মনিটরিংয়ে কারণে কেউ দাম বেশি ধরতে সাহস পাচ্ছে না বলে জানান তিনি।

মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজারে আসা ক্রেতা রত্না বেগম বলেন, 'পেঁয়াজের দাম প্রশাসন নাকি ঠিক করে দিয়েছে। তবুও গত দুই দিন বাজারে দাম কমেনি। তবে আজ বাজারে এসে দেখছি দাম বেশ কমেছে। অল্প করে কিনেছি। দাম কিছুটা কমলে বেশি করে কিনে রাখবো।'

পেঁয়াজ কিনতে আসা হোটেল ব্যবসায়ী সাইদুল করিম বলেন, 'পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছি কয়েকদিন ধরে। এর আগে একবারে এক সপ্তাহের পেঁয়াজ কিনে রাখতাম। তবে দাম বৃদ্ধির কারণে এখন প্রতিদিন যেটুকু প্রয়োজন, শুধু সেটুকু কিনছি। তবে আজ পেঁয়াজের দাম একটু কমায় বেশি কিনেছি।'

আপনার মতামত লিখুন :