কেউ যেন সাম্প্রদায়িকতা ছড়াতে না পারে: গণপূর্তমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মাঘোৎসবে প্রধান অতিথি গণপূর্তমন্ত্রী/ ছবি: সংগৃহীত

মাঘোৎসবে প্রধান অতিথি গণপূর্তমন্ত্রী/ ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ধর্ম ব্যবহার করে কেউ যেন সাম্প্রদায়িকতা ছড়াতে না পারে। ব্যবধানের দেয়াল তুলতে না পারে। সেজন্য ধর্মের মৌলিক অমৃতবাণী ছড়িয়ে দিতে হবে। আমাদের সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য ও আন্তরিকতার নিবিড় বন্ধন নানা কারণে কিছুটা ক্ষয়িষ্ণু হয়ে গেছে। আমরা সেখানে আবার ফিরে যেতে চাই।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীতে বাংলাদেশ ব্রাহ্ম সমাজের ১৯০তম মাঘোৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে ব্রাহ্ম সমাজের কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, চিত্তকে নির্মল করার আহ্বান ধারণ করতে পারলে বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডে ধর্মের নামে উশৃঙ্খলতা, উগ্রতা ও সাম্প্রদায়িকতা থাকে না। সকল ধর্মের মর্মবাণী এক। মত ও পথের ভিন্নতা থাকলেও গন্তব্য সকলের একই। সকল ধর্মাবলম্বীদের উচ্ছ্বাসের শব্দ একইভাবে উচ্চারিত। বেদনার কষ্টে সকলের ক্রন্দনের ভাষাও একই। নৈবেদ্য লাভের প্রচেষ্টা সবার এক। কোনো ধর্ম অপরাধের কথা বলে না, সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না।

সমাজ সংস্কারে রাজা রামমোহন রায়ের অবদানের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, অন্য ধর্মাবলম্বীরাও তার অবদান অস্বীকার করতে পারবেন না। তিনি তার দৃষ্টিকোণ থেকে সমাজ সংস্কারের জন্য যে পদক্ষেপগুলো নিয়েছিলেন, ১৯০ বছরের দীর্ঘ ধারাবাহিকতায় আজ পর্যন্ত কেউ বলতে পারেনি যে- তার উদ্যোগ কোনোভাবে সঠিক ছিল না।

মন্ত্রী আরও বলেন, ব্রাহ্ম সমাজের সাধনা, চিন্তা, মননশীলতা যারা ধারণ করেন এবং লালন করে তারা উদারতার সাথে কাজ করছেন। এই উদারতা ছড়িয়ে দিতে হবে এক অঞ্চল থেকে অন্য অঞ্চলে। একইভাবে অন্য ধর্মাবলম্বীদেরও ধর্মের মৌলিক কথা সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে শান্তির পৃথিবী বিনির্মাণে অবদান রাখতে হবে।

সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য অবিরাম পরিশ্রম করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আপনার মতামত লিখুন :