৮০ হাজার লিটার জীবাণুনাশক ছিটালো ডিএনসিসি



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সড়কে ছিটানো হচ্ছে  জীবাণুনাশক/ছবি: বার্তা২৪.কম

সড়কে ছিটানো হচ্ছে জীবাণুনাশক/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সড়কে জীবাণুনাশক স্প্রে করলো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

বুধবার (২৫ মার্চ) বিভিন্ন সড়ক, প্রতিষ্ঠানের সামনে, উন্মুক্ত স্থানে ওয়াটার বাউজারের সাহায্যে তরল জীবাণুনাশক স্প্রে করা হয়।

এ সকল স্থান ছাড়াও বিভিন্ন অবকাঠামো এবং সড়কে থাকা যানবাহনেও জীবাণুনাশক প্রয়োগ করা হয়। এদিন ৫টি ওয়াটার বাউজার জীবাণুনাশক ছিটানোর কাজে ব্যবহার করা হয়। মোট ৮০ হাজার লিটার তরল জীবাণুনাশক ডিএনসিসির প্রায় ১২ লক্ষ বর্গফুট এলাকায় ছিটানো হয়।

বুধবার উত্তরা ১১, ১২, ১৩ এবং ১৪ নম্বর সেক্টর, মিরপুর এলাকার সেকশন ২, ১০, ১৩ এবং ১৪, মগবাজার, বাংলামোটর, গুলশান, বসুন্ধরা, আমিনবাজার ও গাবতলী, আগারগাঁও এলাকায় তরল জীবাণুনাশক ছিটানো হয়। শুধু সড়ক বা উন্মুক্ত স্থানই না বরং জনগণ যাতায়াত করে এমন সকল অবকাঠামোতেও জীবাণুনাশক দেওয়া হচ্ছে। যেমন ফুটওভারব্রিজে, যাত্রী ছাউনিতে। যেখানে ওয়াটার বাউজার দিয়ে ছিটানো যায় না সেখানে হ্যান্ড স্প্রে এবং হুইলব্যারো মেশিনের সাহায্যে জীবাণুনাশক দেওয়া হচ্ছে। সড়কে থাকা বিভিন্ন যানবাহন, গণপরিবহনে, বাস টার্মিনালগুলোতেও স্প্রে করা হচ্ছে হচ্ছে। এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

গত রোববার (২২ মার্চ) থেকে পাঁচটি ওয়াটার বাউজারের সাহায্যে তরল জীবাণুনাশক প্রয়োগের কার্যক্রম শুরু করে ডিএনসিসি। এ পর্যন্ত মোট ২ লক্ষ ৩০ হাজার লিটার তরল জীবাণুনাশক প্রধান সড়ক, উন্মুক্ত স্থান এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সামনে স্প্রে করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে ডিএনসিসি কর্তৃক তরল জীবাণুনাশক ছিটানো অব্যাহত থাকবে।