খুলনায় সরকারি কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল, কন্ট্র‌োল রুম চালু

  ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
খুলনা সার্কিট হাউজে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

খুলনা সার্কিট হাউজে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল' উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। এই ঘূর্ণিঝড়ের কারণে মংলা সমুদ্র বন্দরে চার নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত জারি করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত পরিস্থিতি মোকাবিলায় খুলনা জেলার সরকারি সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ০৪১-২৮৩০০৫১ নম্বরে খোলা হয়েছে কন্ট্র‌োল রুম।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) বিকালে খুলনা সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

খুলনার জেলা প্রশাসক হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে এই সভায় পুলিশ সুপার এস এম শফিউদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে জেলা প্রশাসক সংবাদকর্মীদের জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় জেলার সব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। জেলার ৯টি উপজেলায় ৩৪৯টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি উপজেলায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে পর্যাপ্ত মেডিক্যাল টিম। রেড ক্রিসেন্ট, ফায়ার সার্ভিস ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কয়েকশ স্বেচ্ছাসেবকদের প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নদী তীরবর্তী শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের পাকা ভবনগুলো প্রস্তুত রয়েছে। স্থানীয় জেলেদেরকে নদীতে মাছ ধরা থেকে বিরত থাকতে ও চরে বসবাসকারীদের নিরাপদে সরে আসার জন্য বলা হচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ উপজেলা কয়রা-পাইকগাছা-দাকোপ-বটিয়াঘাটায় সবাইকে নিরাপদে থাকার জন্য মাইকিং করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত খুলনার সকল ট্যুর অপারেটরদের সুন্দরবনের রাসমেলার উদ্দেশে নৌযান ছাড়তে নিষেধ করা হয়েছে।

খুলনা আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের অগ্রভাগ থেকে ভেসে আসা মেঘ থেকেই উপকূলীয় অঞ্চলে বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। খুলনা শহরে দুপুরে বৃষ্টি হয়েছে, কিন্তু বিকালে গুমোট আবহাওয়া বিরাজ করছে।

তিনি আরো জানান, 'বুলবুল' উপকূলীয় অঞ্চল অতিক্রম করার সময় বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কি.মি. পর্যন্ত হতে পারে। বুলবুল এখন অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। আবহাওয়ার সর্বশেষ ১৭নং বুলেটিন অনুযায়ী ঘূর্ণিঝড়টি চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৯৫ কি.মি., কক্সবাজার থেকে ৬৪৫ কি.মি., মংলা থেকে ৫৮৫ কি.মি. ও পায়রা থেকে ৫৭৫ কি.মি. দূরত্বে অবস্থান করছে।

খুলনা জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আজিজুল হক জোয়ার্দ্দার বলেন, সরকারি-বেসরকারি ৩৪৯টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত করা হয়েছে। উপকূলীয় দাকোপ ও কয়রা উপজেলায় ২৪০৬০ সিপিপি স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আমরা সবদিক দিয়েই প্রস্তুত আছি।  

  ঘূর্ণিঝড় বুলবুল