পুলিশ কর্তৃক চোখ উৎপাটনের অভিযোগকারীর ২ বছরের কারাদণ্ড



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর. কম, খুলনা
চোখে কালো চশমা পরিহিত শাহজালাল, ছবি: সংগৃহীত

চোখে কালো চশমা পরিহিত শাহজালাল, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনায় পুলিশের হেফাজতে থাকা অবস্থায় দু’চোখ উপড়ে ফেলার আলোচিত অভিযোগকারী যুবক শাহজালালকে ছিনতাই মামলায় দুই বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সোমবার (৪ নভেম্বর) বিকেলে খুলনা মহানগর হাকিমের বিচার আদালত-১ (দ্রুত বিচার) এর বিচারক মো. আমিরুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ের পর শাহজালালকে কারাগারে পাঠানো হয়। 

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৮ জুলাই নগরীর খালিশপুর এলাকা থেকে ছিনতাইয়ের অভিযোগে শাহজালালকে আটক করে খালিশপুর থানা পুলিশ। পরদিন ভোরে দু'চোখ তুলে ফেলা অবস্থায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছিনতাইয়ের ঘটনায় সোমা বিশ্বাস নামের এক নারী শাহজালালকে আসামি করে খালিশপুর থানায় ছিনতাই মামলা দায়ের করেন। 

এদিকে, শুরু থেকেই পুলিশের বিরুদ্ধে চোখ তুলে ফেলার অভিযোগ করে শাহজালালের পরিবার। এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ৭ সেপ্টেম্বর খালিশপুর থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম খানসহ ১৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন শাহজালালের মা রেনু বেগম। মামলাটি নিন্ম আদালত খারিজ করে দিলে তারা উচ্চ আদালতে আপিল করেন। এর মধ্যে পুলিশ কর্মকর্তারা মীমাংসার প্রস্তাব ও ক্ষমতার অপব্যবহারসহ বিভিন্ন উপায়ে মামলা তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ করেন শাহজালালের পরিবার। 

শাহজালালের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. নুরুল হক বলেন, ‘ছিনতাই মামলার একমাত্র আসামি ছিলেন শাহজালাল। তার কাছ থেকে কিছু উদ্ধার করা যায়নি। তারপরও তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে।’

শাহজালালের বাবা জাকির হোসেন বলেন, ‘সকাল থেকেই পুলিশের লোকেরা আদালত এলাকায় অবস্থান নেন। তারা কয়েকবার আমাদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমরা কোনো কথা বলিনি।’

তিনি বলেন, ‘আমার ছেলের চোখ নিল, ছেলেকে অন্ধ বানালো, এবার তাকে জেলেও দিলো। গরিবের ওপর এমন অত্যাচার, আল্লাহ সহ্য করবেন না।’