'বাস্তবতা বিবেচনায় ফিনটেনসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা'

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে সমসাময়িক ইস্যুতে আলাপকালে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে সমসাময়িক ইস্যুতে আলাপকালে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

বাস্তবতার বিবেচনায় রেখে ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে সমসাময়িক ইস্যুতে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

ফিটনেসহীন গাড়িতে ফুয়েল না দেয়ার বিষয়ে হাকোর্টের নির্দেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জ্বালানির বিষয়টি আমার না। হাইকোর্ট যখন আদেশ দিয়েছেন সেটি বাস্তবায়ন করা উচিত। এ বিষয়টি জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের অধীনে, তারা এটা দেখবে। এখন কি প্রক্রিয়া নিচ্ছে জানি না। এর আগে হেলমেট ব্যবহারে ডিএমপি কমিশনার যে পদক্ষেপ নিয়েছে সেটি কার্যকর হয়েছে। হাইকোর্টের এ আদেশটিও মেনে নেয়া দরকার, তাহলে মানুষ উপকৃত হবে।

তিনি বলেন, বিআরটিএ'র জনবল আগের তুলনায় বেশি আছে। জনবল আরো বাড়ানোর জন্য জনপ্রশাসন সচিবকে তাগিদ দিচ্ছি। আমি আশা করি, তাড়াতাড়ি জনবল পাবো। কাজ যত বেড়েছে সে হিসাবে জনবল কম।

ফিটনেস বিষয়ে আইনে যে শর্ত আছে সে অনুযায়ী কেউ ফিটনেসের বৈধতা পাবে না, সে ক্ষেত্রে বিষয়টি কিভাবে করা হবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাস্তবতার নিরিখে সবকিছু বিবেচনা করব। আগে আমরা দেখেছি অভিযান শুরু করলে গাড়ি কমে যায়, জনগণের ভোগান্তি হয়। আমরা গভীরভাবে বিষয়টি চিন্তা করছি, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। ঋণ সুবিধা দিয়ে মেয়র আনিস যে উদ্যোগ নিয়েছিলেন, সেভাবে কোম্পানীর অধিনে পরিবহন বাড়ানোর চিন্তা করছি। ফিটনেসবিহীন গাড়ি যে অবস্থায় আছে ব্যবস্থা নিতে গেলে গাড়ি কম পাওয়া যাবে।

সড়ক পরিবহন আইন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, মূল আইনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বিধিমালা করা হবে। এবার নিরাপদ সড়ক দিবসে আগের তুলনায় প্রচারণা বেশি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বাস্তবভিত্তিক কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। তার এই নির্দেশনা সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ভূমিকা রাখছে। ড্রাইভারদের অতিরিক্ত দায়িত্ব না দেয়া, পাঁচ ঘণ্টার বেশি কাজ না করানো এবং স্পিডের বিষয়ে তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন। তার নির্দেশনার আলোকে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, সড়ক পরিবহনের আইন প্রয়োগে আমরা কঠোর হবো। চাঁদাবাজি অপরাধ, যারা সড়কে চাঁদাবাজিতে লিপ্ত তারা সাবধান হবেন বলে আশা করি। অন্যথায় আইন অনুযায়ী বিচার হবে।

আপনার মতামত লিখুন :