‘মরে তো যাননি, ডিআইজি স্যার বিরক্ত হচ্ছেন রাস্তা ছাড়েন’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ডিআইজির সেই পাজেরো গাড়ি

ডিআইজির সেই পাজেরো গাড়ি

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীতে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়েছেন ডিজিটাল মাল্টিমিডিয়া নিউজ পোর্টাল বার্তা২৪.কম-এর স্টাফ করেসপন্ডেন্ট (ক্রাইম) শাহরিয়ার হাসান।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭ এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিক শাহরিয়ার বলেন, আমি বাইক চালিয়ে ধানমন্ডি থেকে অফিসে যাচ্ছিলাম। এসময় একটা পাজেরো গাড়ি (ঢাকা মেট্রো ঘ-১৩ ২৮০৪) আমাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে বাইক নিয়ে আমি বাসের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে রাস্তায় পড়ে যাই। পরে উঠে দাঁড়াতেই দেখি গাড়িটা দ্রুত গতিতে চলে যাচ্ছে। বাইক স্টার্ট দিয়ে দ্রুত পাজেরো গাড়িটির গতিরোধ করি, গাড়ির সামনে দাঁড়াই’।

এ সময় গাড়ি থেকে বের হয়ে চালক (পুলিশের ইউনিফর্ম পরিহিত) বলেন-  ‘রাস্তা ছেড়ে সরে যান।’ পরে পুলিশের পোশাক পরা আরেকজন গাড়ি থেকে নেমে বলেন কী হয়েছে? আমি বলি গাড়ির ভেতরে কে আছে তাকে নামতে বলুন। এমন ভাবে গাড়ি চালাচ্ছেন আমি তো এখনি মরে যেতাম। সরিটাও তো বলতে পারতেন।

ডিআইজির পাজেরো গাড়ি (ঢাকা মেট্রো ঘ-১৩ ২৮০৪) পেছন থেকে ধাক্কা দেয় সাংবাদিক শাহরিয়ার হাসানের বাইককে

চালক জবাবে বলেন, ‘সরি কি বলব। মরে তো যাননি। ভেতরে ডিআইজি স্যার বিরক্ত হচ্ছেন,  রাস্তা ছাড়েন- এই বলে চালক আমার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন।

শাহরিয়ার আরও বলেন, ‘ঘটনার বেশ কিছু সময় পর গাড়ি থেকে পুলিশ কর্মকর্তার ব্যক্তিগত অফিসার বেরিয়ে আমার বাইকের ছবি তুলেন।’ ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘রাস্তা ছাড়েন ভাই, ডিআইজি স্যার বসে আছেন।’

এসময় গাড়িটির চালক উল্টো বলেন, ‘ক্ষতিপূরণ দেন। না হয় ট্র্যাফিক ডাকি।’ উত্তরে আমি বলি- ‘ডিআইজি তো কি হয়েছে। গাড়ি চাপা দিয়ে মেরে ফেলবেন একটা সরি পর্যন্ত বলবেন না। নামতে বলেন, তার মুখটা দেখি।’

একপর্যায়ে চালক আবার বলেন, ‘স্যার বিরক্ত হচ্ছে ভাই, রাস্তা ছাড়েন।’ পরে পায়ের ব্যথা অনুভব করায় তাদের গাড়িটি ছেড়ে দেই বলে জানান শাহরিয়ার।

এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) মীর সোহেল রানা বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘এটা খুবই দুঃখজনক। গাড়ির নম্বর পেয়েছি। ওই গাড়িতে কে ছিল বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

আপনার মতামত লিখুন :